ডাঃ ইউনুস মিয়ারে নিয়া আমি কখনই সমালোচনা করিনাই   🙂 তবে গতকাল একটা নিউজ পেপারে দেখলাম তিনি নাকি নতুন রাজনীতি দল বানাচ্ছে , আর দলের নাম ( গ্রামীণ পার্টি বাংলাদেশ ) জিপিবি ‘ তার রাজনীতিতে নামতে দেখে ‘নতুন টিনের চাল’ এর কথা মনে পড়লো ।
তখন সম্ভাবত ১৯৯৬-১৯৯৭ হবে , তখন আমি অনেক ছোট ,তখন আমাদের গ্রামের প্রথম গ্রামীণ ব্যাংকের ঋণ দেওয়া শুরু হয়।যেইটাকে স্থানীয় ভাষা বলা হতো কিস্তিতে টাকা নেওয়া । আমাদের গ্রামের যেতো গরিব পরিবার ছিল সবাই ৪০-৫০ হাজার টাকা কিস্তি নিয়ে নতুন টিনের চাল দিয়ে ঘর বানিয়েছিল । গ্রামের তখন আর ভাঙাচুরা কোন ঘর ছিলনা ।সবাই নতুন টিন দিয়ে ঘর বেধে ছিল ।
তো তেমনই পাশের বাড়ির একজনকে আমার চাচা জিজ্ঞাসা করেছিল কিরে নতুন টিন দিয়ে যে ঘর বানাইলি এই টাকা পরিশোধ করবি কিভাবে ?
ঐ লোক জবাবে বলেছিল ঃ যেই লোক আমাদের কিস্তি দিচ্ছে সে সম্ভাবত একটি রাজনীতি দল করবে এবং সবাইকে বলবে আমাকে ভোট দেও ! আমি তোমাদের কাছ থেকে কিস্তির টাকা নিবোনা ।
এই কথা আমার চাচা শুনে হা হা হা করে হেসেছিল আর বলেছিল দেখিছ নতুন টিনের ঘরের সাথে বাড়িও যেন না যায় !!

তার ৭-৮ মাস পর কিস্তির টাকা দিতে না পেরে সবাই নতুন টিনের ঘর বিক্রি করা শুরু করে , এবং অনেকে বাড়ি বিক্রি করেছিল সেই টাকা পরিশোধ করার জন্য । আর এক মহিলা তো কিস্তির টাকা দিতে না পেরে ইন্দুর মারার বিষ খেয়ে মরতে চেয়েছিল , তার পর গু-মুত-তেতুল খাওয়াইয়া বমি করাইয়া তারে বাচানো হয়েছিল ।
দীর্ঘ ১৬ বছর পর সেই লোকের কথা মনে হলো  😀  ইউনুস ভাই কে রাজনীতিতে নামতে দেখে । তাই আমি বলতে চাই তরা সবাই বেশি বেশি করে গ্রামীণ ব্যাংক থেকে ঋণ নেওয়া শুরু করে দে ……………….. ইউনুস বাইকে ভোট দিলে সেই ঋণ আর পরিশোধ করতে হবেনা ।

২২৮জন ২৩০জন
0 Shares

৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন