নীলাম্বরী

সৌবর্ণ বাঁধন ৭ জুলাই ২০২২, বৃহস্পতিবার, ১১:৩০:৪০অপরাহ্ন কবিতা ১৫ মন্তব্য

উতলা মেঘের দিন ডাকছে প্রলয়,
শস্যক্ষেতে কুয়াশায় ঢাকা গুচ্ছ গুচ্ছ মাশরুম,
প্রাচীন প্রেমের সাথে উড়ে আসে বোধিবৃক্ষে ঘুম!
এই বৃক্ষতলে হেঁটেছিল চাঁদ বুকে নিয়ে হারানোর ভয়,
নির্লিপ্ত প্রহরে নেমেছিল পৃথিবীর বুকে তীব্র রক্তক্ষয়!
বারান্দায় দেবদূত উঁকি দিয়ে খোঁজে কারো নামধাম,
জানেন ঈশ্বর, মৃত নদীরা মূলত হয়ে যায় নিলাম!
নক্ষত্রের ছায়া মেখে অতল জলে নাচছে সে জাগরী,
ঝংকৃত কাশবনে বেঁচে আছে কিছু রুপালী দীর্ঘশ্বাস,
এই রাজপথে একদিন হেঁটেছিল নীলাম্বরী,
নীল আলো ফোঁটা ফোঁটা বৃষ্টিতে বিঁধেছিল হৃদয়!
তীব্র টানে পৃথিবীকে ছুঁয়ে দিলে চাঁদ,
ধ্বংস হবে জনপদ সব; তবু বাঁচবে আরাধ্য নগরী!
এখানে আকাশগঙ্গায় মিশেছে অশ্রুত টুং টাং,
বাতাসে কল্লোল তুলে দূর্বাঘাসে ভেসেছে অম্বরী!

বাতাসে দুরুদুরু কাঁপছে হলুদ নিয়ন বাতির ঝাড়,
উড়োজাহাজের সাথে বাজি রেখে উড়েছিল বন্য ঈগল,
অবিরত ঝরছে তার সোনালী পশমের কণা,
যুদ্ধক্ষেত্র ঢেকে দিতে নামছে বুঝি সুমেরুর অন্ধকার!
ঝুঁকে পড়া রেলিং এ ভর দিয়ে শুয়ে শুঁকেছিল রোদ,
ক্যাঁচ ক্যাঁচ শব্দের ভারে হয়ত ভাঙ্গছে সে সমুদ্রের পথ,
নির্বিকার তবু অগ্নিকুন্ডের পাশে জমে থাকা মু্‌খ!
এই আলোয় অন্ধকারে গলেছিল বরফে নীলাম্বরী,
প্রাচীন ঝরণায় দেবতারা নেমে সারাতে অসুখ
জেনেছে মানবীই পৃথিবীর উদ্ভাসিত চোখ,
মহাকাশে নীহারিকা ছুঁয়ে ফুটে উঠা প্রথম হৃদয়!
স্ট্রবেরি ফলের মতো হালকা মিষ্টি বাতাসে কাঁপে রোদ,
নীলাম্বরী! ভেসে যায় রাজহাঁস কন্ঠে ভরে নিঃশ্বাস,
এখানে প্রেমের নাম অজন্তার চির অতৃপ্ত বোধ,
হালকা নীলাভ বনে অকারণে আকাশের সাথে বসবাস,
অগম্য জেনেও নাবিকের চোখে নেই কোন ক্ষোভ!

৩৪৪জন ৬৩জন
0 Shares

১৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ