নিসঙ্গতা এবং প্রেম

অদ্ভুত শূন্যতা ১ আগস্ট ২০১৩, বৃহস্পতিবার, ০৯:১৩:৪৫অপরাহ্ন বিবিধ ৬ মন্তব্য

একাকী বালক
পথ।
পথ চলে গেছে প্রান্তরে।ছেলেটি হাঁটছে।
ছেলেটি উদাসীন।ছেলেটি আনমনা। পথ ধূলিময়, পথে রুক্ষতা।রুক্ষতা ছেলেটির অবয়বে।
পথ এবং ছেলেটি, উভয়েরই গন্তব্য প্রান্তর।
প্রান্তর ধূ ধূ।
পথের সমান্তরালে অপসৃয়মান পথবৃক্ষ।
পথবৃক্ষরা ঝিমোচ্ছে।
ছেলেটি হাঁটছে। ছেলেটি হাঁটবে
এবং বসবে সবুজ প্রান্তরে।
প্রান্তর সেঁটে জলপুকুর। জলপুকুর জল হীন।
সবুজ প্রান্তর যেন বা অনুভবে ধূসর।
ছেলেটির দৃষ্টি পুকুরের ওপারে, দূরে, বিভ্রান্তিতে।
দৃষ্টির মাঝ পথে একটা কাক।
কাকের কর্কস প্রলাপ বাড়িয়ে তুলছে পথ/পুকুর/প্রান্তর অথবা ছেলেটির রুক্ষতা।
যে অরণ্য দাঁড়িয়ে আছে পুকুরে কোল ঘেসে, নির্জিব তার বৃক্ষ/পাতা।
ছেলেটি বসে আছে, নতমুখ।
তার উপলব্ধিতে নিজস্ব মৌনতা, হাহাকার।

এবং বালিকা

পথ। বহতা পথ।
পথ যেন নদীরই মতন।
মেয়েটি উচ্ছল, ছেলেটিও যেন প্রাণ প্রাচুর্যে ঋদ্ধ।
পথবৃক্ষরা উচ্ছলতায় মুখর।
পাখির কলতান।
মেয়েটি ছেলেটির হাত ধরে আনমনে হাঁটছে।
হাঁটছে প্রান্তরের দিকে।
অদ্ভুৎ সবুজ প্রান্তর।
প্রান্তর শোভিত শ্বাশত ফুল সমারহে।
ফুলেরা গন্ধে উদ্বেলিত,ব্যাকুল।
জলপুকুরে টলমল জল।
শান্ত জলে মাছেদের লুটোপুটি।
মাছরাঙা তার রঙ বিলোচ্ছে প্রকৃতেতে।
ছেলেটি এবং মেয়েটি হর্ষে আত্মহারা, পুলকিত।
তাদের কাব্যময় যৌথ দৃষ্টি পুকুরে/অরণ্যে/ভাবালুতায়।
অরণ্যের সবুজ বৃক্ষে চঞ্চল সবুজতা/আনন্দ আবেশ।
পাখির কুজনে অরণ্য ভাসছে।

অতঃপর
ভালোবাসা সব পারে। ভালোবাসা ভেঙ্গে দেয় নিঃসঙ্গতা, মুছে দেয় মৌনতা।
মেয়েটি এবং ছেলেটির ভালোবাসা বদলে দেয়
পৃথিবীর রঙ, সমস্ত রুক্ষতা।

৩৫৪জন ৩৫৪জন
0 Shares

৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য