কয়েকটি হাইকু

আরাফ করিম ২ আগস্ট ২০১৪, শনিবার, ০৯:৪১:০১অপরাহ্ন কবিতা ১২ মন্তব্য

হাইকু এক ধরনের জাপানি কবিতা/ছড়া । যা তিন লাইনেই সীমাবদ্ধ । এই তিন লাইনেই কবি পাঠকের সামনে একটা চিত্র তুলে ধরেন আর পাঠক নিজের কল্পনা বা অভিজ্ঞতার দ্বারা সেটার পুর্নতা দান করেন । হাইকু সম্বন্ধে রবীন্দ্রনাথ তাঁর জাপানযাত্রী বইয়ে লিখেছেন -
“জাপানি বাজে চেঁচামেচি ঝগড়াঝাঁটি করে নিজের বলক্ষয় করে না । প্রাণশক্তির বাজে খরচ নেই ব’লে প্রয়োজনের সময় টানাটানি পড়ে না । শরীর-মনের এই শান্তি ও সহিষ্ণুতা ওদের স্বজাতীয় সাধনার একটা অঙ্গ । শোকে দুঃখে আঘাতে উত্তেজনায়, ওরা নিজেকে সংযত করতে জানে । সেইজন্যেই বিদেশের লোকেরা প্রায় বলে, জাপানিকে বোঝা যায় না, ওরা অত্যন্ত বেশি গূঢ় । এর কারণই হচ্ছে, এরা নিজেকে সর্বদা ফুটো দিয়ে ফাঁক দিয়ে গ’লে পড়তে দেয় না ।

এই যে নিজের প্রকাশকে অত্যন্ত সংক্ষিপ্ত করতে থাকা, এ ওদের কবিতাতেও দেখা যায় । তিন লাইনের কাব্য জগতের আর কোথাও নেই । এই তিন লাইনই ওদের কবি, পাঠক, উভয়ের পক্ষেই যথেষ্ট । সেইজন্যেই এখানে এসে অবধি, রাস্তায় কেউ গান গাচ্ছে, এ আমি শুনি নি । এদের হৃদয় ঝরনার জলের মতো শব্দ করে না, সরোবরের জলের মতো স্তব্ধ । এপর্যন্ত ওদের যত কবিতা শুনেছি সবগুলিই হচ্ছে ছবি দেখার কবিতা, গান গাওয়ার কবিতা নয় । হৃদয়ের দাহ এবং ক্ষোভ প্রাণকে খরচ করে, এদের সেই খরচ কম । এদের অন্তরের সমস্ত প্রকাশ সৌন্দর্যবোধে । সৌন্দর্যবোধ জিনিসটা স্বার্থনিরপেক্ষ। ফুল, পাখি, চাঁদ, এদের নিয়ে আমাদের কাঁদাকাটা নেই । এদের সঙ্গে আমাদের নিছক সৌন্দর্যভোগের সম্বন্ধ-এরা আমাদের কোথাও মারেনা, কিছু কাড়ে না, এদের দ্বারা আমাদের জীবনে কোথাও ক্ষয় ঘটে না । সেইজন্যেই তিন লাইনেই এদের কুলোয়, এবং কল্পনাটাতেও এরা শান্তির ব্যাঘাত করে না ।”

আমার লেখা তিনটি হাইকু ছবিতে বসিয়ে পোষ্ট করলাম । জানি না পাতে দেওয়ার মতন হলো কি না !

[www.arafkarim.tk]

0 Shares

১২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ লেখা

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ