খোলা চিঠি

বোকা মানুষ ২৪ মার্চ ২০১৪, সোমবার, ০২:০৪:১২পূর্বাহ্ন গল্প, সাহিত্য ১০ মন্তব্য

প্রিয়বরেষু জীবন,

 

জন্ম লইবার পর হইতে নানা চড়াই উৎরাই পার হইয়া আজ এক অদ্ভুত বাঁকে আসিয়া দাঁড়াইয়াছি।

 

এই পর্যন্ত আসিবার পথে আমি বহু সংগ্রাম দেখিয়াছি, বহু আনন্দ বেদনার অভিজ্ঞতা লাভ করিয়াছি, বহু সাথী পাইয়াছি, অনেককে হারাইয়াছি। প্রাচুর্যে দিনাতিপাত করিবার পর নিদারুণ অর্থকষ্টে পড়িয়াছি, আবার তাহা হইতে বাহির হইয়া নিশ্চিন্ত সচ্ছলতার শান্তিও উপভোগ করিয়াছি। হোঁচট খাইয়াছি অনেকবার, কিন্তু উঠিয়াও দাঁড়াইয়াছি। ভালবাসার অভাবে হাহাকার ভরা গোপন অশ্রু সংবরণ করিয়াছি, আবার ভালবাসায় অবগাহন করিয়া আপ্লুতও হইয়াছি।

 

কিন্তু আজ এই অদ্ভুত বাঁকে আসিয়া কিংকর্তব্যবিমূঢ় হইয়া স্থানুবৎ হইয়া স্তব্ধ হইয়া রহিয়াছি। আমার পশ্চাতে তাড়া করিতেছে জীবন-জীবিকার অনস্বীকার্য কঠোর বাস্তবতা। সম্মুখে কানাগলির শেষ প্রান্তে মুখোশ পরা মৃত্যুর প্রেত। দুই পার্শ্বে আশাহীনতার সারি সারি বদ্ধ দ্বারসমূহ। মাথার উপরে দায়িত্বের পাহাড়সম বোঝা।

 

এরূপ অসহায় অবস্থায় আচমকা মানসচক্ষে ভাসিয়া উঠিল পুত্রের কাঁদো কাঁদো মুখ। স্পষ্ট শুনিতে পাইলাম আধো বোলে সে বলিতেছে “বাবা, আমাকে আল বতা দিওনা, সলি বলেতি তো, এবাল আদল কলো……”। দেখিলাম অর্ধাঙ্গিনীর সংগ্রামক্লিষ্ট মুখ, যে সংগ্রাম সে অমিত বিক্রমে করিতেছে আমারই পাশে শক্ত হইয়া দাঁড়াইবার জন্য! মনে পড়িল বৃদ্ধ জনক জননীর আশীর্বাদ ভরা চক্ষুর নিরব ভাষা।

 

আমার চক্ষু এক্ষণ অশ্রুতে পূর্ণ হইয়া উঠিতেছে! এ অশ্রু ভালবাসার, এ অশ্রু মায়ার। আমি অনুভব করিতেছি অশ্রুর শক্তি, ভালবাসার শক্তি, মায়ার শক্তি কি বিপুল, কি প্রবল হইতে পারে! আমি কোমর সোজা করিয়া, বক্ষ টান করিয়া, সম্মুখে দৃষ্টি রাখিয়া ঋজু হইয়া দাঁড়াইতেছি। আমি তোমার পানে আসিতেছি হে জীবন! ক্ষণিক অপেক্ষা কর।

 

ইতি,

 

আমি ফীনিক্স।

২৪/০৩/২০১৪ খৃষ্টাব্দ!

রাত্রি ১২:২৬ ঘটিকা।

২২৩জন ২২৩জন
0 Shares

১০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য