দেহ

রুমন আশরাফ ২২ নভেম্বর ২০১৯, শুক্রবার, ০১:১৬:০৩অপরাহ্ন গল্প ২৭ মন্তব্য

“উফ আর কতক্ষণ, পা তো ব্যথা করছে। এবার একটু থামো”। হাঁপাতে হাঁপাতে কথাগুলো বলল রেশমা। রফিক এমন ভাব দেখাল যেন রেশমার কথাগুলো সে শুনতেই পায়নি। এদিকে রফিকও বেশ হাঁপিয়ে উঠেছে। বড় বড় নিঃশ্বাস ফেলছে। কপালে ঘাম জমছে আর মাঝে মাঝে বৃদ্ধা আঙ্গুল দিয়ে ঘামগুলো ফেলছে। নাহ এখন থামা যাবে না। আরও খানিকটা সময় চালিয়ে যেতে হবে।

 

“কি বলছি শুনছো না? বললাম পা ব্যথা করছে। এবার শেষ কর, আমি আর পারছি না”। রফিক তার গতিটি এবার একটু মন্থর করলো, কিন্তু থেমে গেল না। দৃষ্টি দিল রেশমা দিকে। কেমন যেন মলিন হয়ে গেছে ওর মুখটি। ঘামে সিক্ত হয়ে গেছে ওর সারা দেহ। দুহাত দিয়ে মুখমণ্ডলের ঘাম মুছতে মুছতে বলল, “খুব বেশি কষ্ট হচ্ছে? এইতো শেষ হয়ে যাবে, একটু ধৈর্য ধর”। কথাগুলো বলেই রফিক তার পূর্বের অবস্থায় ফিরে গেল। এখন গতি মনে হচ্ছে খানিকটা বেড়ে গেছে। উপায়ন্তর না দেখে রেশমাও নাছোড়বান্দা রফিকের গতির সাথে তাল মিলিয়ে যাচ্ছে।

 

রফিক বা হাতটি উঁচু করে হাত ঘড়ির দিকে তাকাল। আগে থেকেই নির্ধারণ করা সময়টি শেষ হতে আর বেশি বাকি নেই। দুজনের বয়স এখন এমন পর্যায়ে যে অল্পতেই যেন হাঁপিয়ে যায়। আগের মত শক্তি-দৃঢ়টা এখন আর নেই। দুজনের শরীর বেশ ভারি হয়ে গেছে। বেশ মেদ জমেছে শরীরে। চিকিৎসকের পরামর্শে প্রতিদিনের মত ভোরে এ দুজন হাঁটতে বের হয়েছে এক ঘণ্টার জন্য। বাড়তি মেদ ঝরানোর প্রচেষ্টা চলছে। দেহকে তো সুস্থ রাখতে হবে।

৪৬৬জন ২৩৭জন
22 Shares

২৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য