প্রথমে তাদের বিদেহী আত্ত্বার মাগফিরাত কামনা করছি।

ছেলেটিকে দেখতে মনে হয় অনেক বয়ষ্ক কিন্তু না সে স্বাধীনতাত্তোর বংশধর।বয়ষ পয়তাল্লিশ হবে।সে অত্যান্ত মেধাবী ছিল।সদা হাসি চঞ্চলতা লক্ষ্য করা যেত তার চলনে বলনে।মিজমিজির পশ্চিম পাড়ার স্হায়ী বাসিন্দা সে।সূত্র মতে জানা যায় বেশ কয়েক বছর আগ থেকেই নজরুল ছিল স্হানীয় আওয়ামিলীগ থানা পর্যায়ে বয়োজেষ্ঠ নেতাদের কাছে বেয়াদব নজরুল নামে পরিচিত।বয়সের কারনে হউক কিংবা ম্যানেজ করার অজ্ঞতার কারনে হউক নজরুলকে মুরুব্বিরা মেনে নিতে পরেননি তাদের নেতৃত্ত্ব স্হানে।জানা মতে এক বার নূর হোসেন এবং মৃত আঃ রব চেয়ারম্যান এবং ইকবাল গ্রুপের ইকবাল সাহেব এবং সে ইউপি চেয়ারম্যান পদে দাড়ান সে সময় হোসেনের জনপ্রিয়তা তুঙ্গে জেল থেকে সে পাশ করে এদিকে নজরুল নিজেকে স্ব ঘোষিত চেয়ারম্যান পাস মনে করে প্রগতি সংসদে অথাৎ সাবেক উপজেলা মহাসচিব এবং এম পি গিয়াস উদ্দিন সাহেবকে মিষ্টিমূখ করান।

তখন থেকেই নজরুলের রাজনৈতিক অঙ্গনে জুড়ে সূরে বিচরণ।তরপর নেতৃত্ত্বের উথ্থান পতনে নজরুলের থানা লীগ পর্যায় বিচরণ করেন।তারুন্যের উম্মাদে কিছু নেতা তার প্রতি ক্ষুদ্ধ হতে থাকেন।

আমাদের দেশে সম্ভবত ‘৯০ এর পর হতে রাজনিতী নামক সূবিদাবঞ্চিত আন্দোলনগুলোকে রাজনৈতিক নোংরামীর থাবায় তা এখন আমজনতার কাছে ঘৃণিত নিষ্প্রোজন হয়ে দাড়িয়েছে।যদি কেউ রাতা রাতি নব্য জমিদার হতে চাও তবে রাজনিতী করো।যেমন ট্রাক হেলপার নূর হোসেন নজরুল হত্যার মূল আসামী নুন আনতে পানতা ফুরাতো জানা মতে সে প্রতিদিন কম পক্ষে পঞ্চাশ লক্ষ টাকা ইনকাম করত।তার আছে বিশাল চদাঁ তোলার ট্রান্সপোর্ট বাহিনী ছিল শিল্প এরিয়া অঞ্চল।প্রত্যাক শিল্পকারখানা হতে সে পেত মোটা অংকের মাসিক মাশোহারা।জীবনে কোটি পতি হতে আর কি চাই বলেন।জানামতে নজরুলের গুম হওয়ার কিছু দিন আগেও আদমজী ইপিজেটের জুট নামানো নিয়ে হোসেনের সাথে দ্বন্দে জড়িয়ে পড়ে এ ব্যাপারে বেশ কয়েক জন কে হেস্ত নেস্তও করেন হোসেনের গ্রুপ।এ ছাড়া সিদ্ধিরগঞ্জ বিদুৎ কেন্দ্রের নতুন ৩৩৫ মেঃওয়াট সাইটের কাজের তদারকির নেতৃত্ত্ব নিয়েও নজরুল-হোসেনের দন্দ চলতে থাকে।নজরুলের গুমের পিছনে আরো একটি কারন থাকতে পারে গত সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে নজরুল প্রকাশ্যে আইভির পক্ষে কাজ করেছিল এবং হোসেন ছিল শামীম ওসমানের পক্ষে সেই সূত্রে হয়তো নজরুল ছিল তাদের শক্ত প্রতিপক্ষ।ANY HOW DOWN HIM.এই সব লোক মূখে জানা তথ্য হলেও সত্যতো কিছু বটে।নজরুলের আগাম সতর্কবানী গুমের আগে নজরুল ক্ষমতাসীন দলের উচ্চ পর্যায়ে দৃষ্টি পাত করান।ছয় আসামীর সঙ্গে নজরুলের কেন বিরোধ

দন্দ যাই থাকুক প্রশাসনের নাকের ডগায় এমন সাত জনের গুম হত্যা একজন সাধারন নাগরিক হিসাবে মানতে নারাজ।আদমজী ইপিজেটে বিশাল এলাকা জুড়ে স্হায়ী অবস্হান করছে এলিট ফোর্স ১১ পাশেই রয়েছে সিদ্ধিরগঞ্জ থানা।হয়তো অপরাধী কিংবা দন্দে ছিল হোসেন-নজরুল কিন্তু আরো যারা গুম এবং হত্যা হল এডভোকেট চন্দর সরকার,স্বপন এরা কি দোষ করেছিল?চন্দনের দোষ কি সে হাইজ্যাক দেখে ফেলেছিল বলে?তাহলে তার ড্রাইভার সে কেনো এমন চক্রে হত্যা হলো?আর সরকার কি করছিল তার আইনশৃংখলা বাহিনী কি বসে বসে কলা খেয়ে কলার খোষায় পথযাত্রীর মরণদশা দেখতে রেখেছিল সে রাতে হঠাৎ সব প্রশাসনে রদ বদল করে সরকার জনগণকে কি বুঝাতে চেয়েছেন ভূলে গেলে চলবে না দূ পক্ষকই ছিল সরকারদলীয় লোক।প্রসঙ্গত, একটু পিছনে তাকালে বুঝা যাবে ক্ষমতাসীন সরকারের আইনশৃংখলা কোথায় গিয়ে দাড়িয়েছে রিজওয়ানা হাসানের স্বামী আবু বক্কর গুম,২০১২ সালের ১৭ এপ্রিল রাতে বাসায় ফেরার পথে বনানীতে গাড়ি থামিয়ে ইলিয়াস আলী ও তাঁর গাড়ির চালককে ধরে নিয়ে যায় অজ্ঞাতনামা ব্যক্তিরা। এর পর থেকে তিনি ও গাড়িচালক নিখোঁজ রয়েছেন।তারা জীবিত না মৃত আছেন তা এখন শুধুই অজানা।ব্যাবসায়ীক গুম এর পর নজরুল সহ সাত জন লাশের হদিস পেতে না পেতে সানাড় পাড় হতে আরো এক ব্যাবসায়ীক গুম এবং প্রশাসন তাকে জীবিত উদ্ধারের বাহবা কামান অল্প সময়ে কিন্তু কে বা কারা করল তা রয়ে গেল অজানাই।আমার কছে মনে হলো প্রশাসন শাখ দিয়ে মাছ ঢাকতে চেষ্টা করেছিল মাত্র।অকর্ম প্রশাসন প্রশাসন আজ দুপুরে লাগাত কথিত গুমের প্রধান আসামীর বসত বড়ীটি এত দিন পর সার্চ করে একটি রক্তাক্ত মাইক্রোবাস পায় আসামী মনে হয় ইচ্ছে করেই ধরা খাওয়ার জন্যই রেখেছিল তার বাড়ির আঙ্গিনায়।সাথে কয়েকজন অজানা ব্যাক্তিকে এ্যারেষ্ট করেন এটা কি আগামীকাল রোববারের ডাকা হরতালকে নিষ্কীয় করার জন্য নাকি সত্যিই অপরাধীদের নিমূর্লের সময় তা বলে দিবে।

মুক্তিযুদ্ধের স্বপক্ষের শক্তি হিসাবে বর্তমান ক্ষমতাসীন দল হিসাবে আওয়ামিলীগের কাছে আমাদের চাওয়া পাওয়াও একটু বেশীই তাই কোন রাজনৈতিক দল কি করল কিংবা কি করেছিল তা না ভেবে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী অবশ্যই তাহার শাসনে আমাদের আর নিরাশ করবেন না এইটুকুই আশা রাখি। দল গড়তে হয় নিজদের নিয়ে আর দেশ গড়তে সবাইকে নিয়ে ।জয় হোক মানবতা।

লাখো মানুষের ঢল নেমেছিল মরহুম নজরুলের জানাজায়

২২৭জন ২২৭জন
0 Shares

১৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য