জম্ম দিন

মনির হোসেন মমি ৩১ অক্টোবর ২০১৩, বৃহস্পতিবার, ০৬:৩৫:৪০অপরাহ্ন বিবিধ ১০ মন্তব্য

জম্ম,মৃত্যু,বিয়ে এই তিনটি বিষয় মানব জীবনে অপরিহার্য্য অংশ।একটি মানব সন্তান জম্মের জন্য এ দেশে অনেক রমণীকে হতে হচ্ছে বিধবা কিংবা করতে হচ্ছে সতীনের সংসার।সন্তান বিহীন বিবাহিত জীবন মূল্যহীন।আটখুড়া কথা শুনতে হয় অনুধাবন করতে হয় সারাটা জীবন।সেটা যে কতটা কষ্টের তা কেবল যারটা সেই বুঝে।বাস্তবতার নিরীখে এমন ঘটনা আমার জীবনেও ছিল।আল্লাহ দীর্ঘ ১১বছর পর একটি পুত্র সন্তানের মূখ দেখান ।আমার জম্ম কবে হয়েছিল সেই হিসাব মা-চাচীরাও এখন সঠিক ভাবে বলতে পারবেনা।কারন এ দেশে তখন জম্মের কোন রেজিষ্টার ছিল না তাই জম্ম দিনটাও পালনে তেমন কোন আগ্রহ আমার নেই।স্কুলের তারিখই এখন আমার জম্মদিন।আমার মত এমন সংখ্যা এদেশে লাখে লাখে।অথচ সিঙ্গাপুর দেখেছি প্রতিটা শিশু জম্ম নেয় হাসপাতালে।তাই স্বাভাবিক কারনে তাদের জম্ম তারিখটা রেজিষ্টার হয়ে যায়।সেখানে শিশু জম্মের পর হতে সাবালক হওয়া পর্যন্ত সকল দায়-দায়ীত্ত্ব থাকে সে দেশের সরকারের এমনকি  জীবন সঙ্গীকে হাসপাতাল থেকে বেছে নেয়।প্রাপ্তবয়স্ক হবার পর যদি কোন কারনে দুজনের মাঝে অমিল হয় তবে মেয়েরা হয়ে যায় বেশ্যা আর ছেলেরা হয় ভবঘুড়ে।এ সম্পর্কে বিস্তারিত আমার “অতৃপ্ত জীবন…প্রবাসী”তে লিখব।মূল কথায় ফেরা যাক।

আমাদের অস্হিত্ত্ব বাংলার মাটি, দেশ আমাদের মা  সেই জম্মমাতার জম্মভূমির জম্ম ১৯৭১,১৬ ডিসেম্ভর।বাংলাদেশ নামক পৃথিবীর মানচিত্রে স্হান দিতে বাংলার ৩০ লক্ষ প্রান আর পাক-বাহিনীর অসহ্য অত্যাচার সইতে হয়েছিল।আর এ অসম্ভবকে সম্ভব করেছিল বাঙ্গালীর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান।এ কথা আমি কেনো এদেশের প্রত্যক নাগরিকেরই মানা তার নৈতিক দায়ীত্ত্ব।শ্রদ্ধা আসবে অন্তর থেকেই।যারা এ দেশে রাজনিতী করেন জামাত সহ তাদের এক বাক্যে স্বীকার করতে হবে বঙ্গবদ্ধু এ দেশের জাতির পিতা নতুবা তারা তাদের বিবেকের সাথে প্রতারনা করার শামীল।প্রধান বিরোধীদল বি,এন,পি বর্তমানে ছায়া সরকার তাদের আপোষহীন নেত্রী প্রকাশ্যে রাজনৈতিক কৌশলের কারনে স্বীকার না করলেও তার অন্তর মিথ্যে বলবেনা।এমন অনেক নেতা আছেন স্বীকার করতে বাধ্য বঙ্গবদ্ধুর জন্য আজ তারা বাংলার মাটিতে বুক ফুলিয়ে স্বাধীনভাবে রাজনিতী করতে পারছেন।সেই মহান মানুষটির স-পরিবারে হত্যার দিনটিকে নিয়ে উপহাস করা কারো উচিত নয়।আমাদের শ্রদ্ধেয় আপোষহীন নেত্রী বেগম খালেদা জিয়া।দুইবারের সাবেক প্রধানমন্ত্রী সেই দিন তার জম্ম দিন পালন করেন।উৎসবের আড্ডা জমান।অথচ শ্রদ্ধয়ে নেত্রী নিজেও জানেন তার এ উৎসব নিছক রাজনিতী তাহলে সে কেনো এমন এক জাতির শোকের  দিনে ভূয়া জম্ম দিনের নাম করে উৎসব করেন এতে সে রাজনিতীর ফায়দার বদলে কেবল আমজনতার ঘৃনাকেই আহবান করেন।আমরা তরুনরা তার কাজ থেকে কি শিখব?একেক স্হানে ভিন্ন ভিন্ন জম্মের তারিখ।শহীদ জিয়া উর রহমান বেচে থাকলে হয়তো বেগম খালেদা জিয়ার অন্ততঃ এ ঘৃণ্য কাজটি করতে দিতেন না।আমরা তাহার সূভ বুদ্ধি হউক এই কামনাই করি।

Copy from THE 3rd WORLD VIEW-REZWAN BLOG.

The base of this confusion in everybody’s mind is that because:

  • According to the      education board her date of Birth is 5th of September 1946
  • When she first      took oath as a prime minister her date of birth was 19th of August 1947
  • According to her      marriage certificate with Ziaur Rahman the date of birth is 9th of August      1944
  • According to her      press secretary later she is claiming her date of birth as 15th of August      1946

Her party BNP dismissed the allegations that she has deliberately chosen 15th of August as her birthday to undermine Sheikh Mujibur Rahman’s death.

 

“The government is doing whatever it wishes by the power of its majority.”

“Now, they think nobody can have a birthday on August 15; that no one was born on this day. Such autocracy is not acceptable.”

৩২০জন ৩২২জন
0 Shares

১০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য