নদের ঠিকানা

শুন্য শুন্যালয় ২৯ আগস্ট ২০১৫, শনিবার, ০৭:৩৫:২৩পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৭০ মন্তব্য

বুড়া গৌরাঙ্গ নদ পেলো ধরলার স্বাদ।
সরীসৃপ শরীর বয়ে বয়ে, ভেলায় ভেসে,
ভাসিয়ে নিয়ে রজকিনীর মানতের ফুল।
চিতাভস্মে জমে ছিলো এক নয়, তিন তিনটে জীবনের স্বপ্ন, দু:স্বপ্নগাঁথা
গত, আগত আর বর্তমান
সব ভাসিয়ে নিয়ে চলছে বুড়া গৌরাংগ নৌকার খলুইয়ে আধ ঘোমটা নতুন বউ নিয়ে
চলছে কোন সে ধরলার পিপাসা নিয়ে!!
ভেতরে তার ডুবন্ত প্রতিমা,
অতৃপ্ত বিসর্জনে ছিনিয়ে নেয়া আরো কতো দেহ
না থেমেই পার পেয়ে যাওয়া, সাপে কাঁটা নীলাম্বরী
বেলা শেষে বিষাক্ত বুড়া গৌরাঙ্গ মেটালো ভালোবাসার পাপ ধরলাকে বুকে পিষে নিয়ে
সবাই পেয়ে যাবে, যায় ”ঠিকানা” নাম যার।
সবাই!!!

পুনশ্চঃ পটুয়াখালী জেলার নদী -বুড়া গৌরাঙ্গ আর ধরলা -সুনামগঞ্জ জেলার। দুই প্রান্তের দুই নদী। এদের কখনোই মিল হবেনা, তাই অবাস্তবটাকেই ঘটিয়ে দিয়ে শেষের লাইনে “সবাই” এ বিষ্ময়সূচক চিহ্ন।
নদীর উপরেই আমরা সবসময় দেখি, তেমন কিছু বর্ননাতে। ফুল ভেসে যাওয়া, চিতার ভস্ম ছেড়ে দেয়া, প্রতিমার বিসর্জনের সাথে সাথে দুএকটি মৃত্যু তো সবসময় দেখি, নৌকাতে করে বিয়ে আর সিনেমাটিক সাঁপে কাঁটাকে ভাসিয়ে দেয়া। আর কিছু নেই লেখায়।
আমাকে নিয়মিত লেখার জন্য কানপড়া দিলে নিজেদেরই এমন কষ্ট পেতে হবে 🙂

৪৯৯জন ৪৯৯জন
0 Shares

৭০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ