গা ঘেঁষে দাঁড়াবেন না!!

কথাটা কি অযৌক্তিক?রাস্তায় বের হলে বোঝা যায়।পুরুষ নামক কতোগুলো লোক কতটুকু ফাঁক রেখে দাঁড়ায়!
অনেক আগের কাহিনী বলি।আমার বাসা থেকে কলেজের দূরত্ব ছিলো ৫০ কিলো।বাসভাড়া ছিলো ২০টাকা।আব্বা বলতো, ভাড়া কম!তুমি মেয়েদের সিটে না বসে,টু সিট ভাড়া নিবে।আমার মেয়েদের সিটে বসলে মাথা ঘুরায়!ওদিকে একসিটের টাকা বাঁচালে মাসে একটা জামাও নেয়া যায়। কি আর করা!একসিট নিই।আর জানালার দিকটা ফাঁকা রাখি।কন্ডাক্টর ছেলেদের পাঠায়,ঐ যে আপা বসে আছে,তার পাশে গিয়ে বসো।স্বভাবতই ছেলেরা ভিতরে বসতে চায়না!আর আমি আরামে বসে আসি!কিন্তু মাঝপথে যখন লোক উঠায়।বাসের ভিতরের ফাঁকা জায়গাটাও লোকে গিজ গিজ করে।এইবার যায় কোথা!বাস হেলুক আর না হেলুক ওরা গায়ের উপর পরার চেষ্টা করে।
আব্বা খুব সচেতন ছিলেন।উনি সেফটিফিন সাথে নিতে বলতেন।এবার সেফটিফিনের মুখ খুলে ওদের দিক করে রাখি।আর বাবাজিরা হেলতো না।
শান্তি শান্তি বলতে বাড়ি চলে আসতাম!!
পিছন থেকে কন্ডাক্টর বলতো,আপার বাড়ি বগুড়া!
শুনতে যা ভালো লাগতো!!
এবার মেয়েরা একটু মুখেই বললো বা টি শার্টে কথাটা লাগালো,খারাপ কি?
ওদের ধন্যবাদ।নীরব প্রতিবাদ! হয়তো এরকম প্রতিবাদ করতে গিয়ে নুসরাত হতে হবে।।তবুও কাউকে না কাউকে পথ দেখাতে হয়।।

নারীও মানুষ।।💜💜

৩৯৭জন ৩০১জন
2 Shares

১৩টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য