নদীর জন্য বেড়িবাঁধ নয়

খাদিজাতুল কুবরা ১৬ ফেব্রুয়ারী ২০২২, বুধবার, ০৯:৩২:৫১অপরাহ্ন কবিতা ৬ মন্তব্য

 

একদা হেঁটে যাচ্ছিলাম মরণপাখা হাতে,

একটি বৃক্ষ এগিয়ে এলো ছায়া হাতে, বললো খানিক জিরোতে,

কেমন ঘুমঘুম চোখে দেখলুম তাকে আদর করতে চাইছে ঝুঁকে!

তন্দ্রাঘোরেই ঝটিকায় সরিয়ে দিলাম, বললাম অনুমোদন আছে?

সে কিছু বলেনি, আহত হয়েছে হয়তো।

ব্যস আমাদের হবে হবে করে প্রণয় হলোনা যা হলো তা ও সুখকর নয়।

অতঃপর লাইসেন্সধারী আগন্তুকের অপেক্ষা প্রতীক্ষায়…

আদরের উপবাসে আমি ভুভূক্ষ প্রায়!

প্রেম, বিরহ, বিসর্জন সব বুকের সমুদ্রে ধারণ করতে না পেরে উছলে পড়ছিল শরীরী ভাগাড়ে।

কী জঘন্য বিচ্ছিরি অভিজ্ঞতা হয়েছিল পাঁচকান আর চৌরাস্তার মোড়ে।

কোলাহল ছেড়ে হাঁটছিলাম আবার আনমনে, একটা নদী এগিয়ে এলো, বললো বোসতো দুদণ্ড

কথা আছে অনেক, বেলা গড়ায় কথা ফুরায় না।

মনে হলো তরঙ্গায়িত নদী আমার দুঃখগুলো নিতে চায় কি?

জিজ্ঞেস করতেই তার চোখে রক্তের মশাল জ্বেলে দিল,

ভয় পেয়ে গেলাম, ওতো আমার চেয়ে ও গভীর অনল!

বললো পুড়বার অনুমতি পাবো কি?

ভাবলাম, আমি? আমার কাছে কারুর প্রয়োজন থাকতে পারে এখনো!

এ আমি কি শুনছি?

চোখদুটো শান্ত অথচ আমায় নেশায় মদির করে তুললো!

শাস্ত্র, গ্রন্থ, প্রথা, প্রাচীন, বিলুপ্ত, প্রচলিত ভিন্ন নামের বেড়িগুলো ভাঙবো আমি তার জন্য।

২১০জন ৭৭জন
0 Shares

৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য