ব্লগার ইঞ্জা সদা হাসিমুখে থাকা, অত্যন্ত বন্ধু ভাবাপন্ন একজন মানুষ। তার লেখা লেখির ভুবন ছিলো ফেইসবুক। ফেইসবুকেই পরিচয় তার সাথে। সোনেলা ব্লগের বিষয়ে আলাপ করার সাথে সাথেই সোনেলায় আইডি করে ফেললেন ৪ বছর ৬ মাস ২৮ দিন আগে। অল্প দিনের মধ্যেই নিজেকে একজন ব্লগার লেখক হিসেবে সোনেলায় প্রতিষ্ঠিত করেছেন। নিজে যেমন লেখেন, অন্য ব্লগারদের মন্তব্য দিয়ে উৎসাহিত করেন তার চেয়েও বেশী। তার লেখায় প্রাপ্ত মন্তব্যের ( ৪৩৫৯ ) চেয়ে তার করা মন্তব্যের ( ৪৬৬২ ) সংখ্যা এটিই প্রমাণ করে।

সোনেলার প্রতি তার ভালোবাসা অসীম। তার অনুপ্রেরণায় সোনেলায় অনেক ব্লগার এসেছেন, যারা এখন এখানে সফলতার সাথে ব্লগিং করেছেন। কয়েকবার ইঞ্জা ভাইয়ের সাথে আমার সাক্ষাত হয়েছে, বহুবার ফোনে আলাপ হয়েছে। সোনেলাকে কতটা ভালোবাসেন উনি তা ওনার সাথে কথা বলার সময়ই উপলব্ধি করেছি। আমাদের সকলের ভালোবাসার সোনেলাকে ধ্বংস করার জন্য সর্বশেষ চক্রান্তের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে অনেকের সাথে তিনিও সোনেলাকে রক্ষা করার ভুমিকায় ছিলেন। বেঈমান মীরজাফরদের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়ে তিনি সোনেলার প্রতি গভীর ভালোবাসার পরিচয় দিয়েছেন। ” সোনেলা ব্লগ কারো ব্যক্তিগত ব্লগ নয়, তাই ব্যক্তিগত দ্বন্দ্বে ব্লগকে ধ্বংস করা যাবে না। ব্লগ ধ্বংস করার চক্রান্ত রুখতে হবে। ” তার এই কথা আমার মত যারা সোনেলাকে ভালোবাসেন তাঁদের সবার অন্তর স্পর্শ করেছিলো। সোনেলা ব্লগ ইঞ্জা ভাইর প্রতি কৃতজ্ঞ।

গল্প লেখায় ইঞ্জা ভাইর খুব প্রিয়। উপন্যাস সম কয়েকটি গল্প তিনি লিখেছেন সোনেলায়। কতটা ধৈর্য থাকলে একজন মানুষ একটি গল্পের চল্লিশটি পর্ব লিখতে পারেন, তা আমি কল্পনাও করতে পারিনা। তার লেখা ধারাবাহিক গল্প সমূহঃ
ভালোবাসি তোমায়  : এটি চল্লিশ পর্বে সমাপ্ত করেছেন।
নদী  : এটি কুড়ি পর্বে সমাপ্ত করেছেন।
জলতরঙ্গ  : এটি সাত পর্বে সমাপ্ত করেছেন।
এক মুঠো ভালোবাসা : এটি চলমান যার আঠার তম পর্ব চলছে।
তার গল্পে সহজ সরল বর্ণনা, চরিত্র গুলো যেন আমাদের চেনা, ঘটনা সমূহ আমাদের অত্যন্ত পরিচিত। মনে হয় যেন আমরা এসব গল্প দেখছি আমাদের চোখের সামনে।

প্রচুর বিদেশ ভ্রমণ করেন তিনি। বিদেশ ভ্রমন নিয়ে তার কয়েকটি পোষ্ট আমাদের সে সব দেশ সম্পর্কে ধারনা দিয়েছে।
সমসাময়িক বিষয় নিয়েও তার প্রচুর লেখা আছে সোনেলা ব্লগে। প্রতিবাদী মানুষ তিনি। তা তার বিভিন্ন লেখায় ফুটে উঠেছে। অন্যায় দেখলে তিনি প্রতিবাদ করবেনই।
সোনেলায় তার চার বছর ছয় মাসের অধিক জীবন তার। অথচ মনে হয় এইত সেদিন এলেন তিনি। কখন তিনি দুইশত পোষ্ট লিখে ফেললেন লক্ষই করিনি। নিজের অসুস্থতা কাটিয়ে ব্লগে এখনো নিয়মিত হতে পারিনি। সোনেলার একজন এডমিন জানান আমাকে এটি। আমি পুরোপুরি সুস্থ না হলেও সোনেলার এই পরীক্ষিত বন্ধুকে শুভেচ্ছা, অভিনন্দন জানাবো না তাকি হয়?

দ্বিশততম পোষ্টের জন্য প্রিয় ব্লগার ইঞ্জা ভাইকে অন্তরের অন্তস্থল থেকে আন্তরিক শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।

সদা ভালো থাকুক উনি পরিবার পরিজন নিয়ে। ট্রিপল সেঞ্চুরী পোষ্টের জন্য আমরা বেশী অপেক্ষা করতে পারবো না ভাই, দ্রুত ট্রিপল সেঞ্চুরী করুণ।

৩৩২জন ৯১জন
248 Shares

৩৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ