খাদ্য রসিক বাঙালি!

সাদিয়া শারমীন ২৩ জুলাই ২০২০, বৃহস্পতিবার, ০৯:৩৪:৫৬অপরাহ্ন একান্ত অনুভূতি ১৫ মন্তব্য

ভোজন রসিক বাঙালি খাইতে আর খাওয়াইতে বেশ ভালোবাসে। টক,ঝাল,মিষ্টি কত প্রকার রান্না যে বাঙালি জানে তাহার হিসেব মেলা দুস্কর। শুধুমাত্র যদি মিষ্টান্নের কথায় ধরি তাহা হইলে বোধ করি রসগোল্লার নামখানাই প্রথমে আসিবে। রসগোল্লা আর বাঙালি একে অপরের সাথে অতোপ্রতোভাবে জড়িত। রসে টইটুম্বুর রসগোল্লা যখন হাঁড়ির মাঝ খান দিয়া উঁকি ঝুকি মারিয়া তাকায় তখন পেটে ছুঁচোর নৃত্য শুরু হয় বৈকি!
তাছাড়া কালোজাম,চমচম,লংচা, প্যারা,লালমোহন,আমিত্তি,সন্দেশ আরো কত প্রকার মিষ্টান্ন যে বাঙালির মাথায় আসিতে পারে তা ভিন্ন কোনো জাতি আন্দাজ করিতে পারিবে না। মিষ্টান্নের তালিকায় আরেকটি মিষ্টির নামই উল্লেখ করা হয় নি,আর তাহা হইলো জিলেপি। আহা! জিলেপির শুনিলেই যে জিভে কেমন জল আসিয়া যায়!গরম গরম জিলেপি ছাড়া আড্ডাটা ঠিক জমিয়া ওঠেনা। মিলাদ মাহফিল,ইফতার সেইখানেও জিলেপি তার নিজ গুণে স্থান করিয়া নিয়াছে।জিলেপির আরেক ভাই ছানার জিলেপি। রসে ডুবিয়া পেট মোটা ছানার জিলেপি পেটে না ঢুকিলে জীবনটাই যেন বৃথা! যে কোনো আনন্দপূর্ণ পরিবেশে দশজনকে মিস্টিমুখ না করাইলে মান সন্মান যেন আর বাঁচিয়া থাকেনা। তাই বাঙালীর জীবনে নানা পদের মিষ্টান্নের প্রভাব অপরিসীম।
শুধু কি তাহাই ? ঘরে জল খাবার হিসেবেও মা- মাসিদের রন্ধনকৃত বিভিন্ন প্রকারের মিষ্টান্ন যেমন পিঠা, পায়েসের জুড়ি মেলা ভার।হালের মিষ্টান্ন তথা ডেজার্ট হিসেবেপুডিং,জর্দা,শাহীটুকরা,বাকালভা, তুলুম্বা ইত্যাদি বাঙালীর খাদ্য তালিকায় স্থাণ করিয়া লইয়াছে। বাঙালী এতই পেটুক যে, দেশ ও জাতিভেদে মোঘল, তার্কিশ,ইংলিশ,চাইনিজ, থাই সকল প্রকার খানা খাদ্য বিশেষ করিয়া মিষ্টান্ন নিজেদের স্বগোত্রীয় করিয়া নিতে দ্বিধা বোধ করে নাই।তাই বোধ করি অন্যান্য জাতি হইতে বাঙালি জাতি খাদ্য রসিক হিসেবে পরিচিত।

৩২৩জন ২১৫জন
0 Shares

১৫টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য