ছ্যাঁকা খাওয়া বসন্ত-দিন

সাবিনা ইয়াসমিন ৫ মার্চ ২০২০, বৃহস্পতিবার, ০৫:০০:২৯অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ৩৪ মন্তব্য

আমার আজকের দিনটা ছ্যাঁকা খাওয়ার দিন। সকালে তাড়াহুড়ো করে নাস্তা বানাতে গেলাম, গরম তাওয়ার ছ্যাঁকা খেলাম 🙁 🙁

মেয়েকে নিয়ে স্কুলে গেলাম। স্কুলের গেটের পাশেই এক চায়ের দোকান। মেয়েকে ভিতরে পাঠিয়ে অন্যান্য অভিভাবিকাদের সাথে কথা বলছি, শুনছি। কথার কোনো নির্দিষ্ট বিষয় নেই। কেউ কেউ হাতে গরম ধোঁয়া উঠা চা নিয়ে বসেছেন। যেহেতু চায়ের দোকান স্কুলের পাশেই, তাই স্কুলের ওয়েটিং রুমে সবাই এই চা আনিয়ে পান করতে পারেন। হঠাৎ করে গায়ে এসে পড়লো গরম চায়ের ছিটা! একজন বেশি হাসতে গিয়ে হাত থেকে চা ফেলে দিয়েছেন, আর পড়েছে আমার গায়েই 🙁 🙁

দুপুরের রান্না করতে বসেছি। প্রায়দিনই এসময় মনে হয় আমার অন্তত পক্ষে এক ডজন হাত থাকলে ভালো হতো। সব্জি কাটছি, মাছ ভাজছি আবার মুখটাও চালু রাখতে হচ্ছে। ওমনি খেলাম তেলের ছিঁটা 🙁 🙁

কাজ শেষ, শাওয়ার নিয়ে বাকি কাজ সেরে মোবাইলের ম্যাসেজ চেক করছিলাম। একজন আমার উপর রাগ করে খুব কড়া কড়া কথা লিখেছে। আবার রিপ্লাই দেয়ার পথেও মস্ত তালা ঝুলিয়েছে। বড় একটা কসম দিয়ে ছোট করে লিখেছে আর যেন না লিখি। খেলাম এখানে নিরুত্তাপ ছ্যাঁকা 🙁 🙁

অনেকক্ষণ ধরে কয়েকটা গান শোনার চেষ্টা করেছি। তার আগে একজনকে জিজ্ঞেস করেছি ছ্যাঁকা খাওয়ার পর কি রকম গান শুনলে কাজ হয়, মানে মনটা ছ্যাঁকার ব্যাথা ভুলতে হেল্প করবে। সে মাত্র দুটো গান শোনার পরামর্শ দিলো।

” চলে যায় যদি কেউ বাঁধন ছিড়ে কাঁদিস কেন মন ” এই টুকু শোনার পর চোখ জ্বলতে জ্বলতে ফেঁটে যাওয়ার যোগাড়। এত পানি চোখে থাকে, না কাঁদলে জানতেই পারতাম না! এটা কোনো গান হলো? মনতো ঠিক হলোই না, আরও কষ্ট বাড়লো। এটাকে বলে ইমোশনাল ছ্যাঁকা 🙁 🙁

পোঁড়া জায়গাটা জ্বলছে। বাসায় আগুনে পোঁড়া মলমটা শেষ হয়ে গেছে। ওটা বেশিরভাগ সময়ে আমি ব্যবহার করি। এলাকার একমাত্র ফার্মেসিটা বন্ধ। দোকানদার সন্ধ্যার আগে দোকান না খোলার ব্যাপারে দৃঢ় প্রতিজ্ঞা করেছেন। হয়তো এটাকেই বলে কর্পোরেট ছ্যাঁকা 🙁 🙁

প্রিয় পাঠকগণ, দয়া করে আজ ফাগুনের এই দিনে এতো ছ্যাঁকা খেয়ে নিজেকে ক্যামনে সামাল দিচ্ছি কেউ জিজ্ঞেস করবেন না প্লিজ। আমি রোজা রেখেছি। সবাই মিলে দোয়া করুন ইফতারিতে যেন কোনো ছ্যাঁকা আমার ভাগ্যে না জোটে 🙁 🙁

★ ছবি নেট থেকে 🙁 🙁

৩৭৭জন ৪জন
96 Shares

৩৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য