দাবাড়ু এবং সে

খাদিজাতুল কুবরা ২ ডিসেম্বর ২০২১, বৃহস্পতিবার, ০৯:১৪:১৭অপরাহ্ন কবিতা ১০ মন্তব্য

 

ভালোবাসা  তারা হয়ে গেছে,

পাশের বাড়ির লাগোয়া আকাশ পেরুলেই কি তার দেখা মিলবে?

আজন্ম নির্বাসিতার বিসর্জিত প্রেমের কিসসা মুখে মুখে রটে গেছে,

প্রেম এখন দুর্নামগ্রস্ত এক অনু ঘটন!

অপরিনামদর্শী সরলতম মনের পোস্টমর্টেম হয়েছে  রক্ষণশীল নীতির ল্যাবরেটরীতে।

এইসব ঘটনার অণুচক্রিকা তুমি জানো নিশ্চয়ই?

রায় হয়ে গেছে সনাতনী দেওয়ানি আদালতে,

বেশি কিছুনা কেবল চরিত্রহীনের তকমাটা সেঁটে দেওয়া হয়েছে কপালে;

যেখানটায় তুমি পরো রাজটীকা।

সাজা শুনে তার হাসি পায়, অট্টহাসি!

বিজ্ঞ আদালত সংবিধান বোঝে, বোঝেনা শুধু মন!

ওরা জানেনা সে শুধু ভালোবেসে নিজেকে কিছু দিতে চেয়েছে শেষ বেলায় __

চরিত্রহীন কখনো ভালোবাসেনা,শরীর কিংবা খদ্দের খোঁজে।

এখন তার নির্ভার দেহাবয়ব রোদে পোড়ে, বৃষ্টিতে ভিজে,

কিন্তু মন!

অন্ধকার প্রকোষ্ঠে আজীবন সাজাপ্রাপ্ত।

এখানে রাত হয়না দিন ও না, সকাল, দুপুর, বিকেল খোলেনা স্মৃতির দ্বার।

চাঁদ- সূর্য, গ্রহ-তারা একে একে করছে ছেড়ে যাওয়ার পায়তারা,

ভোরের নরম রোদ মুক্তো সদৃশ শিশির কেউ আর তার নয়,

গোলাপ এক রাজকীয় সৌকর্য সম্ভার, ও না হলে ও চলে, কিন্তু  রক্তজবা!

সে-তো তার বাড়ির উঠোনে ফোটে, সে কেন পালায় ছুটে?

তুমি সবই জানতে __

বলো জানতেনা?

তাকে বিচারের মুখোমুখি হতে হবে?

কার কথা বলছি?

সে ও বলে দিতে হবে?

অকপটে ভালোবাসে যে, সেই বোকা মেয়েটা!

কর্পোরেট হিসেবে সে যে বড্ড কাঁচা।

ভালোই চাল চেলেছ বলো, মন্ত্রী এখন তোমার দখলে রাজা ও কোণঠাসা ; কুপোকাত হতে কতক্ষণ!

যে পুতুল খেলা বোঝেনা সে-তো দাবায় হারবেই।

২৬০জন ১৪৭জন
0 Shares

১০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন



লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য




ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ