নির্বাসন

রেজওয়ানা কবির ২৩ জুলাই ২০২২, শনিবার, ১০:১৫:৫১অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৭ মন্তব্য

তোমার দেয়া নির্বাসনে বেশ আছি!

সাথে আছে আমার একাকীত্ব, যার উপর ভর করে কাঁটিয়ে  দিতে পারি বাকিজনম।

যদি পরের জন্ম বলে কিছু থাকে তবে পরের জন্মেও এই নির্বাসন চাই,

ভাগ্যিস তুমি দিয়েছিলে এই নির্বাসন।

খুব সন্তর্পণে গুটিগুটি পায়ে এখন আমি খুঁজে ফিরি ভোরের আলোর ঝলকানি।

খুঁজে ফিরি রক্তিম সূর্যের সীমানায়  প্রখর রোদের তাপদাহে সিক্ত হওয়ার পথ।

শত শত বছর অপেক্ষায় থাকি কফি হাতে একাকী আড়ষ্ট সন্ধ্যার।

একাকীত্বের বৃষ্টি ভেজা পাতার কিনারে শেষ জলবিন্দুর মতো উন্মুখ মাটির পানে, ঝুলে থাকি নিত্য!

রোজ প্রত্যুষে বিছানা ছেড়ে সৃষ্টিকর্তার প্রার্থনা শেষে

বেড়িয়ে পড়ি প্রাতঃভ্রমনে।

তারপর বেড়িয়ে পড়ি রক্তিম গীর্জার বিকীর্ণ বাতাস  ছুঁয়ে দেখতে!

কৃষ্ণচূড়া আর লজ্জাবতীদের সাথে সখ্যতাও করি লাজুকলতা হয়ে।

রংবাহারী ময়ূরের  পেঁখম দেখে জাঁপটে ধরি  অরণ্য পথে।

জীবনের প্রতিক্ষণে বিরহের প্রেমানন্দ খুঁজি  চায়ের ধোঁয়ায় সুখের চুমুকের মত ।

তমস নির্জনে বিজলির আলোতে স্নান করি,

দীর্ঘ চুম্বনের স্বাদ খুঁজি মৃত্যুকে আলিঙ্গন করে।

অরন্যশূন্য দিগন্তে অপার্থিব আলোর খেলাও দেখি সঙ্গোপনে।

হৃদয়ের তন্ত্রীতে তবুও বেঁজে ওঠে নিরবে ভালোবাসার সুর।

তাই খানিক পূর্ণিমার আকাশের নিচে একা বসে প্রহর গুনি,

চাঁদটাকে হাতের মুঠোয় ভরে আনি  কল্পনাচ্ছলে,

রুপালি চাঁদের টিপ ও পরাই  এই  হতভাগ্য ললাটে।

আমার এই নির্বাসনে কথারা  আকারহীন,

রং,গন্ধ,সময়বিহীন ঝরে চলে অবিরাম চেতনাকোনে।

অন্তর্গত  এক আমি আর বিফল চাহনি গলে পড়ে আয়নার চোখে,

বার বার প্রতিফলিত হয়ে খুঁজে ফিরি নিজেকে নির্বাসনের নিস্তব্ধতায়।

অতঃপর আমি  নির্বাসনের মায়ায় আটকে থাকতে চাই নিজের মত করে ! বাকি জীবন।

আসুক না যতই শূন্যতার অশরীরি ছায়া।

ছবিঃ নেট থেকে।

২৬৮জন ৩৯জন
0 Shares

১৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ