সোনেলা দিগন্তে জলসিড়ির ধারে

নীলাম্বরী

আরজু মুক্তা ২০ আগস্ট ২০২১, শুক্রবার, ০৩:০১:৩৩অপরাহ্ন অণুগল্প ৩৪ মন্তব্য

পৃথিবীর সবচেয়ে অসম্ভব সুন্দর দৃশ্য হচ্ছে নীল টাঙ্গাইল শাড়ি আর এক হাত ভর্তি নীল চুড়ি।  দিপ্তীর আজ আবৃত্তির অনুষ্ঠান। এই শরতে তাই নীল সাজেই সাজবে। অনুভূতি প্রকাশের আর এক নাম নীল শাড়ি। কিন্তু নীল চুড়ি…. সেটা কিনতে শাহবাগে আসা।

আশিক ফ্যালফ্যাল করে মেয়েটার দিকে তাকিয়ে আছে। নীল শাড়িতে মেয়েটিকে একটুকরো আকাশ মনে হচ্ছে।

আবির বিষয়টা খেয়াল করে বললো, ” তুই তো কুপোকাত! ”

কুপোকাতের কি দেখলি ?  সুন্দর দৃশ্যের দিকে তাকিয়ে থাকা দোষের কিছু নয়।

ভাগ্যিস চুড়ি পরেনি ; না হলে তো নিশ্চয় বলতি… ” একটু রিনিঝিনি আওয়াজটা শোনান।”

ধুর। এসব তো ফ্রিতে পাওয়া যায়।

যা না !  কাছে যা।

হ্যালো! আপনি নীলাঞ্জনা?  ফুড এণ্ড নিউট্রিশন থার্ড ইয়ার?

মেয়েটি চমকাবার আগেই ছেলেটি বললো। আপনাকে অপরূপ লাগছে। বিশেষ করে নীল শাড়িতে। নীল শাড়ি, সমুদ্র, সূর্যাস্ত একই রেখায়। না দেখে বাড়ি ফেরা যায় না। হাঁটবেন আমার সাথে?

আমি কিন্তু আপনার প্রশংসায় ভাসছি না।

সব কিছু কি আর ফ্রিতে পাওয়া যায়?

পুরুষ মানুষের এই এক সমস্যা। লাই দিলেই মাথায় ওঠে।

কি করবো বলুন?  একটা হাত থাকলে উপরে উঠতে ভয় লাগে না।

সহজেই ভাবছেন সবকিছু?

আমার আবার কাঁপুনি দিয়ে জ্বর আসে মেয়েদের হাত ধরলে।

ওমা!  তাই নাকি?

না, মানে…..

কি মানে মানে করছেন?

ভালোবাসা হলে নিজে নিজে উড়তে পারেনা। দুজনকেই হাওয়ায় ভাসতে হয়।

ভালোই মেয়ে পটাতে জানেন।

একজনকেও তো পটাতে পারলামনা।

এখানে আসুন। এই হাতে নীল চুড়িগুলো পরিয়ে দিন।

আমি???

মুহূর্তেই মেয়ে পটান। এবার দক্ষতা দেখি। চুড়ি পরানো, খোঁপায় অপরাজিতা কিংবা কপালে নীল টিপ!

এবার চুপ হয়ে গেলো আশিক।

কি হলো?  কথার মায়াজাল না বাড়িয়ে অপেক্ষার অবসান ঘটান।

চুড়ি পরিয়ে দেয়ার চেয়ে সহজ কাজ হলো আপনার চোখের দিকে তাকিয়ে থাকা।

বুঝছি, ফাঁসীর মঞ্চে ফাঁসী কার্যকর হতে আর দেরি নাই।

হা হা। এবার চলুন। ঘরে না ফিরে নীল শাড়ির আঁচলে আমার দুঃখগুলো ঢাকতে চাই। নীল শাড়িতে মুগ্ধ হয়ে, নিরিবিলি একটু ট্রাই করে দেখি ; সুন্দরি নারীর হাতে চুড়ি পরানো হ্যান্ডক্যাপ পরানোর থেকেও কঠিন কিনা !

১১৬০জন ১৪জন
0 Shares

৩৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য