নীল একজন রঙ

নীলাঞ্জনা নীলা ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৫, শুক্রবার, ০১:১৪:২০পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি, কবিতা ৬২ মন্তব্য

 

গর্ভবতী জ্যোৎস্না
গর্ভবতী জ্যোৎস্না

কবিতার খুব কাছাকাছি বসেছিলাম। নীরব-নিস্তব্ধে। প্রদীপের শিখার মতো জ্বলে যাচ্ছিলো
জোনাকীর আলো গভীর অরণ্যে। কার মুখ জানি দেখেছিলাম সেই রাতে, মোমের মতো গলে গলে ঝরে পড়ছিলো
কুয়াশার ভেতর। এক আবছায়া যেনো। অস্পষ্ট সেই মুখচ্ছবি অন্ধকারে হাওয়ার মতো এসে ফিসফিস করে বলে গেলো,
“ধূসরতার মধ্যে আর কতোকাল প্রতীক্ষা? কার জন্যে?” উত্তরহীন, নির্বাক। কি ভাষায় ফোঁটানো যায় উষ্ণ আবেগের কুঁড়ি?
সে তো জানেই নীল রং ছাড়া আর কিছুই নেই আমার জীবনের কোনো রঙে। যতোই মেঘ ঢেকে রাখুক পৃথিবীর এই আকাশ ওই; তবুও আকাশ যে নীলই থাকে।
সমস্ত আলো জ্বালিয়ে সূর্য যতোই পোড়াক মাটির বুক, মাটির ভেতর সেই মেটো রং-ই থাকে।

পৃথিবীর এ প্রান্ত থেকে ও প্রান্ত অব্দি চোখ যেতে পারেনা, মন তীব্রবেগে ছুটে চলে। কোথাও ভোর, কোথাও সন্ধ্যে-দুপুর-রাত।
একেকটি রঙে সেজে ওঠে এ বেলা-ও বেলা। আমার কেবলই একটি-ই রঙ। যা জানা হয়েছে, আর যা অজানাই থেকে গেলো, ওই নিয়েই দিব্যি কেটে যাচ্ছে দিনকাল।
হৃদয় কাঁপে, পাশ ফেরে শোয়, জানালায় শুক্লপক্ষের আধা কাঁটা চাঁদের মতো। কখনো গর্ভবতী চাঁদের মতোই মাতৃত্ত্বের হাসিতে সাজায় মধ্যরাত। রাত এক এক করে সিঁড়ি বেয়ে ওঠে, তারপর কোলাপসিবল গেট খুলে ভোরকে সময়ের কাছে এনে বসিয়ে রেখে চলে যায়। নভোনীল দেখে যায় অনন্ত চরাচর। শুধুই নীল, চারিদিক জুড়ে কেবলই নীল। তবুও একটি শূণ্যতা উৎসবের আনন্দ মেখে একজনের প্রতীক্ষায় ঠোঁটে রক্তিম হাসিটুকু ধরেই রাখে।

নীল, তুমি কবে আসবে? শারদীয়ার আবাহনের শঙ্খ আর মাত্র একটি মাস পর বেজে উঠবে। কবে তুমি ফিরে আসবে, কবে?

মেঘের আড়ালে নীল
মেঘের আড়ালে নীল

 

হ্যামিল্টন, কানাডা
৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৫ ইং।

১৯৮৫জন ১৯৬৯জন
0 Shares

৬২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ