দূর্নীতিবাজ নিপাত যাক

সিকদার সাদ রহমান ২০ জুলাই ২০২০, সোমবার, ০৩:৪৪:৪০অপরাহ্ন কবিতা ১৬ মন্তব্য

 

 

কিশোরীর প্রেমে পড়ে

ইনিয়ে বিনিয়ে কথা বলা যুবক,

রোজ নিয়ম করে গার্লস কলেজের সামনে

দু বেলা সময় করে দাঁড়ায়।

প্রেমিকার এক গাল হাসির মারনাস্ত্রে

মরে  যায় হাজার বার।

আজ সে টি এস সির মোরে দাঁড়িয়ে

বুকের দিকে তাক করা বন্দুক রেখে,

লাজবাব চিৎকার দিয়ে যায়।

দূর্নীতিবাজ নিপাত যাক,

সৎ চিন্তা মুক্তি পাক।

 

সদ্য পাশ করা তরুণ,

এক বুক ভরা স্বপ্ন।

ফাইল বন্দি সনদপত্র আর জীবন বৃত্তান্ত নিয়ে

অফিসে অফিসে কেরানির চাকরি খুঁজে বেড়ায়

তারও একটাই দাবি, দূর্নীতিবাজ নিপাত যাক।

 

স্কুলের ঘন্টা বাজানো পিয়ন

ঘন্টা বাজানো থামিয়ে বলছে,

দূর্নীতিবাজ নিপাত যাক।

 

সিটি কর্পোরেশনের নিয়ম করে

প্রতি ঘন্টায় ঢং ঢং করে বেজে ওঠা ঘড়ির পেন্ডুলাম

স্তব্ধ হয়ে গিয়েছে,

আর শব্দ করবে না, ছুটি নিয়েছে

সেও স্লোগান দিতে চায়

দূর্নীতিবাজ নিপাত যাক।

 

সদ্য ভূমিষ্ট শিশু, কিবা তার জাত, কিইবা পাত?

ক্রন্দন বন্ধ করে দিয়েছে,

মা তার প্রথম ডাক।

সেও প্রথম বলে

দূর্নীতিবাজ নিপাত যাক।

 

গ্রামের বাহাত্তর বছরের রহিম চাচা

অসহায়, বয়সের ভারে ন্যুব্জ।

এক বেলা খায়,

দু বেলা না খেয়ে কাটায়।

দু হাত উপরে তোলে

চিৎকার করে বলে

দূর্নীতিবাজ নিপাত যাক।

 

সময়ের সাথে সময় চলে যায়

কিছু মানুষ হাঁটে তার সাথে।

দূর্নীতিবাজ ঠিক রয়ে যায়

কে দেখবে?

যে ছিলো সে ও হাঁটে সেই পথে।

এখন একজন দূর্নীতিবাজ ও বলে

দূর্নীতিবাজ নিপাত যাক।

১৯৭জন ১২১জন
0 Shares

১৬টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য