সেদিন আকাশ ভারী ছিল, ছিল ঘন মেঘে ঢাকা
তুমি এসেছিলে এতিম নির্ভয়া শান্তির ছবি আঁকা।
ঝড়ো দমকা হাওয়ায় বিলীন হয়ে যায়
পিতা হারা কালিমা লিপ্ত বাংলার ধূলি মাখা।

লাখো জনতার পদভারে মুখরিত ছিল ঢাকার রাজপথ
পিতা হারা বেদনায় বুক ছিল ভারী বাংলার জনপথ।
পিতার খুনীরা দর্প করে ছাড়ে হুঙ্কার এই বাংলায়
রাজাকারের কনভয় ঢাকে বাংলার রক্তাক্ত পতাকায়।

ঢাকার রাস্তায় খুনীদের সাজোয়া কনভয় দেয় হুঙ্কার হানা
অলি গলি ছিল সাপ নেউলে টিকটিকির বিষাক্ত ফণা।
মানুষ নেমেছিল নির্ভয়ে ষরযন্ত্রের বাঁধ উপড়ে ফেলে
জয় বাংলায় উত্তাল রাজপথ খুনীর মসনদ ভাঙবে বলে।

আকাশে সেদিন ডানা মেলেছিল পরাজিত শকুনের দল
জনতার হুঙ্কারে ভেঙে পড়ে সেদিন শিরহীন চামচিকার বল।
পিতা হারা বেদনায় অশ্রুসিক্ত তুমি ছিলে
লাখো মানুষের আনন্দাশ্রুতে নতুন শক্তি পেলে।

স্রস্টার কাছে প্রার্থনা করেছো সেদিন দুহাত তুলে
দু:খী মানুষের মুখে হাসি ফুটাবার শপথ নিয়েছিলে।
খুনীরা সেদিন বন্দী রেখেছিল পিতার রক্ত মাখা স্মৃতি
ঐ বাড়িটি বিজয় পতাকা জয় বাংলার দ্যুতি।

মিলাদ তোমাকে পড়তে দেয়নি ধর্ম গিয়েছে ভুলে
রাজপথে তাই মিলাদ পড়েছো জায়নামাজটি তুলে।
তুমি শুধু আজ মুজিব কন্যা নও নেত্রী হাসিনা
তুমিই আজ বিশ্ব নেত্রী মানুষের মুক্তির ঠিকানা।

করোনা কালের দু:সহ দিনে মানুষ আজ দিশেহারা
সবার পাশে দাঁড়িয়েছো তুমি অভয় পেয়েছে তারা।
মানুষের মাঝে বেঁচে আছ তুমি বাংলার ঠিকানা
তুমি হও মৃত্যুঞ্জয়ী শান্তির দুত বাংলার প্রার্থনা।

১৯৭জন ২জন
0 Shares

১৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য