তুমি আসবে

প্রদীপ চক্রবর্তী ২৩ ফেব্রুয়ারী ২০২১, মঙ্গলবার, ০৮:১০:৫৩অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৭ মন্তব্য

আমাদের আর ঘরে ফেরা হয় না বলে, কেবল বিবাগী পাখির মতো দিকভ্রান্তে উড়তে ইচ্ছে হয়।

কখনো ইচ্ছে হয় নদীর মতো বয়ে চলতে।
কখনো বা ইচ্ছে হয় ফেরিওয়ালার মতো এক পাড়া থেকে আরেক পাড়ায় ঘুরে বেড়াতে।
আসলে ইচ্ছেগুলো আজকাল খামখেয়ালি।

আমাদের শরীর ছুঁয়ে কত রাখালিয়া বিকেল চলে যায়।
আমরা সে বিকেলের রোদ আর গায়ে মাখতে পারিনা।
পারিনা ধূলো উড়িয়ে ঘরে ফিরতে।

দূর্বাঘাস ভেদ করে একে একে ছুটে চলে মহিষের দল। একে একে রাখালিয়া দেয় বাঁশির সুরের শেষ টান।
পাখিরাও সেসময় ঘরে ফেরে।
আমাদের আর ঘর নেই।
কেবল আছে গোধূলির আরক্তিম ছায়া।
কখনো সে ছায়াটুকু অভিমানের চাদরে ঢেকে যায়।

পশ্চিমার আরক্তিম আভা পুরোপুরি ডুবে গেলে
সন্ধ্যা নেমে আসে। হলুদ গাঁদার সাম্রাজ্য জুড়ে তখন বসন্তের উষ্ণ মরসুম।
একে একে সে সাম্রাজ্য থেকে বাতাস ধেয়ে আসলে পুরনো স্মৃতিগুলো চোখের সামনে ভেসে উঠে।

সন্ধ্যায় সে চাঁদের আলো ঘন হলে অবিনাশী সুরে ডেকে যায় ডোবার ধারে ডাহুক। আমরা তখন কবিতা লিখতে গেলে অন্ধকার এসে ভিড় করে।

তুমি গোপনে চলে যাওয়ার পূর্বে আমায় একমুঠো শূন্যতা দিয়ে গিয়েছিল।
সেই থেকে গেরুয়া নদী, লাল পাহাড়, সবুজাভ অরণ্য জুড়ে শূন্যতার মরসুম।

আমি কেবল শূন্যতাটুকু নিয়ে তোমার পথ চেয়ে থাকি।
তুমি আসবে কোন এক গোধূলি মাখা সন্ধ্যায়,
গোষ্ঠে ফেরারি রাখালের বাঁশির সুরের রাগিণী হয়ে।
.

ছবিঃ সংগৃহীত।

২৬০জন ১২২জন
14 Shares

১৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য