জীবন

সুপর্ণা ফাল্গুনী ১ নভেম্বর ২০২০, রবিবার, ০১:০০:০৪অপরাহ্ন কবিতা ২৫ মন্তব্য

 

জীবন-তুমি শরতের কাঁশবনে দামাল ছেলে-মেয়ের লুকোচুরি খেলা।
পৌষের সকালে শিশিরের বুকে নিটল-পায়ে পথচলা।
শ্রাবণের বৃষ্টিতে শীতল স্পর্শে দেহে দাও যে দোলা,
আবার ক্ষণিকের ঝড়ে ওলোট-পালট করে দাও যে সাঙ্গ-খেলা।
মাঘের শীতে কম্পিত করো আবাল, বৃদ্ধা, তরুনীর দেহলীলা।
অমাবস্যার আঁধারে প্রদীপ হাতে বধূর অপেক্ষার প্রহর পালা।
পূর্ণিমায় জ্যোৎস্না-স্নাত কিশোরীর অবুঝ-হৃদয়ের দোলা।
তুমি ক্ষুধার্ত পথ-শিশুর একমুঠো ভাতের থালা।
আবার ধনীর আলালের পোষাক বদলের মতোই
নিত্যনতুন গাড়ি-বাড়ি বদলানোর পালা।

কখনো অতৃপ্ত সুখ আবার দুঃখের সীমাহীন জ্বালা।
নদীর বুকে রংধনু রঙ্গে সাজানো তরী-পালতোলা।
কখনো সাগর পানে বহতা নদীর ছুটে চলা-
নিয়ে অসীম কামনার বরণ-ডালা।
কখনো জানালায় ভোরের সিন্গ্ধ আলো সকাল বেলা-
কখনোবা সূর্যের তাপদাহে কৃষাণের ফসল তোলা।
স্বপ্নের বাসর সাজিয়ে ঘুমঘোরে করো ছলাকলা,
বাস্তবতার ধূসর আকাশে ছড়াও বেদনার রাসলীলা।
নবজাতকের বাহুডোরে এসে নৃত্য করো সারাবেলা-
সাঁঝবেলায় মৃত্যুরে দাও বরণ-মালা।

রচনাকাল- ২৯.১০.২০১৪

ছবি-নিজ

২০১জন ২জন
0 Shares

২৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য