ক্ষেপাটে বিবেক

শিরিন হক ২৪ ডিসেম্বর ২০১৯, মঙ্গলবার, ০৪:৪৫:৪৫অপরাহ্ন কবিতা ২০ মন্তব্য

 

মানুষে মানুষের সেতুবন্ধন কোথায় আজ?
যখন অনাহারে মুখ থুবড়ে পড়ে থাকে পিতার অসাড় দেহ,
তখন তুমি জমকালো রেঁস্তোরায় বুফেতে খোঁজো গরম খাবার।

একটুকরো গরম কাপড়ের অভাবে যখন দেখি
কুঁকড়ে পড়ে আছে রাস্তায় শিশু!
তখন তুমি এ্যালশেসিয়ান কুকুরের জন্য আরাম খোঁজ শপিং মলে!

যখন শিবির হটাও মিছিলে কোনো যুবকের দেহ ব্যাটের আঘাতে আঘাতে রক্তাক্ত।
তখন তুমি হো হো করে হেসে ওঠো!
খুনের উন্মাদনায়।
সন্তানহারা মায়ের আর্তনাদে আকাশ ভারি হলেও সেখানে শকুন ওড়ে রোজ।
অন্ধকারে মুখ থুবড়ে পড়ে থাকে মানবতা!

ক্ষেপাটে বিবেক মাথাচাড়া দিয়ে ওঠার আগেই
নিক্ষিপ্ত হয় আস্তিক নাস্তিকতায়।
ফাঁশির মঞ্চ সাজাও নিজের হাতে।

দুধেভাতে সোনালি স্বপ্নেরা মেরুদণ্ডের হাড় ভেঙে
রক্ত চুষে নেয় প্রতিনিয়ত।
কথা রাখার প্রতিশ্রুতি আকাশের চাঁদ হয়ে আকাশেই থাকে।
ছেলে ভোলানো গল্পের মত।
শুধু উঁচুতলার মানুষের জীবনের বদল হয় আমজনতার জীবনের দামে !

একাত্তরে হানাদারদের হিংস্রতা আজো জেগে ওঠে পুরুষত্বের চাহনিতে।
স্বাধীনতার পতাকা হাতে যে নারী সেও ধর্ষিতা হয়
স্বদেশী ভাইয়ের হাতে।

উঁচু তলার মানুষের চোখ থাকে আকাশের দিকে
পথের ধুলায় মুখ থুবড়ে পড়ে থাকে নিচু তলার মানুষ।
জাতের বিচার করি শুধু জামা আর কাপড়ে।
ভুলে যাই ভ্রাতৃত্ববোধ ভুলে যাই মানবাতা।
রক্তের রং টা লাল জানিনা কার কখন তার প্রয়োজন হবে।
সাড়ে তিনহাত জমিনের ভাগ কেউ না বেশি পাবে।

২৪৮জন ১৩৯জন
62 Shares

২০টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য