নো এডিশন

শুন্য শুন্যালয় ৯ মার্চ ২০১৫, সোমবার, ০৬:২৪:১৪পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৫০ মন্তব্য

একটা কিছু লিখবোই আজ, কি নিয়ে লিখবো তা না ভাবলেও চলবে। দেখিই না খট্টাখট সা-রে-সা , আঙ্গুল পংখীরাজ উড়ে যা...আজ আঙ্গুল যা খুশি লিখবে, মনের দাপট বন্ধ। তবে খুব আফসোস হচ্ছে, ল্যাপিতে কাটাকুটির অপশন নেই। খাতায় লিখলে আজ ভুলভাল সব রেখে দিতাম। যা লিখতে ইচ্ছে করতে গিয়ে কেটে দিতাম, তাও রেখে দিতাম। কেন এতো ভেবেচিন্তে লিখতে হবে? কার কথা ভেবে? ভুলের জন্য নাম্বার কমিয়ে দেবার কেউ নেই, এখানে আমিই আমার সব।

চোখ বন্ধ, বেছে নাও... "ভোর" ???

আহ, আবার সেই ভোর!!! দেখবো না বলে, দরজা জানালা বন্ধ করে ঘুটঘুটে অন্ধকার করে রেখেছি সব, তবুও কোথা দিয়ে আসে এই ভোর? এ আলো, অসহ্য এ আলো। মনের ভাবনায় আঙ্গুলও অভ্যস্ত হয়ে গেছে দেখছি। কে তুমি ভোর? একটা সময়? আমার খাঁচামুক্ত সময়কে ভালোবেসে নাম দিয়েছিলাম ভোর, ভুলে গেছো? তুমি একটা সময়, একটা কল্পনা ছাড়া আর কিছুই নও। আমি তোমাকে আঁকি যেভাবে খুশি, যে রঙে খুশি। একটা ইজেলে তুমি সদ্য তুলি ধরতে শেখা কারো আঁকিবুঁকি। মুছে দিতে না পারলেও নস্ট করে দিতে পারি আমি। আর তুমিই কিনা ভাবছো আমার সবকিছু বেদখল করবে? আমার সব ভাবনায় ফাঁক গলে ঢুকে পরবে? কল্পনায় রঙের কৌটো উল্টে আঁকতে গিয়ে দেখেছি, আমার সত্যিকারের ভোর প্রতিদিন এসে এসে ফিরে গেছে বারান্দা থেকে। আর তুমি কল্পনা থেকে অনুনয় বিনুনয় করছো আমার বাস্তব হবে বলে!!! না, সত্যিকারের সাথে কৃত্তিম রঙ মেশাতে নেই। যতোটা অন্ধকার চাই তোমাকে রুখতে, ততোটা কালো পর্দায় ঘিরে রাখবো ঘর, কিংবা নিজেকে। চলে যাও ভোর।

এবার? কি লিখবে? প্লিজ বলোনা, ভোর ছাড়া তুমি আর কিছু লিখতে পারোনা। মায়া? সে অতি ভয়ংকর। শুন্যের মায়া বলে কিছু নেই।

.......................................কার শক্তি বেশি? কোনকিছু সৃস্টির আনন্দ নাকি সে সৃস্টি ধ্বংসের কস্ট?

 

0 Shares

৫০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ