দশ লাখ

দেবজ্যোতি কাজল ১৩ জানুয়ারী ২০২০, সোমবার, ০৯:৩৪:০৮অপরাহ্ন কবিতা ৭ মন্তব্য

রির্টানে পাশ করে যখন
ভাইভার কার্ড পেলাম
তখন “ চলো দিল্লী যাই ” বলে কলকাতায় গেলাম ।

রাজপুতের বাচ্চারা বসে আছেন-
আমাদের জড়িপ করতে
সেখানে অনেকেই ছিলেন ,
মহাশয় , মহাদয় , মাননীয় , মাননীয়া
এমন কি ইংরাজী শব্দার্থের স্যারও

আমি তাদের সামনে গিয়ে
ওভেশন দিলাম ,
জড়াগ্রস্ত হয়ে আছে মন,
অনুভব করলাম
আমার দগ্ধ মন কোটেশন হয়ে গেছে ,
ভাবলাম
আমার অতিরিক্ত সাধনা কি আজ
ওভ্যারিতে ওভ্যাল হয়ে যাবে !
নটির মত নাট্যমঞ্চেই নাচবে !!
না-কি
পিরীত করে অসতীত্বের সিঁড়ি গুনবে !

হে গড !
তুমি তারচে আমায় মুক্তি দাও ।

এই বলতেই ,
ঈশ্বর দু’হাত বাড়িয়ে মৃত্যু যন্ত্রণা পাঠিয়ে দিলেন ।
সঙ্গে এক বোতল ফিনাইল ,

ঈশ্বর যে অবিনয়ী লম্পট, ইতর
তা আমি অনেক আগেই জেনেছিলাম ,
একাত্তুরের যুদ্ধে তিন লাখ মহিলার শরীরের-
ঈশ্বর ছিলেন দর্শক আর পাকিস্তানীরা ছিলেন খেলোয়ার ।

আমি গুছিয়ে উঠতেই
আধাপাকা ভদ্র গোছের
এক স্যার জিজ্ঞেস করলেন ,
“ এদেশের অর্থ মন্ত্রী কে ?”
আমি গলা চুলকিয়ে উত্তর দিলাম ,
ডিনামাইট;
ডাইন্যাস্টি ।

পড়ুয়া জীবনে তোমার সাবজেক্ট কি ছিল ?
এথনলজি ;
এথিকস্ ।

ভাইবা আমার চাঙ্গা । ভাবতেই ।
বুকের মধ্যে জয়ের ভূড়ভূড়ি চমক দিলো,
অন্য একটা চমক আমাকে জানালো ,

ইকোনোমিক্স নিয়ে আমার
কিছু জানা উচিৎ ছিল
তবেই না-কি
আমার চাকরিটা হতো..।

১৪০জন ১৪২জন
22 Shares

৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য