নবান্নের কৃষক

ছাইরাছ হেলাল ৬ নভেম্বর ২০২০, শুক্রবার, ০৯:১৫:৪১পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৮ মন্তব্য

 

এ নয় কোন আবেগ উদ্বেলন,
নয় কোন ব্যাকুল বিস্ময়-অনুরণন,
কুটিল দৈত্যদের পাশা-খেলার শুধুই নীরব সাক্ষী;

খুব-ই তুচ্ছ-তাচ্ছিল্যের মত ছোটখাটো গুচ্ছ গুচ্ছ আঘাতগুলো
অবলীলায় আমাকে ছুঁয়ে যায়, হজম আঘাতে;

ঘুম ভাঙ্গা মধ্য/শেষ রাত্রিতে এঁকে-বেঁকে চলা বিষ-ফণাগুলো
বিস্তারে আসে; ঘিরে রাখে/ ঘিরে ধরে।
এ যেন তৈরি করে রাখা আংশিক রঙ্গিন চলচ্চিত্র/চালচিত্র!

বিফল জোয়ার টান তীব্র হয়-না, দ্রুত ভাটা এসে যায়!
শীত-কুয়াশায় এই শূন্যতার বিছানায় চুপে/স্ব-উল্লাসে শুয়ে-বসে;
বেলা-অবেলার নির্জন/কোলাহল মন্দিরে পূজা হয়-না, পূজা বসে-না;
নিষ্ফল -বীভৎস বাতাসে হাল চাষের মত।

স্যাঁতসেঁতের অসাড় মূর্ছায় যত্নে পাট করে রাখা শৌখিন মেজাজ
দুর্বিষহ বারোয়ারি তথৈবচঃ প্রলাপের মত গলির মোড়েই ঠায় দাঁড়িয়ে থাকে,
ধেয়ে আসা নিঝুম অন্ধকারের ভিড়ে;

যখন সব পেয়েছির অবাধ-অবোধ বাতাস মুদ্রাদোষের মত গিলে খাচ্ছে,
নক্ষত্র তখন ও জেগে থাকে দূর আকাশে, আকাশ প্রদীপ  জ্বেলে;
এই নামি নামি শীতে, নবান্নের কৃষক কুটিরে।

ছবি নেটের।

১৫৯জন ৫২জন
0 Shares

১৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য