হযবরল

সুরাইয়া পারভীন ৩ এপ্রিল ২০২০, শুক্রবার, ০৬:৫২:২০অপরাহ্ন গল্প ২৮ মন্তব্য

অনি হঠাৎ খেয়াল করলো এতোক্ষণ সে একাই কথা বলছে। রূপা একটাও কথা বলেনি।রূপার নিস্তব্ধ নিরবতা ভেঙ্গে দিয়ে অনি বলে উঠলো

-কী রে রূপা, এমন নিশ্চুপ কেন?
-অ্যাঁ
-হতচকিয়ে গেলে মনে হলো!
অনির এমন প্রশ্নবানে সত্যিই হতচকিত হয়ে উঠলো রূপা। য়ে়়়়
-না,কিছু না।
-কিছু না তো চুপ করে আছো কেন? আমি শুধু একাই বকবক করছি।
রূপা ভাবলো যাক এতোক্ষণে অন্তত এটা বুঝতে পেরেছে যে সে বকবক করছে।
-আমি শুনছি। আপনি বলুন
-শুধু শুনলেই হবে? কিছু বলো
-আপনি তো বলছেনই। আর তাছাড়া দু’জনেই যদি বক্তা হবো তবে শ্রোতা হবে কে?

রূপার কন্ঠস্বর কেমন যেনো! মিহি কিন্তু প্রচণ্ড কর্কশ। অনি হেসে উঠলো

-হা হা হা…। এটা কিন্তু বেশ বললে।

দিন রাত্রির সন্ধিক্ষণে নিয়ন বাতির আলো পড়লে অদ্ভুত এক মায়াবী মনোরম পরিবেশ সৃষ্টি হয়। মধ্যরাতে নভস্তলে উদ্ভাসিত হিমাংশুর রুপোলি আভা তমসাচ্ছন্ন ধরিত্রীর বুকে পড়লে যেমন হয়। একপাশে আলো অন্যপাশে ছায়া। আবরণহীন অন্তরীক্ষের নিচে চমৎকার এক আবছায়া মুহূর্ত শিহরণ জাগায়, ছুঁয়ে যায় রূপার তনু মন। আগে হলে এই মুহূর্তটা বেশ উপভোগ করতো রূপা ।

আজও ঠিক সেই একই পরিবেশ, একই মুহূর্ত। কিন্তু আজ এই মুহূর্ত উপভোগ্য নয়, কিছুতেই উপভোগ করতে পারছে না রূপা বরং প্রচণ্ড বিরক্তবোধ করছে। অনির সঙ্গ নাকি তার বকবকানি কোনটাতে এতো বিরক্ত লাগছে রূপার? হয়তো দুটোই! এমন এক বিরক্তিকর বিমর্ষ সন্ধ্যা যে আসতে পারে রূপার জীবনে তা রূপা কস্মিনকালেও ভাবেনি। রূপা ভাবেনি বলে যে এমন ঘটনা ঘটবে তা তো নয়। মানুষের জীবনে ঘটনার অন্ত নেই। কার জীবনে কখন যে কি ঘটে কে বলতে পারে?

৩৪৫জন ১৬০জন
0 Shares

২৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য