একবুক যন্ত্রণা আমার চোখে জল এনে দিতে পারেনা।

তোমাদের দোষ কি?

ভেতরের দহন অর্বাচীন,খালি চোখে দেখা যায়না ;

চাই হৃদয়ের স্বচ্ছ দূরবীন!

একাধিক বার পুড়েছে যে হৃদয়,সে কাঠ কয়লার পুড়বার ভয় কি?

প্রত্যুষে সূর্য পোড়ায়, রাতে দুঃখের তুষে!

অহর্নিশ ভাঙা-গড়া, রূপ-প্রতিরূপের আপোষে পোড়ায় কথার বিষে!

আজকাল বুঝে গেছি, লাভ কিছু নেই অভিশাপ পুষে।

শাপ-শাপান্ত ঈশ্বরের জন্য।

আমিতো এক নগন্য মাুনষ,

আমার সহ্যসীমা বাড়ানোর কৌশল অভিনব যেমন- সাপের খোলস।

দ্যাখো তোমরা, জীবনকে বাজি রাখতে আমার বাঁধেনা,

পিঠকে চাবুকের নিচে সপে দিতে বুক কাঁপেনা।

কেন কি জানো?

আমি জেনে গেছি, তোমরা আমাকে কখনো ভালোবাসোনি!

ভালোবাসাহীন প্রাসাদ আমার চাইনা; চাইনা তোমাদের বিড়াল তপস্যা!

আমাকে দণ্ড দাও, দাও অন্ধকার কুঠুরিতে পাথর চাপা!

আমার কষ্ট দেখে যদি তোমাদের বুকে ভালোবাসা জাগে,

নয়ন মুদিব অনুরাগে।

একগুচ্ছ ড্যাফোডিল ফুল এঁকে দিও এপিটাপে।

২৩৭জন ৩০জন
0 Shares

১৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ