বদ্ধঘরের কোণে আষ্টেপৃষ্ঠে খাটের উপর
এলোমেলো চাদরে বসে থাকা তার-
একাকী আনমনে।
স্মৃতিময় আলুথালু আবেগ দিয়ে বানানো নীল ঘুড়িটা
মেঝেতে করছে নাচানাচি;
একবার এদিকে আরেকবার ওদিকে।

কানে বাজে বাতাসের অবিরাম শোঁ শোঁ শব্দ;
মনে করিয়ে দেয়-
ক্ষণিক বিচরণতার মুমূর্ষ আহাজারী।
পলকহীন চোখে শুন্যতার নীল আকাশ,
খোলা জানালার পাশে এসে বসেছে বিরহী কাঁক।

দু’জনায় কথোপকথনে দোদুল্যমান একগুচ্ছ মধুমালতী;
ভালোবাসার নিবিড় আলিঙ্গনে-
ইচ্ছেরা খেলাকরে প্রজাপতির নীল ডানায়।
উন্নাসিকতায় মত্ত মাতাল পথিক,
আজ মোহাচ্ছন্ন বাসি চন্দনের ঘ্রাণে ।

ঐ যে দূরের মাঠে আনমনে হেঁটেবেড়ানো মনোহারিণী;
কি গ্রীষ্ম, কি বর্ষায়…
অনিয়মের বেড়াজালে নিজেকে করেছে আবদ্ধ।
পার্থক্য শুধু ক’খানা মরচেধরা শিক;
আড়চোখে খেলাকরে কত অধরা স্বপ্নের ফানুস।

ছুঁয়ে দেবে কি হাতখানি হে বিরহী?
বড্ড একা লাগে আজ;
ছুটি কাটানো সাম্পানওয়ালাকে দিও নিমন্ত্রণ।
তাকে বোলো- বন্দি আছি আমিও নিয়মহীনতায়,
একটিবার যেন এসে করে কৃতার্থ।

জানালার এপাশে ম্রিয়মাণ তরুণ,
চেয়ে থাকে চাতক পাখির মতন।
হাঁটুর ভাঁজে চোখ বেয়ে গড়িয়ে পড়া নোনা জল-
শুকিয়ে চটচট করে।
হয়তো আসবে, হয়তো আসবেনা…।

অঘুমে অনিদ্রায়, নিঃশ্চুপ নিস্তব্ধতা করে তোলে তন্দ্রাচ্ছন্ন।
অনিশ্চয়তার আবডালে প্রষ্ফুটিত ভোরের আলো;
মনে করিয়ে দেয়- “আজ ঈদ”।
মৃদু লয়ে কানে অবিরাম বেজে চলেছে ঘড়ির কাঁটা- টিক টিক টিক…

২৭৯জন ১১৫জন
22 Shares

২০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য