নন্দিনী

আরজু মুক্তা ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০, মঙ্গলবার, ১২:০৬:৪২পূর্বাহ্ন অণুগল্প ৩২ মন্তব্য

নন্দিনীর শখ নান্দনিক ছবি কিনে দেয়ালে ঝুলিয়ে দেয়া। ছবিগুলোর সাথে আমার আত্মার কথোপকথন বেড়েছে। আজ যে ছবিটার সামনে দাঁড়িয়েছি, তা একটি বহুতল ভবনের স্কেচ। নিখুঁত হাতে আঁকা। ভবনটিকে ঘিরে পাতলা একটা সুক্ষ্ম নেট দেখতে পাচ্ছি। চোখ ছোট করে ,  মানে আধখোলা রেখে দেখি ; নেট না ঘুড়ির প্রতিচ্ছবি। অদ্ভুত একটা টান অনুভব করছি।

পলেস্তারার প্রথম দৃশ্যপটে দেখি, অবাক করা বিকেলের ছাদে উঠে ; যার রং বেরং এর ঘুড়ি ওড়া বিমোহিত করতো আমায় !  আজ ঘুড়িটি পথভুলে আমার হাতে এসে পরে। লেখা : ” মোবাইল নং, প্লিজ! ”  ঝটপট লিখে দেই ঘড়ির সময়কে স্থির করে।

বিধাতা নিজের মতো করে জীবনযাপন করতে দেয়না!  শব্দহীন কান্না বুকে জমাট বেধে শুধু ওজন বাড়ায়।

স্যার, গাড়ি কি একটু দূরে থামাবো?

সম্বিত ফিরে পেয়ে বলি, না গেটের সামনে।

আমাকে দেখে, সর্দারনী দ্রুত নেমে এলো। তাঁকে বললাম, ” বুদ্ধিমতী, স্মার্ট, সুন্দরি মেয়ে এক ঘণ্টার জন্য লাগবে।”

সময় গড়িয়ে যাচ্ছে দেখে, উর্বশী বললো, ” স্যার, কোন সমস্যা?”

মানিব্যাগ থেকে ছবি বের করে দেখালাম। কাল, মোবাইলে কল এসেছিলো। ও আশেপাশেই কোথাও আছে।

পরদিন ফোন পেয়ে ওখানে গেলাম।

উর্বশী বললো, “স্যার, ৩ নং বিল্ডিং, তৃতীয় তলা।”

একটা খাম বের করে ওকে দিলাম।

“স্যার, একজন পুরুষ মানুষ সব পারে! টাকাটা বড় নয়। দাওয়াত দিয়েন।”

চায়ের কাপে চামচের শব্দে ফিরে তাকিয়ে দেখি, ” আমার নন্দিনী!”

 

৮৫৯জন ৪৩০জন
71 Shares

৩২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য