না লিখতে লিখতে লেখার ক্ষমতাটা বোধহয় হারিয়েই ফেলেছি। তবু কেনো জানি অদৃশ্য একটা টান আজ এখানে আবার নিয়ে আসলো আমাকে। আসতে যখন হবে কিছু একটা নিয়েই তো আসতে হবে। তাই এই ক্ষুদ্র প্রচেষ্টা -

বর্ণের পর বর্ণ , শব্দের পিঠে শব্দ সাজে
পিচ ঢালা পথ যেভাবে মিলে দূর নিলীমায় ।
এথায় সেথায় ছড়ানো ছিটানো সে সবে
নিঃস্তব্দ জনপদ হয় মুখরিত , কলরবে।

সাদার কলংককে আঁকড়ে ধরে বুকে -
অবিরত নৃত্যরত উন্মাদ অর্ধনাঙ্গা ঢুলী,
ঝঁকড়া বাবরী চুল তার তুফান ডাকে।
ঘুমাতুর নেত্র সেথায় ঘুম যায় ভুলি।

মেছো আঁশটে গন্ধে নাক চেপে ধরে সভ্যতা।
কাঁদার হোলিখেলায় মত্ত নগ্ন মানব -
কিংবা দু স্তনের মাঝে ইয়া বড় মৎসকুমারী ।
এ লীলাখেলার মর্ম বুঝবে কেনো ললিতা?

সবুজের বুক চিড়ে লাঙল চলে,জিপিএস দেখে...
একে একে সাবাড় হয় পা থেকে শির...
সবশেষে ক্লান্ত মানব, ফেলে হাপানো নিঃশ্বাস।
চোখ মুদে আসে, কৃষ্ণবলয় হয়ে যায় থির।

ঘুম ভাঙ্গে এক ঘর্মাক্ত দেহের , নেয় বুক ভরা শ্বাস
বেলকনিতে দাঁড়িয়ে করে নিঃস্তব্দ সূর্যস্নান।
নিঃস্তব্দতা ভেদিয়ে আসে কিছু হিন্দী গান...
মৃত্যুপথযাত্রী আবার শ্বাস নেয় -
একটা দীর্ঘশ্বাস ।।।

0 Shares

১০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ