চিঠি (প্রতিযোগিতা)

প্রিন্স হেক্টর ২৩ মার্চ ২০১৭, বৃহস্পতিবার, ১২:৫৬:১৬পূর্বাহ্ন বিবিধ ১৭ মন্তব্য

চিঠিঃ ০১

প্রিয়  বারেক স্যার,

আস সালামু ওয়ালাইকুম। কেমন আছেন? জানি না আমাকে মনে আছে কি না, ২০০৬ সালে যখন ক্লাস এইটে ছিলাম, আপনি আমাদের ক্লাস টিচার ছিলেন।  আমি কিন্তু আপনাকে ভুলি নি। তাই আজ আপনাকে চিঠি লিখছি।  স্যার আপনার হয়তো মনে আছে ক্লাসে আপনি আমাকে শুটকা বলে যাকতেন। তখন অবশ্য একটু চিকন গড়নের ছিলাম, তবে এখন আর আগের মত নাই। সেই দিন কি আর আছে? দিন বদলাইছে না?
আমার অবশ্য মনে হয় আপনি আমাকে ভুলেন নাই, স্মৃতির পাতা থেকে আমি হয়তো ঝাপসা হয়ে গেছি, তবে মুছে যাইনি নিশ্চয়ই। তাছাড়া আমাকে আপনি যে পরিমান শাস্তি দিতেন, ভুলবেন কিভাবে? আমি ছিলাম আপনার ক্লাসের “বুধো”, যে যাই করুক উদোর পিন্ডি বুধোর ঘাড়ে নীতি মেনে শস্তি সব সময় আমার উপরেই আসতো। আপনার কি মনে আছে একবার আপনার সিগারেটের প্যাকেট থেকে দুই শলাকা গোল্ডলিফ চুরির দায়ে আমাকে কান ধরে করিডোরে এক ঘন্টা দাড় করিয়ে রাখছিলেন? স্যার সেদিন সিগারেট চুরি করছিলো অমিত (রোল নংঃ ০৬), কিন্তু আপনি সাক্ষী প্রমানের তোয়াক্কা না করে স্বৈরাচারীর মত আমাকে শাস্তি দিলেন, কারন আমি ছিলাম আপনার ক্লাসের দাগী আসামী!

যাই হোক, স্যার ক্লাস এইটে আপনি আমাদের একটা ভাব-সম্প্রসারন পড়ানোর সময় বলেছিলেন, “মানুষ বাচে ভালোবাসায়, আর অমানুষরা  হিংসা-বিদ্বেষে”। আপনার নিশ্চয়ই এটাও মনে আছে স্কুলের শেষ দিন আমার মাথায় হাত রেখে বলেছিলেন, “মানুষের মত মানুষ হও!” স্যার, অবশেষে মানুষ হতে চাচ্ছি, মনে একটু একটু ভালোবাসা জন্মেছে।

স্যার মেয়েটার নাম সিনথিয়া, আপনারই মেয়ে। আমার আশা আপনি অমানুষের মত হিংসা-বিদ্বেষের পথ বেছে না নিয়ে, আমাকে মানুষের মত মানুষ হবার সুযোগ দিয়ে বাধিত করবেন।

বিনীত–

“শুটকা”

রোল নং- ০১,  ৮ম শ্রেনী, ২০০৬

 

সংযুক্তিঃ আপনার মেয়েকে লেখা একটা প্রেমপত্র। পেপারবন্ড কাগজে যত্ন করে লিখেছি, তাই দয়া করে তার কাছে পৌছে দিয়েন।
বিঃদ্রঃ স্যার চিঠিটা ছিড়ে বা পুড়িয়ে নষ্ট করার, কিংবা পড়ার চেষ্টা করিয়েন না। আমার মনে আছে একবার গার্লস স্কুলের নন্দিনী ম্যাডামকে লেখা আপনার লুতুপুতু চিঠি চুরি করেছিলাম, আপনি আমাকে সেদিন দুটি চপেটাঘাত প্রদান করে গুড ম্যানার- ব্যাড ম্যানার সম্পর্কে দীর্ঘ বক্তৃতা প্রদান করেছিলেন। তাই আপনার নিকট থেকে গুড ম্যানার আশা করতেই পারি!

 

চিঠিঃ ০২

 

অতিপ্রিয় সিনথিয়া,

তোমার ছবি ফেসবুকে দেখলাম, এবং বুঝতে পারলাম ধীরে ধীরে তোমার রুপ-যৌবন আপডেট হচ্ছে। ইটস অফিসিয়ালি কনফার্ম, আমি তোমার উপর ক্রাশ খাইছি। এখন তুমি ডিসাইড করো ক্রাশ থেকে প্রেমিকা হবা নাকি আমাকে দেবদাস বানাবা!

তোমার বিবেচনার জন্য আমার সিভি পাঠাইলাম।

 

ইতি

তোমার সম্ভাব্য হবু জানু, সোনা, বাবুতাহ… -{@

সিভি

নামঃ প্রিন্স হেক্টর

গায়ের রংঃ দুধে গোবর মেশালে যেমন হালকা বাদামী বর্ণের হয়..

উচ্চতাঃ সাড়ে তিন হাত

শখঃ ক্রিকেট, মিউজিক, মুভি

পুলিশ রেকর্ডঃ ফকফকা সাদা

প্রিয় অভিনয় শিল্পীঃ হিরো আলম, নাজনীন আক্তার হ্যাপী

প্রিয় সংগীতশিল্পীঃ সাবরিনা ন্যান্সি, শামীমা আলম চিনু

প্রিয় ক্রিকেটারঃ শাহাদাত হোসেন, ফরহাদ রেজা

প্রিয় ফুটবলারঃ মারিও বালোতেল্লি

রাজনৈতিক আদর্শঃ হু মু এরশাদ

অভিজ্ঞতাঃ সুযোগ দেয় নাই কেউ, আশা করি তুমি সুযোগ দিবা, ইন্টার্নশিপেও আমি রাজি।

আমার সম্পর্কেঃ দৈনিক দুইবার দাঁত ব্রাশ করি, সপ্তাহে ৫ দিন সাবান শ্যাম্পু ব্যবহার করি, কোন খারাপ অভ্যেস নাই, অকেশনাল স্মোকার।

তোমাকে ক্রিকেটের মত ভালোবাসবো, ওয়াইফাই পাসওয়ার্ড এর মত সারাজীবন আগলে রাখবো, তোমার সকল বকাঝকা বাড়ির সামনের ওয়াজের মাইকের মত সহ্য করবো। (3

 


 

বিদ্রঃ  জীবনে এ্যাপ্লিকেশন ছাড়া কেউকে চিঠি দেই নাই, একটা প্রেমপত্র লিখছিলাম, তারে দেয়ার আগেই চা পড়ে নষ্ট হয়ে গেছিলো। এখন সে এক বাচ্চার মা। বাচ্চাটা মিষ্টি, তবে তার গলায় মামা ডাক শুনতে অতটা মিষ্টি লাগে না ;(

আমি লেখক টাইপের কেউ না, তাই সিরিয়াস চিঠি লিখতে পারলাম না বলে দুঃখিত। 🙁

২৬০জন ২৬০জন
0 Shares

১৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ