#চলতি জীবন ঘটনা বহুল —
#চেনা জানা কৈশোরের উজ্জ্বল দিনগুলি কে মনে নিয়ে ছিমছাম গোছানো এ শহরের অতিপরিচিত রাস্তায় হেঁটে বেড়াতে অনাবিল এক আনন্দ !! কিছুক্ষন আগে বাজার করতে গিয়েছিলাম আম্বরখানা বাজারে |

বাসার জন্য চাল -মাছ -তরকারি কিনলাম ; হয়তো আরও মাত্র কয়েকটা দিন পর মা-বাবার নিত্য প্রয়োজনীয় শপিং করার আর নিয়মিত সুযোগ পাব না |

মা এখন একটু সুস্থ | খুব ভাল হত যদি লং টাইম নিয়ে থাকতে পারতাম _মায়ের সাথে | কিন্তু তা খানিকটা অসম্ভব বলা চলে |তারপরেও যতক্ষণ আছি মা -বাবার সাথে গল্প করে ইনজয় করার চেষ্টা করছি |
বিলেতের ব্যস্ত জীবনে দেশের এই তরতাজা মাছ গুলো খুব মিস করি |একদম খাঁটি দেশি মাছ কিনলাম -স্থানীয় জেলেদের মাছ |

দেশের এই তরতাজা মাছগুলো বিলেতে কোন ভাবেই পাওয়া যায় না | ওখানে সব বরফের মাছ | আমার খুবই পছন্দের খাবার মাছ -দেশে আসার পর থেকে নিয়মিত খাবারে তালিকায় মাছের মেনুটা আছে |

মাছের বাজারের পর একটা স্টোশনারি শপে ডুকলাম-আমি দেশে আসলেই দেশের লাল-সবুজের পতাকা দিয়ে তৈরী একটা চাবির রিং সব সময় কিনি-পাল ব্রাদার্স থেকে ; এটা আমার ব্যক্তিগত গাড়ির চাবির সাথে থাকে| এই রিং টার দিকে থাকলে দেশ টাকে ফিল করি |এবার তাদের এখানে চাবির রিং যে রকম চেয়ে ছিলাম এরকম পাই নাই |এই দোকানটিতে তুলনা মূলক ভাবে কোয়ালিটির জিনিষ পাওয়া যেত |
প্রায় প্রতি বছরই আমাকে কোন না কোন কাজে দেশে আসতে হয় |গত ঈদে পাঞ্জাবি নিয়ে খুব ঝামেলায় পড়েছিলাম ; বিলেতে বেশির ভাগ পাঞ্জাবি -পাকিস্তানী স্টাইলের কোর্তার মত -কিছু কিছু আবার আরাবিয়ান স্টাইলের তোফা | যা আমি মোটেই পছন্দ করি না |কাজেই সময় বের করে কয়েকটা পাঞ্জাবি কিনতে বের হয়েছিলাম |দেশীয় পাঞ্জাবির জন্য আমার সাইজ একটু বড় ৪৮ | এটা একটা বিরাট সমস্যার কারণ |

ব্যক্তিত্ত্ব আর রুচি বোধের প্রতিছবি হলে সাজ-পোষাক |স্থান-কাল-জায়গা ভেদে পোষাক সিলেকশনটা জরুরি |
অনেক কষ্ট করে রুচিশীল কালার ও কোয়ালিটি সব কিছু মিলিয়ে ৫ টা পাঞ্জাবি কিনলাম-নিজের জন্য |
আমাদের দেশের বেশির ভাগ মানুষ একটু খাট হওয়ায় এখানে বিগ সাইজের কাপড় তুলনা মূলক ভাবে কম |অথচ বাংলাদেশের তৈরী বিগ সাইজের কাপড় গুলো বিলেতের সব বড় বড় শপিং সেন্টার গুলোতে নিয়মিত পাওয়া যায় শুধু আমাদের দেশীয় পাঞ্জাবি ছাড়া |

পাঞ্জাবি বিলেতে পড়ার সময় কোথায় ?? মূলত জুম্মার নামাজ ও ঈদের নামাজে পাঞ্জাবি পড়া হয় | আমি যতই ব্যস্ত থাকি শুক্রবারের জুম্মার নামাজটা মিস করি না | এটা আমি সহও আমার বন্ধু মোনায়েম, কামরুলের পুরানো একটি ভাল অভ্যাস বলা যায় |

দেশ থেকে বিলেতে নেওয়ার মত আরেকটা জিনিস হল-খাঁটি চামড়ার পেন্টের বেল্ট | যা তুলনা মূলক ভাবে লন্ডনের চেয়ে আমাদের -দেশে বিভিন্ন ব্রান্ডের নামে ভাল জিনিস পাওয়া যায় |যা মূলত বিভিন্ন কোম্পানিগুলো আমাদের মত দেশগুলি থেকে তৈরী করেই -নিয়ে বিশ্ব মার্কেটে বাজার জাত করে |এটার জন্য আমার আরেক বন্ধু রাহির (খাসদবির এলাকার -যদিও সে এখন লন্ডন থাকে-একটু পরিবর্তিত হয়ে গেছে ) ;পরিচিত এক দোকান থেকে ভাল মানের খাঁটি লেদারের কিছু বেল্ট কিনলাম |
এবার দেশে এসে যে জিনিসগুলো খুব চোখে পড়ার মত নোটিশ করেছি ; রাজনীতি নিয়ে সাধারণ মানুষের কোনচিন্তা ভাবনা নাই ; নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম সাধারণ মানুষের সাধ্যের ভিতরে থাকায় -মনে হয় তাই ?

তবে সাধারণ মানুষের ধারণা সকারকে বেকায়দায় পেলতে জামাত ও তাদের সাঙ্গ-পাঙ্গরা দেশে জঙ্গি-টঙ্গী হামলা করছে |সাধারণ মানুষ গুলো খুবই ঘৃণার চোখে রাজাকারের আন্ডা_বাচ্চাদের দেখছে |
এবার আসি সিলেট প্রসঙ্গে –
এটা নির্দ্বিধায় বলা চলে -শুধু কাজীর বাজার সেতু ছাড়া -সিলেটের উন্নয়ন চোখে পড়ার মতো অর্থ মন্ত্রী তেমন কিছুই করতে পারেন নাই | বিশেষ করে ঢাকা – সিলেট হাইওয়ে ৮ লাইনে কিংবা ৬ লাইনে করার, এই অঞ্চলের মানুষের প্রাণের দাবি |

নাম-মাত্ৰ সিলেট আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরের অবকাঠামো এখনও আশানুরূপ হয়নি | এবিষয়ে ছোট খাট একটি ভিডিও ডকুমেন্টারি আছে,গ্রামীণ ফোনের কচ্ছব গতির ইন্টারনেটর কারণে ইচ্ছা থাকার পরেও পোস্ট করতে পারতেছি না, তবে সময় পেলে লন্ডন গিয়ে ভার্চুয়াল জগতে পোস্ট করব |

তবে বিদ্যুৎতের সমস্যা বর্তমান সরকার ১০০ ভাগ সফলতার সাথে করতে সক্ষম হয়েছে | লোডশেডিং এখন খুবই কম হয় |

অনেক কিছুতে স্বার্থ থাকে না | যেমন এই ব্যক্তিগত লেখাগুলি কেন লেখি ? এখানে কোন স্বার্থ নাই !! শুধু মাত্ৰ নিজের সাথে নিজের বিনোদন আর বিবেকের জিজ্ঞাসার কারণেই লেখা |

 

২২৮জন ২২৮জন
0 Shares

৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য