নতুন কারিকুলাম ও ভাত রান্না

হালিমা আক্তার ২ ডিসেম্বর ২০২৩, শনিবার, ১১:৫৮:২৪অপরাহ্ন সমসাময়িক মন্তব্য নাই

জীবন পরিবর্তনশীল। পরিবর্তনের ধারাবাহিকতায় পিছনে যা ফেলে আসি, তা সব সময় বর্তমানে দাঁড়িয়ে ভালো মনে হয়। একটি প্রবাদ বাক্য আছে- "যায় দিন ভালো, আসে দিন খারাপ।" সত্যি কি তাই! প্রযুক্তির কল্যাণে যে আরাম আয়েশ ভোগ করছি। ইচ্ছে করলেই কি তা ফেলে পিছনে ফিরে যেতে পারবো।

এবার মূল কথায় আসি। ২০২৩ সালের জানুয়ারি মাস থেকে ষষ্ঠ ও সপ্তম শ্রেণিতে সম্পূর্ণ নতুন কারিকুলাম চালু করা হয়েছে। এ কারিকুলামে বইয়ের সংখ্যা কমানো হয়েছে। তোতা পাখির মতো মুখস্থ বিদ্যা নাই। বাস্তব ভিত্তিক অভিজ্ঞতার উপর জোর দেয়া হয়েছে। বর্তমান ষষ্ঠ সপ্তম শ্রেণীতে ১০ টি বিষয়ে পাঠদান করা হয়। তার মধ্যে একটি বিষয় "জীবন ও জীবিকা।" নাম থেকে বোঝা যায় বইটির বিষয়বস্তু কি হতে পারে। ষষ্ঠ শ্রেণির জীবনে জীবিকা বইয়ে মোট আটটি অধ্যায় আছে। ১) কাজের মাঝে আনন্দ, ২) পেশার রদবদল, ৩) আগামীর স্বপ্ন, ৪) আর্থিক ভাবনা, ৫) আমার জীবন আমার লক্ষ্য,৬) দশে মিলে করি কাজ, ৭) স্কিল কোর্স -১ কুকিং, স্কিল কোর্স -২ গ্রাফটিং বা জোড় কলম।

জীবন ও জীবিকা বইয়ের প্রতিটি অধ্যায় শিক্ষার্থীকে কর্মে সক্রিয় করে তোলার পদক্ষেপ তুলে ধরা হয়েছে। আমাদের অনেক বাবা মায়েরা গর্ববোধ করে বলেন আমার সন্তানকে গ্লাসে পানি টুকু ঢেলে খেতে দেই না। জীবন ও জীবিকা বই এটির বিপরীত। শিক্ষার্থীরা শুধু স্কুলে নয় বাসায় নিজের কাজগুলো নিজেই করবে। এ ব্যাপারে সুস্পষ্ট ধারণা দেয়া আছে। এক্ষেত্রে অভিভাবক শিক্ষার্থীকে মূল্যায়ন করবেন। দলীয় কাজে সহ শিক্ষার্থীরা একে অপরকে মূল্যায়ন করবে। আবার শিক্ষার্থী নিজেই নিজের মূল্যায়ন করবে। একটি অধ্যায়ে রান্নার ক্লাস আছে। এটা সেশনের শেষের দিকে। আমাদের সময়ও গার্হস্থ্য বিজ্ঞান বইয়ে রান্নার ক্লাস ছিল। আমাদের স্কুলেও একদিন সেই ক্লাস পিকনিক আমেজে করতাম। দুর্ভাগ্য আমাদের তখন মোবাইল ছিলনা। যার ফলে ছবি তুলে ফেসবুকে ভাইরাল করা যায়নি।

ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া এক ভিডিওতে একজন অভিভাবক বলছেন - আমার সন্তানকে প্রেম শেখার জন্য স্কুলে পাঠাই কী। উনি স্বাস্থ্য সুরক্ষা বিষয়ের " চল বন্ধু হই" বিষয় সম্পর্কে এ মন্তব্য করেন। আমি বইয়ের প্রতিটি পাতায় তন্ন তন্ন করে খুঁজেছি কোথাও প্রেম শেখানোর কথা আছে কিনা জানার জন্য। কীভাবে বন্ধু নির্বাচন করবো। বন্ধুর প্রতি সহমর্মিতা সহনশীলতার কথা তুলে ধরা হয়েছে।

এ কারিকুলামের প্রধান সমস্যা অবকাঠামো। আমাদের অধিকাংশ স্কুলের ক্লাসরুম গুলো ছোট। দলীয় কাজ করানোর জন্য যে ধরনের পরিবেশ দরকার সেটা দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। আরেকটা কথা দলীয় কাজ তো স্কুলে সম্পাদন করবে। সেটা তো বাড়ির হোমওয়ার্ক হতে পারে না। সকল শিক্ষকের প্রশিক্ষণ প্রয়োজন।

পরবর্তীতে গণিত ও বাংলা বিষয় নিয়ে আলোচনা করার ইচ্ছা আছে।

0 Shares

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ