দুই শতাংশ ভূমি

সঞ্জয় মালাকার ২৩ নভেম্বর ২০১৯, শনিবার, ০৪:১৪:২১অপরাহ্ন কবিতা ২০ মন্তব্য

দুই শতাংশ ভূমি,

চোক্ষু করে লাল বাবু ক্ষণকাল রহিল মৌনভাবে
বলিলেন শেষে ক্রুর হাসি হেসে, আচ্ছা, সে দেখা যাবে।
ছয় মাসপরে ভিটে মাটি ছেড়ে বাহির হবো পথে,
করিল ডিক্রি, সকল কিছু বিক্রি মিথ্যে দেনার খাতে।
এ-জগতে, হায়, সেই বেশি চায় যার রয়েছে শত শত ভূমি,
বড় বাবু হস্ত করে সমস্ত গরীবের ধন চুরি।
মনে মনে ভাবিলাম মোর ঈশ্বর আল্লাহ রাখিবেনা মোহগর্তে
তাই লিখি দিল সঞ্জয় দুই শতাংশ ভূমি পরিবর্তে।
কাঙ্গালবেশে ঘুরি দেশে দেশে হইয়া সাধুর শিষ্য
কত দেখিলাম মনোহর ধাম, কত দেখিলাম মনোহর দৃশ্য।
নয়ন সাগরে জীবনে নগরে যখন যেখানে ভ্রমি
আমি যেনো ভুলিতে পারি নে সেই দুই শতাংশ ভূমি।
দেশ বিদেশে বাটে এই মতো কাটে বছর দশ বার
এতোদিন শেষে ফিরিবার দেশে কতোই বাসনা হলো।
নমঃনমঃনমঃ মধুর মম জননী বঙ্গভূমি
নদীর তীরে, সিগ্ধ সমীর জীবন জুড়ালে তুমি।
অবারিত মাঠ গগনললাট চুমে চরণধূলি
ছায়াসুনিবিড় শান্তির নীড় ছোট ছোট গ্রামের ঘরে।
পল্লবঘন মন্দিরকানন রাখলে খেলাঘরে,
স্তব্ধ অতুল দিঘি কালোজল নিশীথশীতল স্নেহ।
শুধু দুই শতাংশ ছিল মোর ভুঁই বাঁকি সবই গেছে ঋণে,
বাবা বলিলেন বুঝেছ সঞ্জয় এই দুই শতাংশ ভূমি লইব কিনে।
কহিলাম আমি,তুমি বাবা ভূমির অন্ত নাই।
চেয়ে দেখো বাবা মোর আছে বড়ো-জোর মরিবার মতো ঠাঁই।
শুনি বাবা কহে, বাপু জানো তো হে বাগানখানা করেছি কতশখে।
পেলে দুই শতাংশ পস্তু ও দিঘে সমান হইবে টানা –
এটাও দিতে হবে, বলিলাম তবে বক্ষে জড়াইয়া পাণি,
সজল চক্ষে, করুণ রক্ষে গরীবের ভিটেমাটি গেলো ঋণের দায়ে।
সপ্ত পুরুষ যেথায় মানব সে মাটি সোনান বাড়া
ঋণেন দায়ে বেচিব সে মায়ে এমন লক্ষ্মীছাড়া!
দুই দিন পরে দ্বিতীয় প্রহরে প্রবেশিনু নিজগৃহে
কামারের বাড়ি দক্ষিণে ছাড়ি, দূর্গামন্দির করি বামে,
মায়া হাটখোলা, সঞ্জয় গোলা, মন্দির করি পুর্বে
ঋণদাতা শেষে পঁহুছিনু এসে আমার বাড়ির কাছে !
ধিক ধিক ওরে, শত ধিক ঘুরে, নিলাজ কুলাটে ভূমি,
তুমি যখনি যাহারা তখনি তাহার, এক কি জননী তুমি।
একথা কি মনে হবে তোমার একদিন যবে ছিলে দারিদ্রমাতা,
আঁচল ভরিয়া রাখিতে ধরিয়া ফল ফুল শাক পাতা।
আজ কোন রীতে কারে ভুলাইতে ধরেছ তুমি বিলাসবেশ
পঁচারাঙা পাতা অঞ্চলে গাঁথা, পুষ্পে খচিতে কেশ,
তোমার দুই শতাংশ ভূমি শেষ।

কিছু কথা সংগ্রহিত,,

সঞ্জয় মালাকার //

১৪৮জন ৭জন
6 Shares

২০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য