ঝোড়ো শ্লোক ( সিরিজ কবিতা )

দেবজ্যোতি কাজল ১৫ জানুয়ারী ২০২০, বুধবার, ১১:১৬:০৩অপরাহ্ন কবিতা ২৫ মন্তব্য

জানলা খুলে দেই
নির্বাক বাতাস অলিগলি ঘুড়ে এসে
অন্ধকার রেখে যায় ঘরে
ছোট চাকার মত চাঁদটা
আমায় হতাশা ঢেলে দেয়
প্রসারিত সারাংশে
আমি একজন মানুষ নই
আমি একজন মানুষ নই
আমি একজন অনুভূতি ;
গণ্ডক বিষ বৃক্ষ ।

জীবনের দৈর্ঘ্য-প্রস্ত
নদীর এপাড়-ওপাড়

আমি তোমায় দেখেছি
নীরব থাকতে
শীতকালীন গাছে
বর্বর শাখায় ,
দেখেছি সেলুয়েট আঙুলে
দখল নিতে
গর্ভবতী চাঁদের কলঙ্কে ।

অনেক কথা শব্দের মধ্যে
মাছ হয়ে খেলে সৌখিন অ্যাকুরিয়ামে ।

চৈত্রধূলা আবির হয়ে উড়ে চলে
ঝড়কে কুড়িয়ে আনতে
বন , মরুভূমি , সমুদ্র চোরাবালি
ভেঙ্গেচূড়ে মনে করিয়ে দেয়
হাজার বৈশাখের মিষ্টি কাণ্ডকীর্তি

দূর্ভিক্ষ জ্যোৎস্না নিথর আল পথে
সমাবেশ আলো-ছায়া , দোলে পেণ্ডুলামে ।

বাতাসের শ্বাস-প্রশ্বাস ,কুমারী বায়ুতে
গল্প শুধিয়ে বলে ,
তুমি বাতাস
আমি শ্বাস ।

বুকহীন অন্ধকার উড়ে গেল
রাত্রি যাপন প্রহরী পেঁচায়
তুমি জেগে আছ ,
আমাকে জাগিয়ে ,
শরৎ আকাশে চিমটি কেটে ।

যত প্রকারের “ তুমি ” আছে

তার সবটা জুড়ে হাজার প্রকার,
তুমি আমার সেই দেহোজ তুমি
যে আমার দেহের সাধ আহ্লাদ ,
কাননবালা কাঁটাওয়ালা ফুল

তুলতে সাহায্য করে ।

আমি কবি হব ব’লে
কখনও কলম কিনি নি ।
পৃষ্ঠার সাদা গন্ধ
আমাকে কবি করে উড়িয়ে দেয়
সদ্যজাত বীর্য্যপাত মেঘ আকাশে ।

আমি আজ কবিতা শ্রুতি ,
ফুল→গন্ধময়  শ্রোতা  খুঁজি
কবিতার গুহায় পালিয়ে থেকে ।

আমাকে কবিতারা একদিন বলেছিলো,
একটা সঙ্গী জুগিয়ে দিবে ,
বাঁকি সময়টা কাটাতে ।

তাই বিনা কারণেই
আজও সংসার করে যাচ্ছি ,
শারীরিক সম্পর্কটাকে
বালিশের নীচে শ্বাস রুর্দ্ধ করে রেখেছি।

থেঁতলে যাওয়া সময়টাকে

বলছি , ছিঃ আমরা মধ্যবিত্ত কবি ।

 

২৭২জন ৯৬জন
17 Shares

২৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য