চিঠি (প্রতিযোগিতা)

অরণ্য ৬ মার্চ ২০১৭, সোমবার, ১০:৫৫:০০পূর্বাহ্ন একান্ত অনুভূতি, বিবিধ ৩৮ মন্তব্য

________________________


কি! অবাক হচ্ছো?
তুমি কি জানো এটা তোমার চিঠি?
খামে তোমার নাম লিখেছি?
শুধু তো ঠিকানা ছিল!
চিঠিতে তোমার নাম পেয়েছো?
তাও কি পড়বে তুমি?

পড়। এটা তোমাকেই লেখা।
হাতের লেখায় টের পাবে তাই
প্রিন্ট করেছি তোমার ঠিকানাও!
হয়তো ভাবছো “কেন?”
এমনিতেই – লুকোতে ইচ্ছে করল।
এই ভাইবার-মেসেঞ্জার-হোয়াটস্‌ অ্যাপের যুগেও
তোমাকে লিখতে ইচ্ছে করল।
ডাকযোগে চিঠি – মজা আছে না?

কি লিখি ভাবছি এখন
আসলে তোমাকে একটু ভড়কে দেয়া
একটু আউলে দেয়া
সেই’ ছিল কাজ।

তুমি কিন্তু বদলে গেছ;
তুমি জানোনা।
তুমি সময়ে এগিয়েছো;
কিন্তু নিজে আগাওনি মোটেও – জানো তুমি?
তুমি আমাকে দেখনি;
কিন্তু তুমি জানোনা আমি
তোমায় কত ভালোবাসি!
ভালোবাসি বলেই লিখছি।
আমাকে খুঁজে কাজ নেই তোমার
তোমাকে একটু খোঁজো – তাতেই চলবে আমার।

তুমি কি জানো তোমাকে নিয়ে মানুষরা কি ভাবতো
কিংবা ভাবে এখনও?
তোমার সময় নেই
দৌড়াচ্ছ শুধু দৌড়াচ্ছ!
শেষ জানো এ দৌড়ের?
কিসের নেশায় যে দৌড়াও তুমি!
আমি তাই ভাবি মাঝে মাঝে।
আবার নেশা করলে নাকি
আমাকে খুব দেখতে ইচ্ছে করে তোমার?
শুনেছি তোমার বন্ধুর মুখেই।
কি ভাব তখন? কি দেখ আমার?
ঘোর কাটলেই তো ফের
সেই দৌড়ই তোমার!

একটু বিশ্রাম নিও মাঝে মাঝে – নিতে হয়।
হৃদপেশি পুরোটা ভেবোনা নিজেকে
তুমি একজন রক্ত-মাংসের মানুষ যে!
আর মানুষরাও তোমাকে মানুষই পেতে চায়
কাছে আসতে চায়
ভালোবাসতে চায়
ভালোবাসা পেতে চায়!
আমিও চেয়েছিলাম।
ভেবেছিলাম অনেক ভালোবাসা পাব তোমার
এখন মনে হয় পাই’নি!
বেশি চেয়েছিলাম বুঝি?
কিন্তু জানো, এখনও বিশ্বাস করি
তুমি ফিরবেই – এই আমাতেই!
হ্যাঁ। আমায় ভালোবাসবে তুমি
অনেক, অনেক – অনেক ভালোবাসা!
আবেগী হয়ে যাচ্ছি বেশি।
নাহ! থাক।
থাক আজ।
আবার লিখব আমারই প্রয়োজনে
আমি এখন জেনে গেছি যে
আমার-তোমার দৌড়ের শেষ
একই রেখায় একই ক্ষণে।
এবার বলো
চিনছো আমায়?

________________________

২৬৬জন ২৬৬জন
0 Shares

৩৮টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য