ডেঙ্গু এখন মহামারীতে রূপ নিচ্ছে

ইঞ্জা ২৭ জুলাই ২০১৯, শনিবার, ০৭:৫১:১৫অপরাহ্ন সমসাময়িক ৫৪ মন্তব্য

ঢাকাতে ডেঙ্গু এখন মহামারী রূপে আবির্ভাব হচ্ছে, কয়েকদিনের মধ্যেই একজন নারী ডাক্তার, একজন ঢাকা ভার্সিটির ছাত্র সহ বেশ কয়েকজন মারা গেছে এহেন ডেঙ্গু থেকে।

সোনেলা ব্লগে গতমাসেই আমারই পোস্ট করা “ডেঙ্গু ভয়ংকর” লেখাতে বলেছিলাম ডেঙ্গু তার রূপ বদলেছে, এই মহামারী নিয়ে অবশ্য না না মুনির না না মত, যেমন খোদ আমাদের এক মেয়র মহোদয় বললেন, ডেঙ্গু এখন গুজব, যেখানে খোদ স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলছেন ডেঙ্গু এখন মহামারীতে রূপ নিয়েছে।
সত্যিকারের কথা হলো ডেঙ্গু সত্যিকারের ভাবে ব্যাপক আকার ধারণ করেছে, এ থেকে শিশু থেকে শুরু করে বৃদ্ধ পর্যন্ত আক্রান্ত হচ্ছে।
ডেঙ্গুর প্রধান বাহক হলো এডিস মশা, আবার এডিস মশা কামড়ালেই যে ডেঙ্গু হবে তা নয়, এই মশা যদি আক্রান্ত কোন ব্যাক্তিকে কামড়ায়ে অন্য ব্যাক্তিকে কামড় দেয়, তাহলেই হতে পারে ডেঙ্গু।

ডেঙ্গু আক্রান্তের লক্ষণঃ

ডেঙ্গু হলে কি ভাবে বুঝবেন, সাধারণত ডেঙ্গু হলে জ্বর হবে, গায়ের তাপমাত্রা খুব বেশি হবে, ১০৪°/১০৫° বা আরও বেশি জ্বর হবে, প্রচন্ড মাথা ব্যাথা, গা ব্যাথা হতে পারে, সাথে গায়ে ফুস্কুড়ি উঠবে, চাকা চাকা ফুস্কুড়ি উঠবে লাল হয়ে, নাক, মুখ, মাড়ি দিয়ে রক্ত বেরুবে, মাথা ঘুড়াবে, বমি বমি ভাব হবে।

কখন ডাক্তার দেখাবেনঃ

এখন ডেঙ্গুর যা সিনটম তাতে জ্বর হলে কোন ধরণের ঔষধ দেওয়া যাবেনা, কারণ ডেঙ্গু কোন এন্টিবায়োটিকে ভালো হয়না, আবার কোন জাতীয় এসপিরিন খাওয়া যাবেনা।
বর্তমান ডেঙ্গুর রূপ চিন্তা করে বিশেষজ্ঞ ডাক্তাররা বলছেন, আপনার বা কারো জ্বর হলেই সাথে সাথেই ল্যাব টেস্ট করুন ডেঙ্গু হয়েছে কিনা, যদিও আগে বলা হত পাঁচ দিন পর টেস্ট করার জন্য কিন্তু এখন পাঁচ দিনেই সাধারণ ডেঙ্গুতে মানুষ সুস্থ হয়ে যায় এবং পাঁচ দিন পর ডেঙ্গুর জীবাণু শরীরে আর পাওয়া যাচ্ছেনা, সুতরাং দেরি করা যাবেনা, প্রথম দিনেই টেস্ট করে নিন ডেঙ্গু হয়েছে কিনা এবং সাথে সাথে বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের শরণাপন্ন হোন, তাহলেই উনারা আপনার চিকিৎসা দ্রুত শুরু করবেন।

ডেঙ্গুর চিকিৎসাঃ

ডেঙ্গু হলে প্রচুর পরিমানে ডাব, ফলের জুস খেতে হবে, কারণ ডেঙ্গু রক্তের জলীয় অংশ কমিয়ে দেয় আর এই জন্যই বিশেষজ্ঞরা বলেন প্রচুর পরিমানে ফলের জুস খেতে হবে আর বাকি চিকিৎসা ডাক্তাররাই করবেন।

ডেঙ্গু কেন হয় আর এর থেকে পরিত্রাণের উপায় কিঃ

আগেও বলেছি ডেঙ্গু ছড়ায় এডিস মশার মাধ্যমে, এই মশার উৎপত্তি হয় আবদ্ধ ফ্রেস পানি থেকে, যেমন ধরুনঃ
আমাদের ফুলের টবের পানি যদি মাটি সম্পূর্ণটা শুষে না নেয়, সেই পানিতে এডিস মশা ডিম পারে, এছাড়া আশে পাশে যদি আবদ্ধ জায়গা থাকে, ডাবের খোসাতে, ফেলে দেওয়া টায়ারে, পরিস্কার আবদ্ধ নালা সহ ইত্যাদি জায়গাতে বৃষ্টির পানি আবদ্ধ হয়ে থাকে, সেখানেই হতে পারে এডিস মশার উৎপত্তি।
সুতরাং এডিস মশা থেকে বাঁচতে দ্রুত আশে পাশের এইসব ডাবের খোসা, টায়ার, টিন ক্যান সহ যা কিছুতে ফ্রেস পানি আবদ্ধ হয়ে থাকতে পারে তা দ্রুত পরিস্কারের উদ্যোগ নিন, এর সাথে নিজ বাসার দিকেও খেয়াল করুন, ফুলের টব সহ যেখানে পানি আবদ্ধ হতে পারে সেইসব স্থান পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখুন।
এছাড়া আপনার এলাকাতে সিটি কর্পোরেশন থেকে মশার ঔষধ ছিটাতে এলে তাদেরকে সহায়তা করুন।

রক্ত দানঃ

এই মুহূর্তে ডেঙ্গু আক্রান্তদের প্রচুর পরিমানে রক্তের প্রয়োজন হচ্ছে, আপনি সুস্থ থাকলে আক্রান্তদের রক্ত দিয়ে তাদের জীবন বাঁচান।
খেয়াল রাখবেন, আপনি রক্ত দিলে তাতে আপনার ক্ষতি নেই কারণ এই রক্ত পুরুণ দ্রুত হয়ে যায়, বরঞ্চ আপনি যে রক্ত দেবেন তাতে আরেকজনের জীবন বাঁচবে, সুতরাং রক্ত দিন, জীবন বাঁচান।

কোথায় রক্ত দেবেনঃ

রক্ত দিতে চান, স্থানিয় মেডিকেল হাসপাতালে আপনি রক্ত দিতে পারেন, আবার রক্ত দাতা সংস্থা “সন্ধানিতে” রক্ত দিতে পারেন, এছাড়া ফেইসবুকে অনেকেই রক্তের সন্ধানে পোস্ট দিচ্ছেন, অনুরোধ করছি, প্লিজ সাহায্য করুন।

সমাপ্ত।

 

ডেঙ্গু নিয়ে আমার আগের লেখা পড়তে লিংকে ক্লিক করুনঃ

ডেঙ্গু এখন ভয়ংকর

৪৭৫জন ১১৭জন
118 Shares

৫৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য