গ্রামীনফোনের মহা ধোঁকাবাজি…..

সনেট ২৫ অক্টোবর ২০১৪, শনিবার, ০২:৩৯:৫০অপরাহ্ন বিবিধ ১৫ মন্তব্য

একটা কম্পানির পক্ষে কতটা ধোঁকাবাজি করা সম্ভব তার কিছু নমুনা দেখিয়ে যাচ্ছে গ্রামীণফোন। বাংলার ডিজিটাল ইস্ট ইন্ডিয়া কম্পানি বছরের পর বছর আমাদের রক্ত চুষে খাচ্ছে অথচ আমরা নিরব। কি করার আছে? সবাই যে চোর… জিপি অন্যদের থেকে সার্ভিসের দিক দিয়ে ভালো তাই এটাই ইউজ করি।। এতদিন সত্যিই অন্যদের থেকে ভালো ছিলো কিন্ত এখন!!!!!!! এদের অত্যাচারে আমাদের ভোগান্তির শেষ নেই। জিপির এই অত্যাচার আকাশ ছুঁয়ে গেছে…… ভুগেই চলেছি.. আর ভুগেই চলবে আমার মত কোটি কোটি বেচারা। ধান্দাবাজির সিমা অতিক্রম করেছে…. চলুন কিছু নতুন ধান্দাবাজির কথা বলি…..

পাঁচ কোটি গ্রাহক ধান্দা…..
জিপির পাঁচ কোটি গ্রাহক হতে তখনও অনেক দেরি। কিন্ত জিপি ডেস্পারেট, তাকে পাঁচ কোটি পুরাতেই হবে।। আর এই ধান্দায় দফায় দফায় ফ্রী নেট দিতে লাগলো। কিছুই করতে হতোনা খালি কানেক্ট করলেই ফ্রী চলতো তাও আবার ফুল স্পীডে… ইচ্ছা করেই দুর্বলতা রেখে দিত যেন মানুষ ফ্রী নেট ইউজ করতে পারে।। এর ফলে কিছু গ্রাহক বৃদ্ধি হলো।।।।
এবার জিপি গ্রাহক বাড়ানোর জন্য দফায় দফায় বন্ধ সিম চালু আর নতুন সিম কেনার জন্য বড় বড় ইন্টারনেট বোনাস দিতে লাগলো। আরো বাড়লো গ্রাহক…….
টার্গেট অফার নামে নামমাত্র দামে ইন্টারনেট দিলো। সেই ইন্টারনেট আরো একটিভ গ্রাহক বাড়ালো….
এবার জিপি সবচেয়ে বড় চাল চাললো, ফ্রী ফেসবুক দিয়ে দিলো সব ডিভাইজে।। ব্যানার, পোস্টার, বিল বোর্ড, টিভি আর পেপারে এত্তগুলা পাবলিসিটি।। তার চেয়ে বড় ফেসবুক ভর্তি ফ্রী ফেসবুকের পোস্ট, ফ্রী পাবলিসিটি।।। জনগণ তো সেই খুশি….. কিন্ত এগুলো তো সবই ফাঁদ।। পরে গেলাম সেই ফাঁদে।।।।

এ তো ছিলো পাঁচ কোটি হওয়ার ধান্দা। এবার চলুন দেখি লোভনীয় অফার দিয়ে কিভাবে ভোগাচ্ছে গ্রাহকদের। আর ভোগান্তি মানেই টাকা…..

ফ্রী ফেসবুক ও ফেসবুকের ভুয়া প্যাকেজঃ
পাঁচ কোটি হওয়ার সাথে সাথে বন্ধ করে দেওয়া হলো ফ্রী ফেসবুক। কোন রকম নোটিশ না দিয়েই। ফলে অনেকের না জেনেই ফেসবুক চালিয়ে সব টাকা ডাটা গচ্চা গেছে। এভাবেই কোটি কোটি টাকা কামিয়ে নিলো জিপি। ফ্রীয়ের পরিবর্তে চালু হলো দুটো ফেসবুক প্যাকেজ।। একটা ৯টাকায় আর একটা ১৫টাকায়… দুটো প্যাকেজেই FUP আছে। ৯টাকার প্যাকেজে ৪১mb শেষ হলেই স্পীড হবে ৮কেবি আর ১৫টাকার প্যাকেজে ৮৫mb পার হলেই স্পীড হবে ১৬কেবি…. যা চালানোর অযোগ্য।। সোজা কথায় বললেই পারত এর লিমিট এত…. কিন্তু না উনাদের লোভ দেখাতে হবে যে।।।।।।

নতুন FUP…….
ক্লিক প্যাকেজে ২০mb আর অন্য প্যাকেজে 200mb এর বেশি ব্যবহার করা যাবে না।। যারা ঐ টার্গেট অফারের সময় ডাটা বাঁচিয়ে রেখেছিলেন তাদের বাঁশ দেওয়া জন্য এই নিয়ম।। আমার ৫টা সিমে প্রায় ৪জিবি ডাটা আছে কিন্ত এই ধান্দাবাজির জন্য ইউজ করতে পারছিনা।
আচ্ছা তাও মেনে নিলাম কিন্ত তাদের কথা আর কাজের তো মিল নেই। ডাটা ভলিউম শেষ হতেই স্পীড কমিয়ে টুজি করে দেওয়া হচ্ছে।। কিন্ত এটা তো কথা ছিলো না।।
ফেসবুক প্যাকেজে ফেসবুক ছাড়া অন্য সাইট আলাদা ভাবে কাউন্ট হওয়ার কথা। কিন্ত সেখানেও ফেসবুকের FUP অন্য সাইটে লাগিয়ে স্পীড কমিয়ে দিচ্ছে।।। অথচ অন্য সাইটে ঐ লিমিট পর্যন্ত ফুল স্পীড থাকার কথা।।

ফ্রী Whatsapp……
প্রচন্ড লোভনীয় অফার। কিন্ত আদৌ কি ফ্রী??? টাকা বা ডাটা রেখে আপলোড দিন তো দেখুন ফ্রী কিনা!!! ৮০% ফাইল আপলোডে ডাটা বা টাকা কাটা হয়, আবার টাকা ডাটা না থাকলে ৮০% ফাইল আপলোড হয় না।। আবার এই ফাইল গুলো ডাউনলোডেও চার্জ হয়…..
মনে করবেন টাকা বা ডাটা রাখবেন না??? ঐযে প্যাকেজ ভলিউম শেষ হলেই স্পীড কমিয়ে দেবে। আর এভাবে ফ্রীয়ের নামে কোটি কোটি টাকা Whatsapp থেকে কামাচ্ছে জিপি…..

বন্ধ সিম ধোকাবাজিঃ
শর্তমতে সিম চালু করার সময় ১১টাকা রিচার্জ করলেই তিন মাসে মোট ১জিবি দেওয়া হবে। প্রথম দুইমাস ২৫০mb করে দেওয়া হলেও শেষ মাসের ৫০০mb দেওয়া হয়নি। কাস্টোমার কেয়ারে কল দিলে বলা হয় আপনাকে প্রতি মাসে ১১টাকা রিচার্জ করতে হতো। না করার জন্য আপনি পান নি। অথচ সেই বিজ্ঞাপনের পেপার কাট এখনো আমার কাছে আছে। সেখানে কোথাও লিখা নেই যে প্রতিমাসে ১১টাকা রিচার্জ করতে হবে। আর যদি তাই হবে তাহলে দ্বিতীয় মাসে না রিচার্জ করে কিভাবে ডাটা পেলাম???

ভূতুরে ভাবে সার্ভিস চালু হওয়াঃ
প্রায় জনেরই অটোমেটিক বিভিন্ন সার্ভিস চালু হয়ে যায়। বন্ধও হতে চায় না। এর জন্য প্রতিদিন আপনাকে চার্জ করা হয়। কাস্টোমার কেয়ারে বললে আপনাকেই ব্লেম করবে।।। এতে করেও টাকা কামিয়ে নিচ্ছে জিপি।।

উপরে মাত্র কয়েকটা বিষয় তুলে ধরলাম এরকম আরো অনেক বিষয় আছে। বছরের পর বছর এভাবেই চলছে অবৈধ ব্যবসা।।। আমরা তো মাগনা ইউজ করছি না। টাকা দিয়েই ইউজ করছি, তার উপর আবার এভাবে ভোগান্তির মধ্যে ফেলে কামাই না করলেই কি নয়???
আপনাদের কি মনে হয় না এসব নিয়ে আন্দোলন করা উচিৎ?? অনলাইনে করলেও কিন্ত কাজ হবে। যথেষ্ট হয়েছে এদের অত্যাচার। এবার শিক্ষা দেওয়ার সময় এসেছে…..
কিন্তু না বঙ্গালী বলে কথা। জুতা মেরে মোজা দান করলেই চুম্মা চাটি দিতে শুরু করে।।
ফেসবুক বন্ধ করার পর যে লাখ খানেক সিম বন্ধ হয়েছিলো তা আবার চালু করার জন্য ৭৫mb ফ্রী দিচ্ছিলো। আর এটাই পেজে পেজে আর স্ট্যাটাসে স্ট্যাটাসে ফ্রী পাবলিসিটি করছিলো জনগণ। দুদিন আগে যে এত বড় বাঁশ দিলো তা ভুলেই গেলো।। লজ্জা শরমের অভাব যেই জাতির তাদের জীবনেও উন্নতি হবে না।। অন্যরা সারাজীবন এটারই সুযোগ নেবে।। এভাবেই যুগে যুগে বাঁশ খেতে থাকবে বঙ্গালী।।

৯৪জন ৯৪জন
0 Shares

১৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন