জয় হোক মানবতার

সুপর্ণা ফাল্গুনী ১৪ এপ্রিল ২০২০, মঙ্গলবার, ০৮:৪১:২৫অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩৩ মন্তব্য

আজ বাংলা নববর্ষের প্রথম দিন । ১৪২৬ সাল বিদায় নিয়েছে, এসেছে ১৪২৭ সাল। এবারের নববর্ষটা এসেছে বাঙালির দ্বারে অন্যরকম হয়ে। প্রতিবছর যে আনন্দ-উল্লাস , জাঁকজমক নিয়ে নববর্ষের আগমন ঘটে এবার তার ঠিক উল্টোটা ঘটলো। নেই নতুন ফ্যাশন, নতুন সাজসজ্জা, পান্তা -ইলিশের অযাচিত পসরা, মঙ্গল শোভাযাত্রা। যে পান্তা- ইলিশ তথাকথিত ফ্যাশনে পরিণত হয়েছে আজকের নববর্ষে সেটা কিন্তু কয়েক বছর আগেও আমরা ভাবতে পারিনি বা চোখে দেখিনি। অবশ্য আজকাল সবকিছুতেই ফ্যাশন নিয়ে এসেছে কিছু ফ্যাশন হাউস। আমি মনে করি তাদের বৈচিত্র্যময় উদ্যোগ, দেশীয় পোশাককে দেশের সবার কাছে সমাদৃত করার এই প্রতিযোগিতার ফল হচ্ছে এই পান্তা-ইলিশ, জমজমাট পোশাক শিল্প। এই নববর্ষ কে টার্গেট করে এদেশের প্রান্তিক পর্যায়ের ব্যবসায়ীরা পর্যন্ত অত্যধিক মুনাফা লাভের প্রতিযোগিতায় নামে। যার দরুন ঈদের মতো বাংলা নববর্ষ হয়ে উঠেছে ব্যবসায়ীদের আরেকটি নতুন মুনাফা বানিজ্য। তাইতো গত কয়েক বছর ইলিশের দাম এই বাংলা নববর্ষ উপলক্ষ্যে কয়েক গুণ বেড়ে যায়। আর এই তথাকথিত ফ্যাশনের যাঁতাকলে পড়ে নিম্ন আয়ের বা মধ্যবিত্তদের মধ্যে চলে আক্ষেপের হাহাকার।                                                                                                         

দেশে এখন ঘরে ঘরে দু’চারজন আয় করা লোক আছে, তার উপর বর্তমান সরকার সরকারি চাকুরীজীবিদের বেতন বাড়িয়ে দিয়ে, বৈশাখী ভাতা চালু করে আগুনে ঘি ঢালার মতোই সবকিছু হাতের নাগালের বাইরে নিয়ে গেছে, চাহিদার পরিমাণটা উচ্চাভিলাসী পর্যায়ে নিয়ে গেছে। তাই সাধারণ মানুষের জন্য সবকিছুতেই নাভিশ্বাস উঠে গেছে। যেহেতু পান্তা-ইলিশ, বৈশাখী পোশাক এসব এখন ট্রেন্ড তাই নিম্নবিত্ত মানুষেরা ও এখন এসবের জন্য আক্ষেপ করে। তো এইসব ফ্যাশনকে পূর্ণতা দিতে গিয়ে, সংস্কৃতির ধারক হতে গিয়ে কমবেশি সবার পকেটই ফাঁকা হয়ে যায় । এবার করোনা আমাদের এসব অপসংস্কৃতি রক্ষা করা থেকে মুক্তি দিয়েছে। ব্যবসায়ীরা তাদের কাঙ্ক্ষিত মুনাফা থেকে বঞ্চিত হয়েছে। আজ সবাই গৃহবন্দী তাই ফ্যাশন দেখাতে ব্যর্থ হয়েছে। তাই আমার বক্তব্য হলো- যেহেতু এসব তথাকথিত ফ্যাশন এবার করা যায়নি সেক্ষেত্রে হাজার হাজার টাকা কমবেশী সবারই বেঁচে গেছে তাহলে আমরা কি পারি না সেই টাকাগুলো দিয়ে গরীবের মুখে অন্ন তুলে দিতে, তাদের পাশে দাঁড়াতে ? সামনে আসছে রোজা, ঈদ – এইসময় চাইলেই আমরা এতো টুকু মানবতা দেখাতে পারি। আমরা এখন কঠিন সময় পার করছি, সরকারের একার পক্ষে বা কিছু বিত্তশালীদের দিয়ে এই সংকট কাটানো সম্ভব হবে না। তার উপর সরকারের দেয়া ত্রাণ চুরির ঘটনায় এটাই প্রমাণিত হয় এসব গরীবরা কতটা কষ্টে দিনাতিপাত করছে খেয়ে না-খেয়ে। এবারের বাংলা নববর্ষ হোক মানবতার, জয় হোক বাঙালির প্রাণের উৎসবের। শুভ নববর্ষ ১৪২৭।

৪০৭জন ২২৩জন
18 Shares

৩৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য