জাগরণে যায় বিভাবরী

রেহানা বীথি ২৮ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার, ১২:০০:১৭অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ২৫ মন্তব্য

জাগরণে যায় বিভাবরী
———————————
খুব যখন ছোট আমি, বাড়িতে একটা ক্যাসেট প্লেয়ার ছিলো। ছিলো কিছু ক্যাসেট, যাতে ছিলো বিখ্যাত সব শিল্পীদের গান। মান্না দে, মোঃ রফি, তালাত মাহমুদ, হেমন্ত মুখোপাধ্যায়, শচিন দেব বর্মণসহ অন্যান্যদের। আর ছিলো রবীন্দ্রসংগীত । সাগর সেন, সুচিত্রা মিত্র, কণিকা বন্দোপাধ্যায়। অন্যান্য গানের চেয়ে রবীন্দ্রসংগীতই বেশি বাজানো হতো। তাই গান বলতে মূলতঃ রবীন্দ্রসংগীতকেই বুঝতাম তখন থেকেই। খেলাধূলা করছি, স্কুল করছি, করছি একটু আধটু লেখাপড়াও। আর শুনছি ধীরে ধীরে বেজে যাওয়া রবীন্দ্রনাথের গান। খুব যে মনোযোগ দিয়ে শুনতাম তখন তা নয়, তবে ভালো লাগতো। কেন ভালো লাগতো, সেই ছোট্ট আমি বুঝতাম কি তা? না। তবে কেন জানি না, কেমন যেন একটা মায়া মায়া ভাব, খুব মৃদু… খুব শান্ত….. খুব কোমল একটা অনুভূতি হতো।

তারপর যত দিন গেছে, বড় হয়েছি, অনেককিছু দেখেছি, জেনেছি। কিন্তু আমার ভালোলাগাটা ওই জায়গাতেই থেকে গেছে। আমি রবীন্দ্রসংগীত থেকে বের করে এনে অন্যকোথাও বসাতে পারিনি আমার ভালোলাগাটাকে। সেই খুব মৃদু, খুব শান্ত, খুব কোমল অনুভূতিটা ধীরে ধীরে রূপ নিয়েছে এমন একটা ভালোলাগায়, যেটা শুধু অনুভব করা যায় চোখ বুঁজে। চোখ বুঁজে শুনতে শুনতে কখন যে চোখের কোণ বেয়ে গড়িয়ে পড়ে অশ্রুধারা, বুঝতেই পারি না! এই অশ্রু, এ কী শূন্যতার অনুভব, নাকি আনন্দের, নাকি বেদনার, নাকি কোনো এক অলৌকিক প্রেমের! আমি জানি না। আমার কাছে সব মিলেমিশে একাকার হয়ে যায়! কেমন করে জানবো, কেমন করে বলবো, কেমন করে বোঝাবো?

“দেখাতে পারিনে কেন প্রাণ
খুলে গো তারে……..”

কিংবা,
ক্ষমা করো মোরে, সখী
সুধায়ও না আর…..

কিংবা,
“ওরা সুখের লাগি চাহে প্রেম
প্রেম মেলে না
শুধু সুখ চলে যায়।
এমনই মায়ার ছলনায়……
এগুলো কি শুধুই সংগীত? আমার হৃদয়ের অজানা অলিগলিতে যে কথাগুলো গোপনে ঘুরে বেড়ায়, সেগুলো নয় কী? যা আমি প্রকাশ করতে পারি না, যে অনুভূতির প্রকাশ আমার পক্ষে কোনোভাবেই করা সম্ভব নয়, সেগুলোই তো পাই ওই সংগীতে! সবকিছু ছাপিয়ে যে সূক্ষ্ম বোধ অনুরণন তোলে হৃদয়তন্ত্রীতে সেসবই রবীন্দ্রনাথ যত্ন করে লিখে গেছেন, দিয়েছেন সুর জাদুময়। আর সেই জাদুতে মোহাবিষ্ট করে গেছেন বিশ্ববাসীকে, সেখানে আমি তো নগণ্য ভীষণ! আবিষ্ট হবো….. হতেই থাকবো, নিশিদিন। নিশিদিনের এই আবেশ কখনও কখনও নতুন মনে হয়, মনে হয়….পেয়েছে নতুন মাত্রা, নতুন পথ। যেমন আজ ভোরবেলায়….. ঠিক যেন বিভাবরী জাগরণের সমস্ত ক্লান্তি মুছে দিয়ে ভোরের স্নিগ্ধ হাওয়ার পরশ বুলিয়ে দিলো। রবীন্দ্রনাথের কোনো গান বাঁশির সুরে সুরে বাজলো কানে, আমি আবারও ভালোলাগায় আবিষ্ট হলাম নতুন করে….. আবারও! কেমন করে বসাই বলো, আমার এ ভালোলাগা, অন্যকোথাও…. অন্য কোনোখানে?

১২৮জন ১৭জন
7 Shares

২৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য