17426398_513047979083893_362098815855312474_n

নিজেকে প্রকাশ করতে আমরা যার আশ্রয় নেই তা হলো লিখনী। লেখার মাঝে প্রতিটি শব্দ যেন জীবনের হাসি, কান্না, আনন্দ-বেদনার রূপকার। শব্দে শব্দে গড়ে উঠে লালিত উচ্চারণ। আর এই উচ্চারণকে সময়স্রোতে হারিয়ে যেতে না দিয়ে বন্দি করে রাখার প্রয়াসের অপর নাম ই-ম্যাগাজিন “সোনেলার বৈশাখ”।

আজ সৃষ্টি সুখের উল্লাসে-
মোর মুখ হাসে মোর চোখ হাসে মোর টগবগিয়ে খুন হাসে
আজ সৃষ্টি-সুখের উল্লাসে।

হ্যাঁ চোখে-মুখে আজ যে আনন্দের ঢেউ খেলা করছে এ কেবল সৃষ্টির উল্লাস। সৃজনশীল চেতনার উদয় এবং শৈল্পিকবোধসম্পন্ন যে নান্দনিক ই-ম্যাগাজিনের স্বপ্ন আমরা লালন করে এসেছি, আজ তা বাস্তবিকরূপ নিলো। শেষ হলো অপেক্ষার পালা। আর এসবই সম্ভব হয়েছে সোনেলার ব্লগারদের আন্তরিক সহযোগিতা, আর ভালোবাসায়। সোনেলার সকল ব্লগার, পাঠক, শুভানুধ্যায়ীদের তাই ব্লগ কর্তৃপক্ষ থেকে জানাচ্ছি আন্তরিক ধন্যবাদ ও নববর্ষের শুভেচ্ছা। ম্যাগাজিনটি সবার ভালো লাগলে তবেই আমাদের এতদিনের কষ্ট সফলতা পাবে।

আপনাদের জন্য সোনেলার নববর্ষের উপহার ই-ম্যাগাজিন “সোনেলার বৈশাখ”……

ই-ম্যাগাজিন “সোনেলার বৈশাখ” এর ড্রপবক্স লিঙ্ক
“সোনেলার বৈশাখ” মিডিয়াফায়ার লিঙ্ক

বিশেষ সংযুক্তিঃ
* ম্যাগাজিনের অনলাইন প্রিভিউ নয়, সবাইকে ডাউনলোড করে পড়বার জন্য অনুরোধ রইলো।
* ম্যাগাজিনের সূচিতে যেকোন নামের উপর ক্লিক করলে সেই নির্দিষ্ট লেখাতে যাওয়া যাবে, আবার একই ভাবে যেকোন লেখার উপর ক্লিক করলে সূচিতে ফিরে যাওয়া যাবে।
* ম্যাগাজিনে অনাকাংখিত ভুলত্রুটি থাকতে পারে, সবাইকে ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখার জন্য অনুরোধ করছি।

চিঠি প্রতিযোগিতার ফলাফলঃ—— 

এই প্রথম সোনেলা আয়োজন করেছিল ব্যতিক্রমী চিঠি প্রতিযোগিতার, যাতে লেখক ও পাঠকদের ব্যাপক সাড়া পাওয়া যায়। মোট একত্রিশটি চিঠি প্রতিযোগিতার জন্য জমা পড়ে, যার প্রত্যেকটি মানের দিক থেকে ছিলো অনেক উঁচু। এটি আমাদের সোনেলা ব্লগের কোন প্রথম প্রতিযোগিতার আয়োজন। আমরা জানি আমাদের কোন ভুল না থাকা অস্বাভাবিক। আবার এও জানি, আমাদের ব্লগাররা তাদের মহত্বে সেই ভুলগুলো এড়িয়ে যাবেন। এবারে ফলাফল।
চিঠির ফলাফল ঘোষনার আগে কিছু কথা বলে নেয়া প্রয়োজন। এই ফলাফল নির্বাচকমন্ডলী কর্তৃক আগেই নির্বাচিত, পাঠকদের চিঠি নির্বাচনের কোন প্রভাব এতে নেই। আপনারা নিশ্চয়ই বুঝে গিয়েছেন নির্বাচন করা কতোটা কষ্টসাধ্য ছিলো, কোন চিঠি রেখে কোন চিঠি নির্বাচন করা হবে, এ ছিলো এক মহাযুদ্ধের মতো অবস্থা, প্রত্যেকটি চিঠি বিশেষ করে প্রায় পনেরোটি চিঠি যেন প্রত্যেকটি প্রত্যেকের চাইতে ভালো।
এ প্রতিযোগিতা শিশুদের স্কুলভর্তি পরীক্ষা নয়, আর আমরাও সেই পরিবারের মতো নই যারা স্থান নিয়ে ভেবে কান্নাকাটি করি, তাই এইসব প্রথম, দ্বিতীয়, তৃতীয় আমাদের কাছে কোন আলাদা গুরুত্বপূর্ন নয়। সকলকে অনুরোধ জানাচ্ছি কেউ মন খারাপ করবেন না। আমিতো বলি এইসব প্রথম, দ্বিতীয়ের দরকারই ছিলো না, তবুও যেকোন প্রতিযোগিতার নিয়মই এটা। ভিন্ন ভিন্ন মানুষের ভিন্ন ভিন্ন পছন্দ, তাই কেউ আশাহত হবেন না।
পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী প্রথম প্রতিযোগিতার আয়োজন বলে সকল প্রতিযোগির জন্যতো থাকছেই পুরষ্কার এবং——————-

নির্বাচকমন্ডলী নির্বাচিত সোনেলার প্রথম পাঁচটি চিঠিঃ- 

প্রথম স্থানঃ  প্রিয় শমশেরনগর চা’ বাগান। লেখকঃ নীলাঞ্জনা নীলা

দ্বিতীয় স্থানঃ যে কাল্পনিক চিঠি পাঠানো হয়নি। লেখকঃ আগুন রঙের শিমূল

তৃতীয় স্থান (যৌথভাবে) ঃ  চিঠি। লেখকঃ অরণ্য
এবং
  মা’কে লেখা শেষ চিঠি। লেখকঃ অরুণিমা

চতুর্থ স্থান (যৌথভাবে)ঃ প্রিয় মনিকে চিঠি। লেখকঃ মৌনতা রিতু
এবং
যেখানে ডাকপিয়ন পৌঁছায় না। লেখকঃ রূম্পা রুমানা

পঞ্চম স্থান ( যৌথভাবে)ঃ  শেষ চিঠি। লেখকঃ নীরা সাদিয়া
এবং
তোমাকে ভেবে লেখা। লেখকঃ তেলাপোকা রোমেন

এছাড়াও নির্বাচকমন্ডলী কএকটি চিঠিকে বিশেষ পুরষ্কার দেবার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন।

১। প্রেমের নাম বেদনা। লেখকঃ মেহেরী তাজ (রম্য বিভাগ থেকে)
২। প্রিয় সোনেলা। লেখকঃ মিষ্টি জিন। ( সোনেলার সবাইকে এক চিঠিতে এনে সবাইকে তাক লাগিয়ে দিয়েছেন উনি ) ।
৩। প্রবাসী শ্রমিকের চিঠি। লেখকঃ মনির হোসেন মমি। ( প্রবাসী শ্রমিকদের যন্ত্রণাকে অসাধারনভাবে উপস্থাপনের জন্য)
৪। প্রিয় স্বদেশ। লেখকঃ রিমি রুম্মান। (প্রবাসে থেকেও দেশমাতা, বাংলাকে হৃদয়ে ধারন করার জন্য)
৫। আর্জি। লেখকঃ আবু খায়ের আনিছ। (প্রধানমন্ত্রী বরাবর ব্যতিক্রমী চিঠিটির জন্য)।

পুরষ্কারপ্রাপ্ত এবং যারা পুরষ্কার পাননি সকলের জন্য অনেক অভিনন্দন ও শুভকামনা।

আগামী ২৩ শে সেপ্টেম্বর সোনেলার পঞ্চম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে জাঁকজমক অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এই পুরষ্কার প্রদান করা হবে। স্থান, সময় পরবর্তিতে জানিয়ে দেয়া হবে।

আপনাদের মতামত জানবার জন্য অধির আগ্রহে অপেক্ষায় রইলাম। সবাইকে নতুন বছরের অনেক অনেক শুভেচ্ছা। শুভ নববর্ষ ১৪২৪।

৩২৪জন ৩১৯জন
0 Shares

১৩৫টি মন্তব্য

  • আবু খায়ের আনিছ

    এমন একট আয়োজনে অংশগ্রহণ করতে আমি আনন্দিত। যারা এত পরিশ্রম করে এই উদ্যোগটি সফল করেছে তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা, শুভ কামনা রইল সবার প্রতি। আজ আমি অপেক্ষা করছিলাম এই পোষ্টের জন্য, নয়ত পড়ার টেবিলে বা ঘুমে থাকতাম। যাইহোক, ইবুক পেয়েছি এবার পড়ে মন্তব্য করব।
    শুরু যেহেতু হয়েছে এবার তার ধারবাহিকতা রক্ষা করতে পারবে এমনটাই কামনা করি। আবারো ধন্যবাদ সোনেলা টিমকে। আর পোষ্টদাতা শুন্য (অসীম) মহান এই মানুষটিকেও অনেক অনেক ধন্যবাদ, এবং শুভ কামনা।

  • অপার্থিব

    বিজয়ীদের অভিনন্দন। দ্বিতীয় স্থান নির্বাচিত হওয়া চিঠিটা আসলেই খুব ভাল ছিল এবং সেটা পুরস্কার ডিজার্ভ করে। প্রথমটাও বেশ ভাল তবে তৃতীয়, চতুর্থ এবং পঞ্চম এর সঙ্গে একমত হতে পারলাম না, দুঃখিত। তবে এদিক দিয়ে দেখলে বিশেষ পুরষ্কারের জন্য নির্বাচিত চিঠিগুলো তুলনামু্লক ভাল হয়েছে। ব্যক্তি আবেগের চেয়ে (অধিকাংশ চিঠি) সামষ্টিক আবেগকে রিপ্রেজেন্ট করা “আর্জি” শীর্ষক চিঠিটাকে একটা স্বীকৃতি পেতে দেখে ভাল লাগলো।

    • শুন্য শুন্যালয়

      ধন্যবাদ মতামতের জন্য অপার্থিব। কিছু মিলবে, কিছু মিলবে না, অই যে ভিন্ন ভিন্ন মানুষের ভিন্ন ভিন্ন পছন্দ। আরো বেশ কিছু চিঠি আছে, সবাইকে আনা যায়নি বলে খারাপও লেগেছে।
      ম্যাগাজিন পড়ে মতামত জানাবেন অপার্থিব। শুভ নববর্ষ।

    • প্রহেলিকা

      ব্লগার অপার্থিব এর মন্তব্যটি দৃষ্টি কাড়লো। অনধিকার প্রবেশ হলেও প্রাসঙ্গিক কিছু না বললেই যেন নয়। তার জন্য আগেই দুঃখ প্রকাশ করছি।

      ব্যক্তিগত অভিমত আপনি প্রকাশ করতেই পারেন, সে অধিকারও আপনার রয়েছে বলেই মনে করি। কিন্তু প্রতিযোগিতায় প্রাপ্ত লেখাগুলোর মান নির্ণয় করে যে মন্তব্য করেছেন তা অযাচিত মনে হলো, ঠিক যেমন ব্লগ কর্তৃপক্ষ বা নির্বাচক প্যানেলের অন্তর্ভুক্ত না হয়েও অযাচিতভাবে আমি এই মন্তব্যের জবাব দিচ্ছি।

      **দ্বিতীয় স্থান নির্বাচিত হওয়া চিঠিটা আসলেই খুব ভাল ছিল এবং সেটা পুরস্কার ডিজার্ভ করে। ** দ্বিতীয় স্থান নির্বাচিত হওয়া চিঠিটা আসলেই খুব ভাল ছিল এবং সেটা পুরস্কার ডিজার্ভ করে।** আপনার মন্তব্যের এই অংশুটুকু নিয়ে বেশ আপত্তি রয়েছে। নির্বাচিত দ্বিতীয় চিঠিটিই কেবল যদি পুরস্কার ডিজার্ভ করে থাকে তাহলে ধরে নিচ্ছি বাকিগুলো ডিজার্ভ করে না (আপনার বক্তব্য অনুযায়ী)। অথচ আলোচ্য পোষ্টে উল্লেখ করা রয়েছে উনারা বা উনাদের লেখাগুলো সম্মানিত বিচারকমণ্ডলীকর্তৃক নির্বাচিত। যা আপনি আপনার কোটেড অংশটুকুর মাধ্যমে নির্বাচিতদের হেয় করেছেন। সাথে হেয় করেছেন সম্মানিত বিচারকদের। এখানে আপনি একজন অপার্থিব নির্বাচিত লেখাগুলোকে নিয়ে এমন দৃষ্টিকটু মন্তব্য করেছেন ঠিকই কিন্তু নির্বাচিত লেখাগুলো ছিল চারজনের (একজন অপার্থিব নয়) সমন্বিত সিদ্ধান্ত।

      **তবে এদিক দিয়ে দেখলে বিশেষ পুরষ্কারের জন্য নির্বাচিত চিঠিগুলো তুলনামু্লক ভাল হয়েছে।** কিছুই বলার নেই. ব্লগ কর্তৃপক্ষ বা সঞ্চালকের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলছি, পরবর্তীতে যদি এমন কোনো প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয় তাহলে জনাব ব্লগার অপার্থিবকে বিচারক প্যানেলে সংযুক্ত করার জন্য ব্যক্তিগতভাবে দাবি জানাচ্ছি।

      মন্তব্যের শেষ পর্যায়ে চলে এসেছি। আপনার এই অংশটুকু (প্রথমটাও বেশ ভাল তবে তৃতীয়, চতুর্থ এবং পঞ্চম এর সঙ্গে একমত হতে পারলাম না, দুঃখিত।) পড়ে একটা কথা মনে পড়লো; বলার লোভ সামলাতে পারলাম না। একেকজনের রুচিবোধ আলাদা। উদাহরণ টানছি না। জানি না আমরা একা সব লেখাকে মূল্যায়ণ করার ক্ষমতা রাখি কি না (হয়তো আপনি পারেন) তবে চারজন বিচারকের সম্মিলিত সিদ্ধান্তকে সম্মান জানানো উচিত বলেই মনে করি।

      ধন্যবাদ আপনাকে।

      • শুন্য শুন্যালয়

        প্রহেলিকার মন্তব্যের সাথে একমত আমি।
        চিঠি মূলত ব্যক্তি আবেগ প্রকাশের জন্যই লিখি আমরা। এখানকার প্রত্যেকটি চিঠি পুরষ্কার ডিজার্ভ করে।

      • অপার্থিব

        // নির্বাচিত দ্বিতীয় চিঠিটিই কেবল যদি পুরস্কার ডিজার্ভ করে থাকে তাহলে ধরে নিচ্ছি বাকিগুলো ডিজার্ভ করে না (আপনার বক্তব্য অনুযায়ী)। //

        আমি কোন একটি বিশেষ চিঠিতে বিশেষ ভাবে মুগ্ধ হলে, সেটার প্রশংসা করে “ডিজার্ভিং” বললে তাতে আমার উল্লেখ না করা অন্য চিঠিগুলোর পুরষ্কার আনডিজার্ভিং হয়ে যায় এটা গণিত/যুক্তিবিদ্যার কোন সূত্রানুযায়ী প্রমাণিত সেটা দয়া করে উল্লেখ করলে ভাল হয়। আর যদি আপনার উদ্ভাবন করা কোন সুত্র হয় তবে সেটাও উল্লেখ করেন, নিজের সীমিত জ্ঞান ভান্ডার সমৃদ্ধ করি।

        //অথচ আলোচ্য পোষ্টে উল্লেখ করা রয়েছে উনারা বা উনাদের লেখাগুলো সম্মানিত বিচারকমণ্ডলীকর্তৃক নির্বাচিত। যা আপনি আপনার কোটেড অংশটুকুর মাধ্যমে নির্বাচিতদের হেয় করেছেন। সাথে হেয় করেছেন সম্মানিত বিচারকদের।//

        “আপনাদের মতামত জানবার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় রইলাম” – এটা পোষ্টের শেষ প্যারার লাইন।
        যেখানে পোস্টদাতা মতামত জানার জন্য “অধীর আগ্রহে” অপেক্ষা করছে সেখানে আপনি কোন মতামতকে (ধরে নিলাম সমালোচনা মুলক) অযাচিত বলে রায় দেওয়ার অধিকার রাখেন কি ? শুধু তাই নয় আপনার মতে এতে নাকি আবার বিচারকদের বিচারানুভুতিও ক্ষতিগ্রস্থ হয়! বিচারকদের অনুভূতি যে এতই ঠুনকো জানতাম না। অবশ্য আপনারে দোষ দিয়া লাভ নাই।জাতি হিসেবেই বাঙ্গালী অনুভূতি প্রবণ। এখানে কোন কিছু বললেই কারো না কারো অনুভূতি ক্ষতিগ্রস্থ হয়। প্রশ্ন হচ্ছে প্রতিযোগীতার নিয়মাবলী বা এই পোষ্টের কোথাও কি বিচারকদের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করা যাবে না এমন কোন কথা উল্লেখ আছে ? বিচারক যেহেতু কোন স্বয়ংসম্পূর্ণ ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠান নয় তাহলে আমি কেন বিচারকদের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করতে পারবো না? লক্ষ্য করুন এখানে বিচারকদের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছি, সিদ্ধান্ত পাল্টাতে বলি নাই কাজেই বিচারকদের সিদ্ধান্ত চুড়ান্ত জাতীয় কোন দাবী নিয়ে আবা্র হাজির হবেন না।

        //পড়ে একটা কথা মনে পড়লো; বলার লোভ সামলাতে পারলাম না। একেকজনের রুচিবোধ আলাদা। //

        একেকজনের রুচিবোধ যে আলাদা এটা একটা ক্লাস টুতে পড়া বাচ্চাও জানে।তবে এখানে যেটা বলা দরকার তা হচ্ছে বিচারকরাও এই একেকজনের মধ্যে পড়ে। কাজেই বিচারকদের রুচি বোধের সাথে অন্য আরেক জন বা আমার/আপনার রুচি বোধ যে মিলবে এমন কোন কথা নেই। এটাই আগে ভাল ভাবে বোঝার চেষ্টা করেন। আর “হয়তো আপনি পারেন”, “একজন অপার্থিব নয়” , “অপার্থিবকে বিচারক প্যানেলে সংযুক্ত করার জন্য ব্যক্তিগতভাবে দাবি” জাতীয় ফালতু কথাবার্তার জবাব দেওয়ার মত সময় বা ইচ্ছা কোনটাই আমার নাই। ভাল থাকবেন।

    • ব্লগার সজীব

      নির্বাচন নিয়ে যে কেহ তার ব্যক্তিগত মতামত প্রদান করতে পারেন। কারো কাছে হয়ত একটি চিঠি ভাল লাগবে, অন্যের কাছে হয়ত তেমন ভাল লাগবেনা। আমি যে রঙের সার্ট পছন্দ করছি, সেটা সবার পছন্দ নাও হতে পারে। দ্বিমত হওয়া আর অনাস্থা এক কথা নয়। পরাজিত হলেই নির্বাচন কমিশন সম্পর্কে অনাস্থা আনয়ন করে আমাদের দেশের রাজনৈতিক দলসমূহ। সোনেলার নির্বাচকমন্ডলী সম্পর্কে আস্থার সংকট নেই মনে হয় কারোরই, তবে ব্যক্তিগত মতামত দেয়ার অধিকার সবারই আছে। শুন্য আপুও তা বলেছেন পোস্টে। তাই না অপার্থিব ভাইয়া?

      • অপার্থিব

        লক্ষ্য করুন, প্রথম মন্তব্যের শুরুতেই বিজয়ীদের অভিনন্দন জানানো হয়েছে অর্থাৎ ফলাফল মেনে না নেওয়ার প্রশ্ন কিন্ত এখানে নেই। আপনার সঙ্গে একমত হয়েই বলি দ্বিমত হওয়া আর অনাস্থা এক কথা নয়। অপর দিকে বাংলাদেশের রাজনৈতিক ইতিহাসে আজ পর্যন্ত কোন পরাজিত দলের নির্বাচনের ফলাফ ল মেনে নেওয়ার রেকর্ড নেই। কাজেই এই নির্বাচনের সঙ্গে বাংলাদেশের রাজনৈতিক দলের উপমাটা কি এইক্ষেত্রে প্রযোজ্য হয়? আর শুন্য আপু যে প্রহেলিকার মন্তব্যে একমত জানিয়ে গেছে তাতে আমার বিন্দুমাত্র আপত্তির জায়গা নেই, আমার আপত্তির জায়গাটা হচ্ছে কাজটা উনি করেছেন আমার কোন প্রতিউত্তর দেবার আগেই। যে কোন আর্গুমেন্ট জাজ করতে হলে দুই পক্ষকে সমান সুযোগ দেওয়াটাই নিয়ম, তাই না? আর প্রহেলিকা যে কিছু উদ্ভট, থার্ড ক্লাস, ফালতু যুক্তি হাজির করেছে তা না সে মন্তব্যের মধ্যে “হয়তো আপনি পারেন”, “বলার লোভ সামলাতে পারছে না, একেক জনের রুচি একেক রকম”, “বিচারক প্যানেলে সংযুক্ত করার দাবি” টাইপের খোঁচা মুলক কথাবার্তাও বলেছে। যাই হোক, আর কোন প্রতিউত্তর দেওয়ার ক্ষমতা তার আছে বলে আমার অন্তত মনে হয় না।

      • প্রহেলিকা

        আপনার সীমিত জ্ঞান সমৃদ্ধ করার জন্য সূত্র উল্লেখের প্রয়োজন নেই। আক্ষরিক বৃত্তের বাহিরেই যদি হয় ”বোধ” এর অবস্থান তাহলে **দ্বিতীয় স্থান নির্বাচিত হওয়া চিঠিটা আসলেই খুব ভাল ছিল এবং সেটা পুরস্কার ডিজার্ভ করে। ** বাক্যটি বলার পর যখন আবারো বলা হয় **তৃতীয়, চতুর্থ এবং পঞ্চম এর সঙ্গে একমত হতে পারলাম না, দুঃখিত। তবে এদিক দিয়ে দেখলে বিশেষ পুরষ্কারের জন্য নির্বাচিত চিঠিগুলো তুলনামু্লক ভাল হয়েছে।** তখন প্রথম লাইনটা কিসের প্রতিনিধিত্ব করে সেটি আর খোল্লাম খোল্লা করে বলার অপেক্ষা রাখে না। তবে বোধ যদি ভোঁতা হয় সেক্ষেত্রে অন্য কথা।

        **প্রশ্ন হচ্ছে প্রতিযোগীতার নিয়মাবলী বা এই পোষ্টের কোথাও কি বিচারকদের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করা যাবে না এমন কোন কথা উল্লেখ আছে ? বিচারক যেহেতু কোন স্বয়ংসম্পূর্ণ ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠান নয় তাহলে আমি কেন বিচারকদের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করতে পারবো না?

        জবাব হলো, বিচারকদের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করা যাবে না এমন কিছু পোষ্টে উল্লেখ নেই এবং আপনি তা করতেও পারেন।

        এবার আপনি লক্ষ্য করুন, আমার মন্তব্যটি অসংশোধিত অবস্থায় এখনো আছে। আমার মন্তব্যে আপনি সমালোচনা করেছেন এমন কোনো বাক্য বলতো দূরের কথা ”সমালোচনা” শব্দটাই আমি উল্লেখ করিনি। সমালোচনা অবশ্যই গ্রহণযোগ্য। আমি সমালোচনা শব্দটাই উল্লেখ করিনি আর তার কারণ হলো আপনার মন্তব্যটি সমালোচনার কাতারেই পড়ে না। আর আপনি এখন বলছেন, **লক্ষ্য করুন এখানে বিচারকদের সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছি, সিদ্ধান্ত পাল্টাতে বলি নাই কাজেই বিচারকদের সিদ্ধান্ত চুড়ান্ত জাতীয় কোন দাবী নিয়ে আবা্র হাজির হবেন না।**

        কেন সমালোচনার কাতারে পড়ে না সেটি বলে দিচ্ছি, কোনো বিষয়বস্তুকে নিয়ে সমালোচনা করতে গেলে অবশ্যই তার যথোপুযুক্ত কারণ উল্লেখ করতে হয়। সমালোচনা তখনই বলা যাবে যখন আপনি, তৃতীয়, চতুর্থ এবং পঞ্চম বিজয়ীদের লেখাগুলো বিশেষভাবে নির্বাচিত লেখাগুলো থেকে কোন দিক দিয়ে কম মানসম্পন্ন সেটির কারণ উল্লেখ করতেন।

        কোন কিছু মনঃপুত না হলেই, ”আমার মনের মতো হয়নি” এটি বলাটাই কেবল সমালোচনা নয়। কেন মনঃপুত হয়নি, সাথে কেমন হলে মনঃপুত হতো; সবকিছুর সমষ্টিই সমালোচনা। আর যার কারণে সমালোচনাতো দূরের কথা ”খোঁড়া সমালোচনা” বলেও আমি মন্তব্যের কোথাও উল্লেখ করিনি।

        ও ভালো কথা, রাজনৈতিক নির্বাচনগুলোতেও কিন্তু নির্বাচন কমিশনের সমালোচনা করলে তার পেছনে নানান কারণ উল্লেখ করেই সমালোচনা করেন। যাইহোক আশা করি সমালোচনার সংজ্ঞা আপনি বেশ ভালো জানেন।

        **কাজেই বিচারকদের রুচি বোধের সাথে অন্য আরেক জন বা আমার/আপনার রুচি বোধ যে মিলবে এমন কোন কথা নেই। **

        ধন্যবাদ আপনাকে এটি স্বীকার করার জন্য। আশার কথা হলো এই যে, যে চারজন নির্বাচক ছিলেন তাদের একেকজনের রুচি অপরজনের সাথে মিলেছে। আর তাই উনারা সম্মিলিতভাবে নির্বাচিত ঘোষণা করতে পেরেছেন। ভাগ্যিস সেখানে বিকৃত রুচির কেউ ছিলেন না, যদি থাকতো তাহলে অবস্থা বেগতিক হতো।

        এবার ব্লগার সজীবকে করা কেবল একটি লাইন সম্পর্কে বলছি।
        **যাই হোক, আর কোন প্রতিউত্তর দেওয়ার ক্ষমতা তার আছে বলে আমার অন্তত মনে হয় না।**

        হা হা হা, এবার মিলিয়ে নিতে পারেন যে, আপনার ”মনে হয়” বা ”মনে হয় না” অনেক সময়ই যে ভিত্তিহীন (প্রমাণিত)।

        ”কাঁচায় না নোয়ালে বাঁশ, পাকলে করে ঠাস ঠাস” এই তত্ত্বে প্রহেলিকা বিশ্বাসী নয়।

        অবশ্যই ভালো থাকুন।

      • অপার্থিব

        অভিজ্ঞতা বলে যারা ব্যক্তি আক্রমণ বা খোঁচা মুলক কথাবার্তা বলে তাদের মাথায় তেমন কিছু থাকে না , এরা দু একটা মন্তব্য করে সুযোগ পেলেই সরে যায়। যাই হোক আমাকে ভুল প্রমাণিত করে সাহস করে আবার এসেছেন তার জন্য আন্তরিক ধন্যবাদ।

        //আক্ষরিক বৃত্তের বাহিরেই যদি হয় ”বোধ” এর অবস্থান//

        এই বোধটা কার? আপনার? এই বোধ কি স্বতঃসিদ্ধ কোন ব্যাপার স্যাপার ? এই বোধটা তো তৈরী হয়েছে আমার মন্তব্যকে ইভালুয়েট করে, তো এই ইভালুয়েশনের পেছনে থাকা রেফারেন্স যখন জানতে চাইলাম তখন “সূত্র উল্লেখের প্রয়োজন নেই”,
        “খোল্লাম খোল্লা করে বলার অপেক্ষা রাখে না”। হা হা হা…

        //কোন কিছু মনঃপুত না হলেই, ”আমার মনের মতো হয়নি” এটি বলাটাই কেবল সমালোচনা নয়। কেন মনঃপুত হয়নি, সাথে কেমন হলে মনঃপুত হতো; সবকিছুর সমষ্টিই সমালোচনা। আর যার কারণে সমালোচনাতো দূরের কথা ”খোঁড়া সমালোচনা” বলেও আমি মন্তব্যের কোথাও উল্লেখ করিনি।ও ভালো কথা, রাজনৈতিক নির্বাচনগুলোতেও কিন্তু নির্বাচন কমিশনের সমালোচনা করলে তার পেছনে নানান কারণ উল্লেখ করেই সমালোচনা করেন। যাইহোক আশা করি সমালোচনার সংজ্ঞা আপনি বেশ ভালো জানেন।//

        কোট করা অংশের প্রথম কথাটা ঠিক তবে সমস্যাটা হল প্রথম মন্তব্যটা যখন করি তখন তো আর জানতাম না আপনি এই সব ফালতু যুক্তি নিয়ে হাজির হবেন, জানলে কেন মন মত হয়নি তার ব্যাখ্যাই লিখতাম। এটা ছিল একটা অভিমত তবে এটার মধ্যে যে বিচারকদের সিদ্ধান্তের প্রচ্ছন্ন সমালোচনা আছে । বাংলাদেশের নির্বাচনগুলোতে হারার পরদিন থেকে রাজনৈতিক দলগুলো ফলাফল না মেনে নির্বাচন কমিশনের সমালোচনা করতে শুরু করে তবে কেন তারা ফলাফল মানে না তার জন্য তাদের কিছু ডেটা কালেকশনের প্রয়োজন হয় । এই জন্য তাদের অন্তত দু এক দিন সময় লাগে। এই দুই একদিনের মাঝের সময়টাতে তাদের ফলাফল না মানা, কমিশনে বিরুদ্ধে মুখের বিবৃতি (রেফারেন্স বিহীন) এগুলো হয়তো সমালোচনার পূর্ণাঙ্গ সংজ্ঞায় পড়বে না কিন্ত দিন শেষে এগুলোও সমালোচনা হিসেবে গণ্য হয়। আর আমার করা প্রথম মন্তব্য যদি পূর্ণাঙ্গ সমালোচনা না হয়ে বিরুদ্ধ অভিমতও নয় তবুও প্রশ্ন বিরুদ্ধ অভিমত দেওয়া যাবে না এমন কথা এই কথা এই পোস্ট কিংবা প্রতিযোগীতার নিয়মাবলীর কোথায় আছে? আর সবচেয়ে বড় প্রশ্ন ““আপনাদের মতামত জানবার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় রইলাম”, পোস্টদাতার এই লাইনের সাপেক্ষে আপনার মন্তব্যের কোন যৌক্তিক অবস্থান আছে কি? যেখানে পোস্ট দাতা মতামত জানার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে সেখানে আপনি কোন মতামত কে অযাচিত বলার কিংবা অভিমত কারীকে আক্রমণ করার অধিকার কি আদৌ রাখেন ?

        এবার তাহলে শেষ প্রশ্ন , বিকৃত রুচিটা কার?

      • ব্লগার সজীব

        অপার্থিব ভাইয়া। আপনি এই সোনেলা ব্লগে নতুন নন। দুইবছরের অধিক সময় যাবত আছেন এখানে। আপনি আপনার একটি মন্তব্যে প্রহেলিকা ভাইয়াকে যা বলেছেন( ‘ আর প্রহেলিকা যে কিছু উদ্ভট, থার্ড ক্লাস, ফালতু যুক্তি হাজির করেছে…… ‘) তা আমার কাছে ভাললাগেনি। এই শব্দ সমুহ আমার কাছে আপত্তিকর মনে হয়েছে। এই শব্দ সমুহ এবং এর চেয়েও বেশি খারাপ শব্দের অব্যাহত ব্যবহারের কারনে সামু থেকে চলে এসেছি। এসব শব্দ এখানে অচল। আশাকরি আপনি আপনার সুনাম বজায় রেখে ভবিষ্যতে শব্দ নির্বাচনে শতর্ক হবেন।
        সোনেলায় আমরা কেহ কারো প্রতিপক্ষ নই। এখানের পরিবেশ যেন আমরা সুন্দর রাখি। লেখার বা মন্তব্যের স্বাধীনতার যেন আমরা অপব্যবহার না করি।

      • অপার্থিব

        @সজীব,

        আমি ব্যক্তি আক্রমণ বা খোঁচা খুচির জবাবে পাল্টা ব্যক্তি আক্রমণ বা খোঁচা খুচি করি না। লক্ষ্য করুন “উদ্ভট, থার্ড ক্লাস, ফালতু” শব্দগুলো যুক্তিকে বর্ণনায় ব্যবহার করা হয়েছে, ব্যক্তিকে নয়। কেন যুক্তিগুলো উদ্ভট, থার্ড ক্লাস সেটা আর্গুমেন্ট প্রথম থেকে ফলো করলে বুঝতে পারার কথা। উনার নিজস্ব “আক্ষরিক বৃত্তের বাহিরের বোধ” জাগ্রতের পিছনে রেফারেন্স জানতে চাইলে বলছেন সুত্র উল্লেখের প্রয়োজন নেই, খোল্লাম খোল্লা করে বলার অপেক্ষা রাখে না। যেখানে পোস্টদাতা মতামত শুনতে আগ্রহী সেখানে উনি কোন মতামতকে অযাচিত বা মতামত প্রদানকারীকে আক্রমনের অধিকার রাখেন কিনা সেই প্রশ্নেরও কোন উত্তর নেই।

      • প্রহেলিকা

        আপনার কাছে আন্তরিক দুঃখ প্রকাশ করেই এই তর্ক এখানে শেষ করলাম। আর কোনো মন্তব্য বা মন্তব্যের জবাব আমি দিব না।

      • শুন্য শুন্যালয়

        আপনাকে অসংখ্য ধন্যবাদ প্রহেলিকা এটাকে সমাপ্তি টানার জন্য। যেখানে অপার্থিব প্রত্যেক মন্তব্যে আক্রমানত্মক এক একটি বাক্য লিখে ঝগড়া কি উস্কে দিয়েছেন সেখানে আপনার এই থেমে যাওয়াকে আমি স্বাগতম জানাচ্ছি সেটা রাগ করে হলেও। @প্রহেলিকা

        @অপার্থিব, মন্তব্যের উত্তর দেয়ার ক্ষমতা রাখেনা কিংবা মাথায় কিছু নেই আপনার এই বাক্যগুলো খুবই আপত্তিকর। আমি পোস্টে মতামত অবশ্যই চেয়েছিলাম। মতামতটা আপনি আরেকটু সুন্দর করে বললে আপনার সহব্লগার যারা তৃতীয়, চতুর্থ বা পঞ্চম হয়েছে তারা কষ্ট পেতোনা। আপনি বলতে পারতেন যদিও আপনাদের সিলেকশানের সাথে আমার মতের কিছু অমিল রয়েছে তবুও সবাইকে অভিনন্দন।
        মানতে পারলাম না কথাটা রুক্ষ অপার্থিব। তাদের লেখা বিশেষ পুরস্কার চেয়ে ভালো নয়, এটা পরের বাক্যেও বলেছেন আপনি। আমরা কেউ পুরষ্কার পাইনি এখানে। আমরা এও জানি পাঠকদের পছন্দ মতো না হলে রেজাল্ট নিয়ে সমালোচনাও হতে পারে। সহ ব্লগাররা কষ্ট না পায় এটাও একটু খেয়াল রাখি আমরা।
        এই বিবাদ কে আর না বাড়াই।

      • অপার্থিব

        দেখেন প্রথম মন্তব্যের শুরুতেই বিজয়ীদের অভিনন্দন জানানো হয়েছে। এমনকি তৃতীয়, চতুর্থ পঞ্চমের সঙ্গে যে একমত হইনি তার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছি। বিশেষ পুরষ্কারের লেখাগুলো তুলনামুলক ভাল হয়েছে এটা বলা কোন অপরাধ না, এটা একান্তই আমার ব্যক্তিগত অভিমত। সবাইকে এর সঙ্গে একমত হওয়ার কোন দাবী আমি করি নাই তবে মতামত আরেকটু সুন্দর করে বলার উপদেশ অগ্রাহ্য করলাম না। আর মতামতে কষ্ট পেয়ে কারো ব্লগ ছেড়ে দেওয়ার কোন কারণ নেই। দুনিয়ার সব কিছু যে আমার আপনার পছন্দ মত হবে এমন কোন কথা নেই।

        আমি আক্রমনাত্নক মন্তব্য লিখে ঝগড়া উষ্কে দিয়েছি!!! হাসালেন। আক্রমনাত্নক মন্তব্য আমি লিখেছি বটে তবে আমি আক্রমন করি যুক্তিকে, ব্যক্তিকে না। “মাথায় তেমন কিছু থাকে না” খন্ড বাক্যের আগে “যারা ব্যক্তি আক্রমণ বা খোঁচা মুলক কথাবার্তা বলে” এই খন্ড বাক্যটা আছে ভুলে যাবেন না। আর পরের লাইনে আমাকে ভুল প্রমাণিত করায় ধন্যবাদ জানিয়েছি কাজেই ঐ লাইন ব্যক্তি আক্রমনের ক্যাটাগরিতে পড়ে না। আর এই ভদ্রলোক যে শুধু দুর্বল ভিত্তির উপর দাঁড়িয়ে আর্গুমেন্ট শুরু করেছে তা না , তার মন্তব্যের মধ্যে
        “হয়তো আপনি পারেন”, “বলার লোভ সামলাতে পারছে না, একেক জনের রুচি একেক রকম”, “বিচারক প্যানেলে সংযুক্ত করার দাবি” টাইপের কিছু বাক্য আছে যেগুলোতে প্রচ্ছন্ন ব্যক্তি আক্রমণ সুষ্পষ্ট অর্থাৎ আমিই কিন্ত আক্রান্ত হয়েছি আগে। যাই হোক, ভুলে গিয়েছিলাম যে আপনিতো আগেই সেই চমৎকার মন্তব্যে(আপনার দৃষ্টিতে) সহমত জানিয়ে গেছেন কাজেই আপনার কাছে সেসব মোটেও আপত্তিকর মনে হওয়ার কথা না। যাই হোক আশা করি এই ঘটনা থেকে সবাই (আমি নিজে সহ) শিক্ষা নিবে, কিছু দুর্বল যুক্তি নিয়ে কেউ কখনো আগ বাড়িয়ে ব্যক্তি আক্রমণ করতে আসবে না। তবে সব ধরনের গঠনমূলক আলোচনায় যে কেউ সব সময় স্বাগত। বিদায় নিলাম। ভাল থাকবেন সবাই।

  • মৌনতা রিতু

    এখানে ফলা ফলটা বুঝতে পারিনি।
    খুব ভাল লাগছে ম্যাগাজিন দেখে। ছোটটার পরীক্ষা শুরু হইছে। মেমনটা কাল চলে যাবে। সময়ই দিতে পারছি না।

  • আমির ইশতিয়াক

    সকল বিজয়ীদেরকে অভিনন্দন! মোট একত্রিশটি চিঠি প্রতিযোগিতার জন্য জমা পড়েছিল। যারা বিজয়ী হয়নি তারা পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী প্রথম প্রতিযোগিতার আয়োজন বলে সকল প্রতিযোগির জন্যতো থাকছেই পুরষ্কার। মোট একত্রিশ জনের নামের তালিকা দেখতে চাই। আর সঞ্চালক মহোদয়ের কাছে জানতে চাই কার কার চিঠি প্রতিযোগিতা থেকে বাদ পড়েছে। সবার জন্য শুভ কামনা রইল।

  • মিষ্টি জিন

    চিঠি লেখায় নীলাদির সাথে পেরে উঠবো না তা জানতাম। :p
    বিজয়ী এবং প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহনকারি সবার জন্য রইল শুভেচছা।
    এ কয়দিন একটা উৎসব মুখর পরিবেশ ছিল সোনেলায়। ভিষন এনজয় করেছি। ধন্যবাদ শূন্য ম্যাম :p ….ধন্যবাদ ব্লগ টিম।

  • ছাইরাছ হেলাল

    টগবগা খুন হাসে কী না জানিনা,
    তব সৃষ্টির সুখ, মধু-সুখের মতই লাগে সারাক্ষণ।
    চিঠি লিখিয়েরাও তা প্রমাণ করেছেন।
    যে অসাধ্য-সাধনের বৈতরণী আপনি/ আপনারা পার করেছেন তাতে ধন্যবাদ শব্দটি বামুন।
    সব্বাইকে বৈশাখি শুভেচ্ছা।

  • আমির ইশতিয়াক

    ধন্যবাদ সোনেলা কর্তৃপক্ষকে সুন্দর একটি ই-ম্যাগাজিন উপহার দেয়ার জন্য। আমার চিঠিটি ই- ম্যাগাজিনে স্থান পাওয়ার জন্য আবারও ধন্যবাদ জানাচ্ছি। ই-ম্যাগাজিনে দেখলাম ৩২টি চিঠি স্থান পেয়েছে। আর এখানে বলছেন মোট ৩১টি চিঠি প্রতিযোগিতার জন্য জমা পড়েছে। হিসাবটা গড়মিল হয়ে গেল না। তাহলে একটা চিঠি ই- ম্যাগাজিনে বেশি স্থান পেল কিভাবে? তাহলে কি ধরে নিব কোন চিঠি বাদ দেয়া হয়েছে? কোন চিঠিটি বাদ দেয়া হয়েছে? বাদ দেয়া চিঠি ই-ম্যাগাজিনে দেয়ারই বা দরকার হলো কেন?
    ম্যাগাজিনের জন্য লেখা সবার লেখা কি স্থান পেয়েছে? বিষয়গুলো একটু ক্লিয়ার করে বললে সবার জন্য ভালো হবে। সবার জন্য শুভ কামনা রইল।

    • শুন্য শুন্যালয়

      আমির ইশতিয়াক একটা ব্লগে একটা প্রতিযোগিতায় লেখা দিয়েই কাজ শেষ হয়ে যায়না। সেই ব্লগে অন্যদের পোস্ট তো বাদই দিলাম, সোনেলা বার্তা থেকে যেই পোস্টগুলো দেয়া হয় তা পড়ারও সময় হয়না আপনাদের, আপনারা এতোটাই ব্যস্ত। চিঠি প্রতিযোগিতায় ৩২ চিঠি দেখেছেন কারন বিশিষ্ট সব লেখকদের জন্য ই-ম্যাগাজিন তৈরি করতে গিয়ে প্রহেলিকা প্রতিযোগিতায় তার চিঠি জমা দিতে পারেন নি, সেটা অসমাপ্ত অবস্থায় চিঠি বিভাগে এড করা হয়েছে।
      যদি আপনার মূল্যবান সময় একটু ফুরসাত পায়, লেখার সংখ্যা গণনা করে তারপর বলুন কোন লেখা বাদ পড়েছে কিনা।

  • নীহারিকা

    অবশেষে ভালোয় ভালোয় সব শেষ হলো। আলহামদুলিল্লাহ্‌। উপরে পুরস্কারপ্রাপ্তদের নাম দেখে খুবই ভালো লেগেছে। সত্যিই সবার চিঠিই অসাধারণ ছিলো। সবাইকে অভিনন্দন ও অনেক অনেক ভালোবাসা।
    আর আমরা যারা পুরস্কার পেলাম না তাদের জন্যও ভালোবাসা অংশগ্রহণ করার জন্য। পাশাপাশি ব্লগ কর্তৃপক্ষের প্রতি কৃতজ্ঞ এত সুন্দর একটি ম্যাগাজিন উপহার দেবার জন্য। আর পেছনে থেকে যে ৪ জন সবকিছু কঠিন হাতে সামলালেন তাদের প্রতিও কৃতজ্ঞতা।
    এভাবেই হাটি হাটি পা পা করে সোনেলা এগিয়ে যাক এই কামনা করি।

    • শুন্য শুন্যালয়

      অনেক ধন্যবাদ নীহারিকা আপু। চিঠির ফলাফল মূখ্য নয়, প্রতিযোগিতা আর ম্যাগাজিন ঘিরে আমরা যেই আনন্দ করলাম তা সত্যিই বড় প্রাপ্তির। কষ্ট তো কাউকে কাউকে করতেই হয়, সবার আনন্দে সেটা পুষে যায়।
      তবে ই ম্যাগাজিন বা প্রতিযোগিতা নয়, আমরা চাই সোনেলা সবসময় এমন উতফুল্ল থাক।
      নববর্ষের শুভেচ্ছা আপু।

  • মেহেরী তাজ

    প্রথম থেকে পঞ্চম স্থান দখল করা চিঠি গুলোর প্রত্যেকটিই আসলে একটা প্রতিযোগিতায় কিছু না কিছু পুরস্কার এর দাবি রাখে। সেগুলোর স্থান কোন বিষয় নয়। আমি এই ফলাফলে সন্তুষ্ট।
    বিচারক মন্ডলীদের অসংখ্য ধন্যবাদ “বিশেষ পুরস্কার ” নামে এই বিশেষ সংযোজন টুকুর জন্য। কারন এই অংশের প্রত্যেকটি চিঠিই ( নিজের লেখা আছে বলে নয়। বরং আমার কাছে রম্য বিভাগে ব্লগার সজীব এর চিঠি বেশি পছন্দ) প্রতিযোগিতায় টপ পজিশনে না থাকলেও অন্যরকম/ ভিন্নরকম এবং গুরুত্বপূর্ণ।

    ই-ম্যাগাজিন ডাউনলোড করে, পড়ে, দেখে বলবো।

    এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারী সকল শ্রদ্ধেয় সহ-ব্লগার ভাইয়া ও আপুকে অসংখ্য ধন্যবাদ। সেই সাথে অসংখ্য ধন্যবাদ এই প্রতিযোগিতার আয়োজক ও সার্বিক কাজের সাথে সংশ্লিষ্ট সকল ভাইয়া ও আপুকে।
    অক্লান্ত পরিশ্রম করে আমাদের জন্য এতো সুন্দর একটি আয়োজনের জন্য আপনাদের সকলকে একটা করে গোলাপ উপহার। -{@ -{@ -{@ -{@
    আশা করি আমাদের সোনেলা ভবিষ্যতেও আমাদের জন্য এমন কিছু আনন্দঘন আয়োজন করবে।
    সবায় কে নববর্ষের শুভেচ্ছা।

    • শুন্য শুন্যালয়

      পিচ্চি ভূত দেখি বড়দের মতো সুন্দর আর অভিজ্ঞ মন্তব্য দিলো। 🙂
      আমি কোথায় যেন এক মন্তব্যে বলেছি আমাকে দশবার সিলেক্ট করতে দিলে আমি প্রত্যেকবার ভিন্ন ভিন্ন নাম নেবো। অংশগ্রহণটাই সবচাইতে বড় ব্যাপার এটা গ্রহণ করার ক্ষমতা আমাদের সোনেলা ব্লগারদের আছে।
      ই ম্যাগাজিন নিয়ে মন্তব্যের অপেক্ষায় রইলাম বুবু।
      সোনেলার সকল ব্লগার চাইলে নিয়মিত হবে এমন। তোকেও অভিনন্দন বিশেষ পুরষ্কারের জন্য -{@

  • ইঞ্জা

    অভিনন্দন নীলাপু, নীরা সাদিয়া আপু সহ সকল বিজয়ীদের, অসাধারণ এই প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহন করতে পেরে খুব আনন্দিত বোধ করছি, ভবিষ্যতে এই ধরণের আয়োজন আরো হোক এই কামনা রইল, সোনেলার সকলকে আমার আন্তরিক ধন্যবাদ।

    শুভ নববর্ষ। -{@

    • শুন্য শুন্যালয়

      শুধু এমন আয়োজন করলেই হবেনা রূম্পা আপু। ব্লগারদের সহযোগিতা এবং নিয়মিত পদচারণা চাই, যা এখন পর্যন্ত অপ্রতুল। নববর্ষের শুভেচ্ছা রইলো।

      • রুম্পা রুমানা

        আমি অলস এনং ফাঁকিবাজ। তবুও যে আপনাদের এতো ভালোবাসা পাচ্ছি তা সত্যিই
        আমাকে অবাক করে। গত চার পাঁচ মাস ধরে পরিবারের কেউ না কেউ অসুস্থ। হাসপাতাল , বাসা , ডাক্তার এসব করে কিছুই ঠিক রাখতে পারছিনা। গত মাসের ২৩ তারিখে ভাইয়ের ছেলে হয়েছে। সাত মাসেই ওর মায়ের শারিরীক জটিলতায় সিজার করাতে হয়েছে। এখনও বাবুর তেমন উন্নতি হচ্ছেনা। গত ২৩ দিন ধরে হাসপাতালে আছি। পুরো পরিবারই দুশ্চিন্তায়। এসবের ভেতর আরও মানসিককক্লান্তিতে পেয়েছে। আমি নিয়মিত হয়ে উঠবো। তবে ধীরে ধীরে। সবাইকে ধন্যবাদ । ধন্যবাদ দারুণ এই আয়োজনে যারা যুক্ত আছেন সবাইকে। শুভ নববর্ষ।

      • শুন্য শুন্যালয়

        সময় করেই আসুন আপু কোন সমস্যা নেই। সবার আগে পরিবারের প্রতি দায়িত্ব কর্তব্য। আমরা আপনার চাইতে বেশি ফাঁকিবাজ তাই ব্লগিং এ ব্যস্ত থাকি। 🙂
        শুভকামনা সবসময়ের জন্য। নিয়মিত লিখুন। আপনার লেখার হাত অসাধারণ আপু।

  • ইকরাম মাহমুদ

    অবশেষে প্রকাশিত হলো সোনেলার বৈশাখ। বৈশাখী দিনে সোনেলার সবাইকে শুভেচ্ছা আর নির্বাচিত লেখকদের অভিনন্দন। আমার নির্বাচিত দুটো চিঠিই চতুর্থ স্থান অধিকার করেছে। শুভেচ্ছা জানাচ্ছি নীলাপুকেও।

  • গাজী বুরহান

    নিজেরে সমবেদনা জানাই, কি আর করার!! ^:^

    নীলাপু ফার্স্ট প্রাইজ পেয়েছেন তাতেই মহা খুশি। যারা পুরস্কৃত হয়েছেন এবং যারা পান নাই তাদের সবাইকে অভিনন্দন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণের জন্য।

    নববর্ষের শুভেচ্ছা সবাইকে -{@

  • জিসান শা ইকরাম

    অবশেষে সমাপ্ত করতে পারলেন একটি বড় কাজ। চিঠি প্রতিযোগিতার ঘোষনা, বৈশাখ নিয়ে লেখার ঘোষনা, চিঠি বাছাই, চিঠি সংশোধন, চিঠির জন্য ছবি নির্বাচন, প্রচ্ছদ তৈরী করন, ম্যাগাজিনের লেখা সংশোধন, চিঠির স্থান নির্বাচন, সব শেষে ই- ম্যাগাজিন প্রস্তুত ও প্রকাশ, বিশাল এক কর্মযজ্ঞ সফল ভাবে সমাপ্ত করলেন আপনারা কয়েকজন। সব কিছুই কত কষ্টসাধ্য ছিল তা আমি জানি ভালভাবেই। হিসাবহীন কর্মঘন্টা ব্যয় করেছেন আপনারা এ জন্য। আপনি নিজে পরীক্ষার মধ্যেও এসব করেছেন। সোনেলার সমস্ত ব্লগারদের পক্ষ থেকে আপনাদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি আন্তরিক ভাবে। আর আমার পক্ষ থেকে অভিনন্দন আর কৃতজ্ঞতা।
    আপনি এবং আপনারা আপনাদের সক্ষমতা প্রমান করেছেন। সোনেলা সংশ্লিষ্ট যে কোন বড় ধরনের কাজ যে আপনারা সম্পন্ন করতে সক্ষম, এই বিশ্বাষ আপনাদের উপরে জন্মেছে।
    ভাল থাকুন নতুন বছরের প্রতিটি দিন।

    • শুন্য শুন্যালয়

      এতো কষ্ট তখনই সফল হবে যখন সবাই হাসিমুখে আপনার মতো করে তা গ্রহণ করবে। সবার ভালো লাগলে তবেই এই কষ্ট সফলতা পাবে। ম্যাগাজিনের জন্য প্রহেলিকা খেটেছে অনেক। আমি বা আমরা সহায়তা করেছি। তবে ব্লগারদের সহযোগিতা না থাকলে সেটা সম্ভব হতোনা। ম্যাগাজিন এবং চিঠি প্রতিযোগিতা ঘিরে আমরা অনেক মজা করেছি এটাই সবচাইতে বড় ব্যাপার। আপনি সহ আয়োজকদের অনেক অনেক ধন্যবাদ।
      আপনিও ভালো থাকুন নতুন বছরের প্রত্যেকটি দিন। -{@

  • নীলাঞ্জনা নীলা

    যদি আমি বলি প্রতিযোগিতায় প্রথম হয়ে খুশী হইনি, তাতে মিথ্যে বলা হবে। আবার এও সত্যি পুরষ্কার পাবার জন্য লিখিনি। সম্মানিত বিচারকমন্ডলী এবং সোনেলা নীড়ের পাখীরা আপনাদের সবাইকে জানাচ্ছি হার্দিক শুভেচ্ছা। কখনোই ভাবিনি আমার প্রিয় শমশেরনগর চা’ বাগানকে আপনারা সবাই এতোটা আবেগের সাথে গ্রহণ করবেন।
    বিচারকদের জন্য বিশাল কঠিন পরীক্ষা ছিলো। সত্যি বলতে কি এ প্রতিযোগিতায় অসাধারণ সব চিঠি পড়ার সুযোগ পেয়েছিলাম। আমি যথেষ্ট এলোমেলো হয়ে গিয়েছিলাম। বিচারকদের অবস্থা আরও কতোটা খারাপ হয়েছিলো সাধারণ একজন পাঠক হিসেবে সেটা অনুভব করছি। তবে কথায় আছে না, “যার শেষ ভালো, তার সব ভালো!”
    ম্যাগাজিনটা দারুণ হয়েছে। ভাবছি আমি এটা প্রিন্ট করে বাধাই করবো। ডাউনলোড করেছি। 🙂
    আশা করি ভবিষ্যতেও এমন প্রতিযোগিতা হবে। যাঁরা পুরষ্কার পেতে যাচ্ছেন, তাঁদেরকে অভিনন্দন। আর মন খারাপ করবেন না যাঁরা পাননি। আগামীতে নিশ্চিত পাবেন। হয়তো ভাবছেন পেয়েছি বলে এভাবে বলতে পারছি। না পেলেও এভাবেই বলতাম, পাওয়ায় আমার উচ্ছ্বাস কম, আমাকে যারা চেনে তারা সকলেই জানে।
    সবাইকে শুভ নববর্ষের শুভেচ্ছা। সকলেই ভালো থাকুন, সুস্থ থাকুন। -{@

  • ইলিয়াস মাসুদ

    এত সুন্দর একটা ই-বুক হয় !!!! সত্যি আমি ভাবতেই পারিনি,অসাধারন!!
    বোষ্টন লগন ইয়ার পোর্টে বসে লিখেছিলাম দেশে যাবো তাই, এখন মনে হচ্ছে ইস একটু সময় নিয়ে যদি অনেক করে লিখতে পারতাম একটা চিঠি!!!! খুব মিস করছি এখন
    যাঁরা এই ইবুকের সাথে নির্মান কাজে যুক্ত ছিলেন তাদের জন্য খুব কষ্ট হচ্ছে এই ভেবে যে কি পরিমান পরিশ্রম তাঁরা করেছেন আমাদের লিখা গুলো নিয়ে,এত ভুল ভাল লেখার সম্পাদনা যিনি করেছেন তাঁকে ধন্যবাদ দিতে লজ্জা হচ্ছে, প্রচ্ছদ থেকে শুরু করে সাজানো গোছানো অসাধারণ হয়েছে,এত বড় মনের সব মানুষ সোনেলাতে আছে দেখে নিজেকে ধন্য মনে হচ্ছে এই ভেবে যে আমিও সোনেলার একজন।
    চিঠি ব্যাপারটাই এমন যে আবেগে টুই টম্বর হয়,তাই প্রতিটা চিঠি ছিল দারুণ, সব লেখক কে আমার মনের গভীর থেকে শুভেচ্ছা।
    আমার কাছে লিখাটায় প্রধান ,তাই প্রথম দ্বিতীয় ব্যাপার মনে হচ্ছে না,তবুও যেহেতু প্রতিযোগিতা ছিল তাই এতাই নিয়ম।
    ভুলে ভালে ভরা আমার যা তা লিখা কে যাঁরা এমন রুপ আর স্থান দিয়েছেন তাঁদের জন্য নিংড়ে দিলাম ভালবাসা। সবাই খুব খুব ভাল থাকুন -{@

    • শুন্য শুন্যালয়

      মাসুদ ভাইয়া আপনার মন্তব্য পেয়ে সবাই যতটুকু কষ্টই করুক তা পানি হয়ে যাবে। আসলে এই মন্তব্য বা ভালোলাগাটুকুর জন্যেই তো এতো কষ্ট! সোনেলার সকলের পদচারণা অক্ষুণ্ণ থাক।
      প্রতিযোগিতায় স্থান সত্যিই কোন গুরুত্ব রাখেনা, অন্তত আমাদের সোনেলায় নয়। সবাইকে নিয়ে উৎসবে মেতে থাকা কিছুদিন, এইতো।
      এভাবে প্রকাশ সত্যিই মুগ্ধকর, ভালো থাকুন আপনিও ভাইয়া।
      শুভ নববর্ষ। -{@

  • চাটিগাঁ থেকে বাহার

    অসাধারণ বললে কম বলা হবে! (y)
    অসাধারণের চেয়েও বেশী কিছু করে দেখালো প্রিয় সুনেলা ব্লগ। সম্ভব হয়েছে কিছু উদ্যোমী, ত্যাগী ও সৃষ্টিশীল ব্লগারের কল্যাণে। পরিশ্রম বিহীন কোন কিছুই সফলতা পায় না।
    এতো ভালো লাগছে যে তা অক্ষরের মাধ্যমে বুঝানো যাবে না। তবে একটি মিসটেক ধরা পড়েছে আমার চোখে। হয়তো খেয়াল করা হয়নি।
    ম্যাগাজিনে পৃষ্টা নং দেয়া হয়নি। আমার মনে হয় এটা সংশোধন যোগ্য।
    সংশ্লিষ্ট সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ। -{@ -{@ -{@

    • শুন্য শুন্যালয়

      বাহার ভাই পৃষ্ঠানাম্বার ইচ্ছাকৃতই বাদ দেয়া হয়েছে। প্রত্যেকটি লেখার সূচিতে ক্লিক করলেই নির্দিষ্ট লেখায় যাওয়া যাবে আবার ফিরে আসা যাবে কাজেই পৃষ্ঠানাম্বারের প্রয়োজন পড়বেনা মনে করি।
      ম্যাগাজিনটা সবার ভালো লাগলেই আমরা খুশি। পরিশ্রম করতে কোন অসুবিধা নেই যদি আপনারা কো অপারেট করেন। নিয়মিত হোন, ব্লগ মাতিয়ে রাখুন। লিখে, অন্যদের উৎসাহ দিয়ে সোনেলার পাশেই থাকুন। শুভনববর্ষ ভাই।

      • প্রহেলিকা

        অসতর্কতাবশতঃ নয়, তৎকালে এটি দেয়া প্রায় অসম্ভব ছিল বলেই দেয়া হয়নি। চাঁদেরও কলংক থাকে। আর চাঁদের কলঙ্ককেও সৌন্দর্যেরই একটি অংশ মনে হয়।

    • চাটিগাঁ থেকে বাহার

      ভাইজান আমি এটাকে কলংক বলতে রাজি নই। এতবড় কঠোর পরিশ্রমলদ্ধ একটি কাজে কিছু ভুল থাকতেই পারে। তবে এটা অসংশোধন যোগ্য নয়। ওয়ার্ড ফাইলে পেজ নং দিয়ে পিডিএফ করে রিপোষ্ট বা এডিট করলে মনে হয় করা যেতো। অবশ্য আপনারা দরকারী মনে করলে। 🙂

      • প্রহেলিকা

        উপরে শূন্য আপুও বলেছে পরে আমিও বলেছি যে এটি, ভুল বা অসতর্কতাবশতঃ নয়, যে সংশোধন করা হবে। আর আপনার জ্ঞাতার্থে জানাচ্ছি, বইয়ের প্রতিটি পেইজে অলঙ্করণ করা। সাধারণ ডকুমেন্টের মতো পেইজ নাম্বার ইন্সার্ট করে দিলে তা হয়ে যাচ্ছে না বলেই, আপাতত ইহা সংশোধনযোগ্য নয়। অন্তত এই অধম কারিগরদ্বারা এ সম্ভব নয় বলে দুঃখ প্রকাশ করছি।

  • মনির হোসেন মমি(মা মাটি দেশ)

    কোন ভাষায় প্রকাশ করার মতো নয়।এমন একটি আয়োজন সোনেলা কর্তৃপক্ষকে অবশ্যই ধন্যবাদ দিতে হয়।আর যারা এ কাজে অক্লান্ত শ্রম ও মেধা সময় দিয়েছেন তাদের কাছে মজুরী হিসাবে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি। -{@

  • সঞ্জয় কুমার

    বইয়ের প্রচ্ছদ । চিঠির বর্ণনা অনুযায়ী আবহ চিত্র । সবকিছুই অসাধারণ ।

    আমার একটা ছোট্ট প্রস্তাব আছে । পুরষ্কার হিসাবে এই বইটি কেমন হবে ? এটা বিবেচনা করার জন্য ব্লগ কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি ।

  • প্রহেলিকা

    অবশেষে ঘোষিত হলো বহুল আকাঙ্খিত ফলাফল। নিজে অংশগ্রহণ করতে না পারলেও সেই শুরু থেকেই উপভোগ করছি সোনেলার এই প্রতিযোগিতাকে। ব্লগকর্তৃর্পক্ষকে ধন্যবাদ সৃষ্টিশীল এমন উদ্যোগ গ্রহণ করার জন্য। অদূর ভবিষ্যতেও এমন উদ্যোগ জারি রাখবেন এই আশা রাখছি।

    প্রতিযোগিতায় বিজয়ী এবং অংশগ্রহণকারী সকলকে প্রানঢালা অভিনন্দন। ফুলেল শুভেচ্ছা। নীলাঞ্জনা নীলা আপার চিঠিটি প্রথম স্থান অধিকার করাতে বেশ আপ্লুত। এমনটা যেন কাঙ্খিত ছিল। বিজয়ী সকলের লেখাগুলোই ছিল স্ব স্ব স্থানে ভাস্বর।

    সর্বোপরি সাধুবাদ জানাই সকলকে। সকলের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ না থাকলে প্রতিযোগিতা বা ম্যাগাজিন এতটা উপভোগ্য হতো না।

    পরেরবার এমন আয়োজনে পুরস্কার নিতে বদ্ধ-পরিকর এই অধম।
    শুভকামনা সকলের জন্য।

    • শুন্য শুন্যালয়

      হ্যাঁ ভাই, যে করেই হোক পুরষ্কার চাই ই চাই। আপনি সেকেন্ড পজিশনের জন্য চেষ্টা কইরেন। প্রথমটা আমার, আর নীলা আপু পাঁচ এর বাইরে, ঠিক আছে? 🙂
      সবার অংশগ্রহনে সত্যিই কিছু আনন্দময় সময় কাটালাম, ধন্যবাদ ব্লগ কর্তৃপক্ষকে। কৃতজ্ঞতা আপনাকেও কঠোর ধৈর্য্য আর পরিশ্রমের জন্য।

  • ব্লগার সজীব

    প্রথমে ধন্যবাদ দিচ্ছি এমন সুন্দর একটি ই-ম্যাগাজিন উপহার দেয়ার জন্য।প্রতি পাতায় যাই আর এর অঙ্গসজ্জা দেখে মুগ্ধ হয়ে যাই। আমাদের সোনেলার ম্যাগাজিন। এত সুন্দর ই-বুক আমি এই প্রথম দেখলাম। নিয়মিত এবং অনিয়মিত অনেক ব্লগারকে এক সুতায় গেথে ফেলার জন্য সোনেলা ব্লগ টীমকে প্রানঢালা ধন্যবাদ আবারো।
    বিজয়ী সবাইকে অভিনন্দন। আমার কাছে আসলে কোন বিজয়ী মুখ্য নয়। এখানে বিজয়ী হয়েছে সোনেলার ব্লগারদের আন্তরিকতা। আমরা যেমনটা চেয়েছিলাম প্রথম থেকে তেমনই একটি আনন্দময় পরিবেশ পেয়েছি এই চিঠি প্রতিযোগিতা আয়োজনের জন্য। বিশেষ করে পাঠকদের নির্বাচনের যে পোষ্ট তা এতই আনন্দমুখর ছিল যে, সোনেলার ইতিহাসে এটি একটি মাইলফলক হিসেবে গন্য হবে।
    নববর্ষের শুভেচ্ছা জানবেন প্রিয় আপু -{@

    • শুন্য শুন্যালয়

      সজু ডার্লিং তোমারে তো পাইলামই না ইতিহাসের পাতায়। ফাঁকি দিয়া দুইখান কমেন্ট দিয়াই ভাগছো। তবে সত্যি খুব মজা হয়েছে। নিয়মিত ব্লগাররা মাতিয়ে রেখেছিল অনেকটা দিন।
      ম্যাগাজিন টা আসলেই অসম্ভব সুন্দর হয়েছে, আমারো নীলাপুর মতো বাঁধাতে ইচ্ছে করছে দেখি পারি কিনা। দেশ থেকে করলে অবশ্য ভালো হয়। এখানে প্রিন্টিং এর ম্যালা খরচ, আমি গরীব মানুষ। 🙁
      নববর্ষে বিল্লির সাথে কই কই ঘুরলা সজু ডার্লিং?

      • ব্লগার সজীব

        দুমুঠো ডালভাতের জন্য অনেক পরিশ্রম করতে হয় আপু, সময় পাইনা আজকাল তেমন। তবে চোখ ঠিকই থাকে সোনেলার দিকে। ইচ্ছে থাকলেও পাঠকের নির্বাচনের পোস্টে আড্ডা দিতে পারিনি 🙁
        আমারো প্রিন্ট করে বাঁধানোর ইচ্ছে আছে। দেখি পাড়ি কিনা। অস্ট্রেলিয়ায় এত খরচ কেন? আমি এক কপি পাঠিয়ে দেব নাকি? 🙂
        বিল্লিকে নিয়ে নববর্ষে আমার আর ঘোরা হল না আপু, একটি পোস্ট দিয়েই জানাই সবাইকে আমি কেমন আছি?

      • শুন্য শুন্যালয়

        আরে আরে মন খারাপ করছো কেন? শোন ব্লগ হচ্ছে ফাঁকিবাজদের জায়গা। যাদের খেয়ে দেয়ে কাজকর্ম নেই তারা ব্লগিং করে, আর যারা কাজকর্ম করে তাদের খোঁচায়, তুমি কষ্ট নিওনা।
        বিল্লি কে নিয়ে ঘুরতে পারো নাই তাতে কী, ম্যাগাজিন বাঁধাই করে বিল্লিকে উপহার দিও। সে খুশি না হয়ে শিং মাছ ধরিয়ে দিলে আমার কিন্তু কোন দোষ নাই। লেখা দিও সময় হলেই।

  • লীলাবতী

    সোনেলার বৈশাখে প্রকাশিত সমস্ত লেখার লেখকদের জানাচ্ছি শুভেচ্ছা। লেখা জমা দেয়ার আগ্রহ ছিল সবার। এই আগ্রহ দেখেই খুশি হয়েছি আমি। চিঠি প্রতিযোগিতায় অংশ গ্রহনকারী সমস্ত পত্র লেখকদের অভিনন্দন জানাই।
    আফসোস আমার কোন লেখা নেই 🙁
    সোনেলার হয়ে এত বড় গুরুদায়িত্ব নিজের কাঁধে নেয়ার জন্য আপনাকে ধন্যবাদ দিচ্ছি আপু। আপনি আপনার যোগ্যতা এবং সক্ষমতার প্রমান দিয়েছেন সার্থক ভাবে।

    • শুন্য শুন্যালয়

      হ্যাঁ ম্যাগাজিন, চিঠি প্রতিযোগিতা কোথাও তোমাকে পেলাম না। 🙁 মিস করেছি। পরেরবার লীলাবতীর সময় অনুযায়ী সবকিছু হবে, ঠিক আছেনা? মন খারাপ করোনা।
      মজা করেছি ম্যাগাজিন, প্রতিযোগিতা ঘিরে এইতো এটুকুর জন্যই এতোকিছু। পুরষ্কার দেবার দিন তোমার উপস্থিতি চাইই চাই, মনে থাকে যেন।

  • আগুন রঙের শিমুল

    ই বুক পড়লাম, চমৎকার হয়েছে। বিশেষ করে ডিজাইনার ইজ আ জিনিয়াস (3 লাভড ইট। চিঠিগুলোতে ড্রয়িংগুলান দেইখা বুকের ভেতর মোচড় মারছে লিটারেলি 🙂
    প্রহেলিকা র অসমাপ্ত চিঠির লিগা আক্ষেপ থাইকা গেল – অসম্ভব প্রতিভাবান লোক। ঝামেলা হইলেও শেষ করা উচিৎ ছিলো, আম্রারে বঞ্চিত করা ঠিক হয় নি 🙁
    সকল পুরষ্কার প্রাপ্তদের শুভেচ্ছা, সকল অংশগ্রহণ করাদের জন্য একবুক ভালোবাসা।
    নির্বাচকদের স্পেশাল থ্যাঙ্কস (3

  • মৌনতা রিতু

    সজুর মাথার চুল কেউ ছেড়োরেএএএএ। এমুন সময় রেজাল্ট আর ঝগড়া শুরু যে, মেমন সোনাকে চল্লিশ দিনের জন্য ক্যাডেটে রেখে আসলাম তারপর রিয়ানের পরীক্ষা শুরু। আজ ইংরেজী পরীক্ষা। ঝগড়া আর মজা কিছুই নিতে পারছি না।
    হুম, শুন্য যাদের পুরষ্কার ও পজিশন নিয়ে ভাবনা ছিল, তাদের কথাতে অযথা কেন মন খারাপ করব! বিড়ালের উপর রাগ করে মাটিতে ভাত খাওয়া আর কি!
    শোনো, পরীক্ষা শেষ হোক আসতেছি। :@

  • প্রহেলিকা

    @ব্লগার সজীব

    সজীব ভাইকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি, আপত্তিকর শব্দগুলোর বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানানোর জন্য।

    ব্লগার অপার্থিবের প্রথম করা মন্তব্যের যে অংশটুকু নিয়ে আমি আপত্তি জানিয়েছিলাম অংশটুকুর কথা আমিও আমার প্রথম মন্তব্যের জবাবেই বলেছিলাম। নির্বাচিত ব্লগাররা যেহেতু নির্বাচকদেরদ্বারা নির্বাচিত সেখানে আপনার মন্তব্য, নির্বাচিতদের উল্লাসকে ম্লান করে দেয়।

    এখানে প্রহেলিকা নির্বাচিততো নয়ই এমনকি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণকারীও নয়। সহব্লগারদেরকে নির্বাচিত হওয়াকে প্রশ্নবিদ্ধ করার প্রতিবাদ জানিয়ে ছিলাম যা সম্পুর্ন অর্থহীন মনে হচ্ছে। কারন আমি যাদেরকে সহব্লগার বলে ডেকেছি তারা ব্লগার এর সাথে “সহ” শব্দটার মুল্য বুঝতে পারেনি। যার কারনে আপনি ব্যতীত সকলে সহব্লগার থেকে পিছুহেটে নিরব দর্শক হিসেবে উপনীত হয়েছেন। এই সকল নিরব দর্শকদেরও ধন্যবাদ জানাই। শুভকামনা জানাই অবশ্যই এজন্য যে, তারা যেন শান্তিপ্রিয় নিরব দর্শক হয়ে থেকে বিরাট বড় লেখক লেখিকা হতে পারেন। আর সোনেলা ব্লগ যেন এমন শান্তিপ্রিয় হয়েই থাকে।

    ব্লগার অপার্থিবের ব্যবহৃত কটু শব্দগুলো প্রয়োগের প্রায় ২৪ঘন্টা পেরিয়ে গেলেও যখন ব্লগের মডারেশন টিম বা আমার সহব্লগার আদলে নিরব দর্শকদের কোনো প্রতিবাদ পাইনি সেখানে আমি আমার করা সকল মন্তব্যই উহ্য করে নিলাম। তবে আপনার প্রতিবাদকে এই ক্ষুদ্র প্রহেলিকা সম্মান জানায় সজীব ভাই।

    বাদবাকি সকল নিরব দর্শকদের জন্য শুভকামনা। টিনের চশমা পরা আহামরি কিছু না আমার জন্য।

    • মৌনতা রিতু

      না, প্রহেলিকা আমি নিরব দর্শকদের তালিকাতে নই। প্রচন্ড ক্ষ্যাপা এক মানুষ আমি। আমি তো অপার্থিবের মন্তব্য পড়ে ব্লগ ছেড়েই দিতে চেয়েছিলাম। কিন্তু আমার এই নিরব আচরনে নীলা আপু, শুন্য জিসান ভাইয়া খুব কষ্ট পেতেন।
      ভুলও বুঝতেন।
      যাইহোক, অনেকেই অনেক কথা বলে। তাই এই বিষয়টাতে আর কথা বাড়াতে চাই না।
      জুলফিকার অফিসে বসে মাঝে মাঝে ব্লগে ঢোকে। উনি যে এই বিষয়টা এখনো দেখেননি, এটাতেই আমি অনেকটা শান্তি পাচ্ছি। তবে হয়ত ব্লগ ছেড়েই দিতে বলতো।

    • ব্লগার সজীব

      প্রহেলিকা ভাইয়া, সবার হয়ে আমিই উত্তর দিচ্ছি। সবাই টিনের চশমা চোখে দিলেও চশমায় দুই চোখের সামনে চোখের মাপের ছিদ্র আছে। সবাইই সব কিছু দেখছে। এতে অংশ নেয়নি মুলত তর্ককে আর আগ বাড়াতে দিতে চাননি কেহ। দুজনের তর্ক বেশ উপভোগ্যও লাগছিল। কিন্তু কয়েকটি শব্দে আমি আপত্তি দিয়েছিলাম কারণ এর পরে ব্যাক্তি আক্রমনের দিকে যেতে পারে। যা কোনমতেই কাম্য নয় আমার এবং আমাদের কাছে।
      আপনাকে ধন্যবাদ যে আপনি এটির সমাপ্তি টেনেছেন।

    • নীলাঞ্জনা নীলা

      প্রহেলিকা আমি নীরব দর্শক হয়ে দেখছিলাম, বলতেই পারেন। তবে খুব সত্যি একটা কথা, আমি যদি এই আলাপে ঢুকতাম, তাহলে বারোটা বেজে যেতো। রেগে গেলে নিজেকে কন্ট্রোল করতে পারিনা। তাই যতোটা পারি চুপচাপ থাকি। হাসি এবং হাসানোর চেষ্টা করি। একটা কথা বলবো রাখবেন প্লিজ? মন খারাপ করবেন না। তাহলে লেখা পাবো কোথায়?

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

সাম্প্রতিক মন্তব্যসমূহ