প্রথম আলো ব্লগে “ছবি কন্যা” খেতাব পাওয়া জনপ্রিয় ব্লগার ছবি আপু। যদিও তিনি “এই মেঘ এই রোদ্দুর” নিক’টা নিয়ে বিভিন্ন ব্লগে ও ফেসবুকে লেখা-লেখি করেন। লেখা-লেখির সাথে সমান তালে আঁকা-আঁকিতেও পারদর্শী! এম.এস পেইন্টের যেখানে আমি ভালো মতো একটা সরল রেখাও টানতে পারিনা সেখানে তিনি দিব্যি এঁকে ফেলেন নিজের পোর্ট্রেটসহ হরেক রকমের মনকাড়া ছবি। সত্যি অবিশ্বাস্য ব্যপার!

তার আঁকা-আঁকি দেখে এতোটাই ঈর্ষান্বিত হই যে মনে মনে স্থির করি আমিও আঁকবো। এম.এস পেইন্ট ওপেন করলাম, কিন্তু এ্যা কি মাউস আমার কথা শুনেনা! এদিকে টানলে ওদিকে যায়, বিন্দু আঁকতে চাইলে বৃত্ত হয়! কোন ভাবেই কোন কিছু আঁকা ত দূরের কথা একটা শেপও তৈরী করতে পারলাম না। এ যেন হাঁটা-চলাতে অক্ষম ব্যক্তির পাহাড়ে উঠার মতোই কষ্ট সাধ্য ব্যপার!!

অতঃপর মনে মনে খুঁজতে লাগলাম এমন কোন সফটওয়্যার, যে আমার মনের ভাষা কিছুটা হলেও বুঝতে পারবে। অনেকেই বলে থাকেন “ভালো ভাবে খুজলে নাকি ঈশ্বরকেও হাতের নাগালে পাওয়া যায়।” আর এ ত একটা সফটওয়্যার! খোঁজা খুজির এক পর্যায়ে পেয়ে গেলাম “ফ্লেম পেইন্টার” নামের একটা সফটওয়্যার। বাকিটুকু কথায় নয় কাজেই প্রমাণ হোক। তবে কাজের আগে একটা কথা বলা বিশেষ প্রয়োজন যে এই সফটওয়্যারটা আমার মতো অদক্ষদের জন্য, প্রফেশনালরা সফটওয়্যারের কাজ কারবার দেখে নাক সিঁটকাতে পারে। হয়তো বলবে ফালতু একটা জিনিষ! তাতে কি। আপনি যদি এতে বিনোদিত হতে পারেন, আলতু ফালতু আঁকি-ঝুকি করে যদি মনে আনন্দ পান তাহলে এটাই হবে বড় কথা।

তাহলে শুরু হয়ে যাক। আমি কিছু আঁকা-আঁকি করেছি সেই জঞ্জাল গুলো আগে দেখাই, তারপর আপনিও শুরু করুন মনের আনন্দে… এবসট্রাক্টলি কিছু ছবি এঁকে ফেলুন চোখ বন্ধ করে, আর আকার পর নিজেই আবিষ্কার করুন ছবিতে আপনি কি ফুটিয়ে তুলেছেন। চাইলে আপনার আঁকা ছবিটা কোন একজন বিশেষজ্ঞকে দেখিয়ে মজাও লুটতে পারেন, কারণ মাত্র তিন সেকেন্ডে আকাঁ আপনার ছবিটার এক্সপ্লেনেশন দিতে বেচারার তিন ঘন্টা বা তিন দিনও লেগে যেতে পারে… হা হা হা।

কি এঁকেছি জানিনা, তবে নিজের নাম লিখতে পেরেছি এটাই বড় কথা!
কি এঁকেছি জানিনা, তবে নিজের নাম লিখতে পেরেছি এটাই বড় কথা!
মাউস নিয়ে উপর নীচে কিছুক্ষণ টানা টানি করলাম অতঃপর দেখি কিছু একটা দেখা যাচ্ছে... :)
মাউস নিয়ে উপর নীচে কিছুক্ষণ টানা টানি করলাম অতঃপর দেখি কিছু একটা দেখা যাচ্ছে… 🙂
চোখ বন্ধ করে এদিক ওদিক মাউস ঘুরালাম, চোখ খোলার পর দেখি এটা হয়ে গেছে!
এটাও কিন্তু চোখ বন্ধ করেই এঁকেছি!
এটাও কিন্তু চোখ বন্ধ করেই এঁকেছি!
নিজের নামটা খুঁজে পাচ্ছি! এটাই বা মন্দ কি?
রঙের খেলা!!
ভূউউউউত!! বাপরে!!
ভূউউউউত!! বাপরে!!
কিছু একটা ত হবেই, না হলে নাই...
কিছু একটা ত হবেই, না হলে নাই…
পাশা পাশি দুজন!! কে বা কারা, কে জানে!! জানারই বা কি দরকার?
পাশা পাশি দুজন!! কে বা কারা, কে জানে!! জানারই বা কি দরকার?

মজার এই সফটওয়্যারটা ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুন

জবরুল আলম সুমন
সিলেট।
৪ঠা জানুয়ারী, ২০১৩ খৃষ্টাব্দ।

বিঃ দ্রঃ ছবি আঁকা সহজ হলেও ব্লগে ছবি পোষ্ট করা অত সহজ নয়! এই ছবি ব্লগ পোষ্ট করতে গিয়ে প্রচন্ড শীতের মধ্যেও রীতিমত ঘামতে হলো আমাকে… 😛

১১৮জন ১১৮জন
0 Shares

৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য