কোলাজ ২১

নাজমুল হোসেন নয়ন ২৩ এপ্রিল ২০২১, শুক্রবার, ০৩:২২:৩৪অপরাহ্ন কবিতা ৭ মন্তব্য

একটি কোলাজ

 

যাত্রা ২

 

আমার নাভিমূলে ফোটা রক্তজবা

তোর জরায়ুর জায়নামাজে সন্ধ্যা পূজার প্রদীপ হয়ে জ্বলে।  বাম পাঁজরে স্তনাগ্রের ছোঁয়ায় সেরে ওঠে আমার নিদারুণ আসারতার অসুখ ।

তুই,

আমি,

আর পৃথিবীর,

বহুকৌণিক ত্রিকোণমিতির মানচিত্রে  জেগে উঠুক পৃথিবীর সর্বকালের যুগলদের স্বভূমি।

পৃথিবীর শেষ রক্তজবা টি রুটি হয়ে ফুটক

নবায়নযোগ্য ইশতিহারে পেটের ক্ষুধাই তো

আরাধ্য ভগবান

হে নবজাতক।

 

একটা রুটির ব্যাসার্ধের আনুভূমিক রেখায় কেন্দ্রগামী নীলপদ্ম ।

উপসংহারের বিভাজন রেখা গলে যাচ্ছে আষাঢ়ে তুলোট  রোদে।  আনুভূমিক রেখা বরাবর তুই হাঁটছিস পৃথিবীর নাভিগোলকে ঝুলে থাকা কেন্দ্র।

 

মৃগনাভির সৌরভ যেন বোধের মেঘে স্থির বিদ্যুৎরেখা

এ স্বভূমিকে স্বাদ খাওয়াতে তুই বৃষ্টি হয়ে ঝড়ে পর

হে  নবযৌবন

চুল বেয়ে পালঙ্কে উঠে আসুক

নীল গোখরো। মহাকালের পঞ্চ চাষী লাঙ্গল চালিয়ে দূরত্ব মেপে নিক

তোর,

আমার,

বর্ধিত ব্যাসার্ধ। সারারাত পাশাখেলে আমাকে ধরে ফেলুক মনসার স্পর্ধা। দংশনে আর বিষ ওঠে কই ?

যতটা বোধ দখলে নেয় নিউরন ।

বুকের ঠিক মাঝখানে গজিয়ে উঠুক  হাসনাহেনা, বকুলের বেওয়ারিশ ডালপালা।

অক্ষয়ার  ধাতুপ্রকৃতির আলপথে হাঁটে

বেহুলার ব্রত অথবা অনুমেয় দিগন্ত রেখা ।

আমরা পার হয়ে যাচ্ছি পৃথিবীর প্রথম নিশ্বাসের ওজন নিয়ে

ক্ষুধিত  চিন্তক দের ভাতের থালার দিকে।

১৯১জন ১১১জন
7 Shares

৭টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য