ঘুমিয়েছে আমাদের অন্তর্গত অলীক শহর

দীপংকর চন্দ ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৬, শুক্রবার, ০১:২৭:৪৭পূর্বাহ্ন বিবিধ ১৫ মন্তব্য

ধুমিযেছে আমাদের অন্তর্গত অলীক শহর1

 

বিশ্বাস করুন আমিও ভাবি প্রায় প্রতিদিন কবিতা সম্পর্কে

কেনই বা ভাববো না বলুন যা বুঝি না তাকে পুঁজি করে দুচার কথা বলতে না পারলে কেমন যেন অস্বস্তি হয় খাবার যেন হজম হয় না ঠিকঠাক দক্ষযজ্ঞ শুরু হয় মনের ভেতর দুপুরের ভাতঘুম তথৈবচ সারারাত প্রায় নির্ঘুম কাটে

আমার মনে হয় অযথা কথাবার্তা অন্তত আজ এখানেই শেষ করা উচিত না হয় আবার শুরু করা যাবে অন্য কোনদিন যখন ঘন কুয়াশার আড়াল সরিয়ে শেফালি পাতার খসখসে সবুজে সদ্য জন্ম নেয়া লাজুক সূর্য বসে থাকবে চুপচাপ অপার্থিব আশ্চর্য সময়ের সোনালি বহমানতা ছুঁয়ে

স্থিরাগমনের আগে নির্মোহ নদীর নিস্তরঙ্গ জলের ধারে ভিড় জমাবে অচঞ্চল চড়ুই ব্যস্ত বাবুই পাখিরা দল বেঁধে আসবে ধোপাধোয়া কাপড় পরে চিন্তায় ভ্রু কুঁচকে এরপর কি বলা যায় ভাবতে ভাবতে পার করবে অনেকটা সময়

পাখিদের ঘরবুনন দক্ষতা শিল্পবোধের সহজাত প্রাচুর্য নির্মাণ কৌশলের প্রাণোচ্ছ্বাস আমাকে ব্যাকুল করে এবং চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দেয় আমার অপরিপক্বতা অসফলতা অসহায়ত্ব ব্যর্থতা বারবার দেখিয়ে দেয় চলার পথে কতোটা খুইয়েছি আমি উদভ্রান্তের মতো দিগভ্রষ্টের দীনতাগুলো আমাকে বিমূঢ় করে দেয় ব্যথিত করে মনোকষ্টে আমি ভারাক্রান্ত থাকি ইতঃস্তত পদরেখা আঁকি শতো দীর্ঘশ্বাস ফেলে রাখি নিরানন্দ নিস্তব্ধতায়

আমি জানি ফেরার তাড়াবিহীন জীর্ণ জড়তায় পেরোনো হবে না আমার তেপান্তরের নিষ্প্রাণ নির্জনতা শূন্য খাতার শুভ্রতায় অন্ধকার বাসা বাঁধবে লেখা হবে না শেষঅবধি একটি শব্দও প্রতিভারহিত অক্ষমতায় স্পর্শবঞ্চিত থাকবে উপমা রূপক প্রতীক অলংকার এবং কবিতাও যা আদতে কবিতা নয় যতি উচ্ছেদিত অনির্ণেয় পর্ব বিভাজনে

এই তো

কবিতা সম্পর্কে কী আর বলবো নতুন করে

প্রচ্ছদ: শিবু কুমার শীল।
প্রকাশক: বিশ্ব সাহিত্য ভবন।
স্টল নং : ২৫৩-২৫৪-২৫৫-২৫৬

সকলের আর্শীবাদ এবং ভালোবাসা প্রার্থণা রইলো।

বিনীত।

৩৯৩জন ৩৯৩জন
0 Shares

১৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ