ঘৃণা

নীলকন্ঠ জয় ২৪ অক্টোবর ২০১৪, শুক্রবার, ১২:৫৪:৪২অপরাহ্ন কবিতা, মুক্তিযুদ্ধ ১৭ মন্তব্য

ঘৃণা দেখতে চাও,ঘৃণা?
যে জননীর স্তন পান করে বেড়ে উঠেছো,
কোলে পিঠে করে বড় হয়েছো
সেই জননীকে ধর্ষকের হাতে তুলে দাও
অথবা
ধর্ষককে বুকে টেনে নাও,
বিলাপ করো রক্তচোষা বাদুরের জন্য;
তোমার নগ্ন বিবেকে একদলা থুথু ছিটিয়ে
আমি তোমায় ঘৃণা দেখাবো
যে জননীর নাভিমূল ছিন্ন-করে পৃথিবীর আলো দেখেছো
সেই জননী তোমায়
ঘৃণা দেখাবে ঘৃণা।

ভালোবেসে যে বোনটি তোমায় রাখি পরিয়ে দিলো
সেই বোনটিকে
অথবা
ভালোবেসে যে প্রেয়সী তোমায় বুকে টেনে নিলো
সেই প্রেয়সীর সম্ভ্রম
তুলে দাও লুটেরার হাতে
বিলাপ করো সেই শকুনের জন্য;
তোমার পৌরুষত্বের অহংকারে লাথি মেরে
আমি তোমায় ঘৃণা দেখাবো
লাখো লখো ধর্ষিতা তোমার উলঙ্গ চেতনায়
মুঠো মুঠো ঘৃণিত বাষ্প ছড়িয়ে
ঘৃণা দেখাবে ঘৃণা।

ঘৃণা দেখতে চাও, ঘৃণা?
শহীদ জনকের কিংবা ভাইয়ের রক্তে-
পা ভিজিয়ে, অস্তিত্বের ইতিহাসকে পুরনো অধ্যায় আখ্যা দিয়ে
ক্রন্দন করে বুকে টেনে নাও পুরনো শত্রুকে।

মাঝে মাঝে আকাশও স্তব্দ হয় বিস্ময়ে
তোমাদের মতো কুলাঙ্গার দেখে এ বিবেক
বিস্মিত হয়নি কখনো,
প্রার্থনা করেছে শুধু-
নষ্ট বাতাসে উড়ে আসা ডিম্বানুতে জন্ম যাদের,
তাদের জন্য মুঠো মুঠো ঘৃণা ছড়িয়ে পড়ুক
তারুণ্যের অন্তরে
অস্তিত্বে
যৌবনে …

শুনেছি
মায়ের স্নেহ ঢেকে রাখে পশুদেরও পাপ
এই পশুদের মায়েও দিবে অভিশাপ।।

৬৫৪জন ৬৫৪জন
0 Shares

১৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য