কোথায় যাবো কে দেবে ভরসা?????

মনির হোসেন মমি ৫ ফেব্রুয়ারী ২০১৫, বৃহস্পতিবার, ১১:০১:২৭অপরাহ্ন এদেশ, বিবিধ, সমসাময়িক ১২ মন্তব্য

সংগঠনের সভাপতি বিচারপতি মোহাম্মদ গোলাম রাব্বানী, ভারপ্রাপ্ত সভাপতি শাহরিয়ার কবির ও সাধারণ সম্পাদক কাজী মুকুল কর্তৃক স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে বলা হয়েছিল,………………………………………
(y) কয়েকটি জাতীয় দৈনিকে ভারতীয় মুদ্রা জাল এবং জঙ্গীদের অর্থায়নের জন্য পাকিস্তানের দূতাবাসের একজন কূটনীতিক মোহাম্মদ মাযহার খানের গ্রেফতার এবং ‘কূটনৈতিক সুবিধা’র সুযোগে তাকে থানা থেকে ছাড়িয়ে নিয়ে যাওয়ার সংবাদ আমাদের অত্যন্ত উদ্বিগ্ন ও ক্ষুব্ধ করেছে। আমরা মনে করি এহেন ভয়ঙ্কর অপরাধের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা কোনভাবেই ‘কূটনীতিকের সুবিধা’ পেতে পারেন না। বাংলাদেশ সরকারের উচিত এ বিষয়ে পাকিস্তান সরকারকে কঠোর হুঁশিয়ারি বার্তা পাঠানোর পাশাপাশি উক্ত কূটনীতিকের যাবতীয় মর্যাদা ও সুবিধা বাতিলের দাবি জানানো। পাকিস্তান যদি এই ব্যক্তির কূটনৈতিক মর্যাদা ও সুবিধা বাতিল না করে, ধরে নিতে হবে এ ঘটনা পাকিস্তান সরকার ও তাদের দূতা বাসের জ্ঞাত সারেই ঘটেছে।
(y) দেশের এ বিশিষ্ট নাগরিকরা আরও বলেন, আমরা দীর্ঘকাল ধরে বলছি, পাকিস্তানের সামরিক গোয়েন্দা সংস্থা আইএসআই বাংলাদেশে পাকিস্তানী দূতাবাস এবং বিভিন্ন এনজিওর মাধ্যমে এদেশের জঙ্গীদের অর্থায়ন সহ সব রকম পৃষ্ঠপোষকতা করছে। এ বিষয়ে গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে পাকিস্তানী কূটনীতিক মাযহার খানের গ্রেফতার এবং তাকে দ্রুত ছাড়িয়ে নিয়ে পাকিস্তানে ফেরত পাঠানোর ঘটনা আবারও প্রমাণ করেছে পাকিস্তান এখনও তাদের এদেশীয় এজেন্টদের মাধ্যমে বাংলাদেশকে দ্বিতীয় পাকিস্তান বানানোর চক্রান্ত অব্যাহত রেখেছে।
(y) এছাড়া তোল পাড় চলছে ফেস বুক সহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও। আকবর হোসেন তাঁর ফেসবুক ওয়ালে স্ট্যাটাস দিয়েছেন এই বলে যে, বাংলাদেশে কোন পাকিস্তানী দূতাবাস থাকার দরকার আছে বলে আমি মনে করি না। তবে এই দেশের প্রতিটা মানুষের মনের মাঝে থেকে যেদিন পাকিস্তান নামের ভূত ঝেঁটিয়ে বিদায় করা যাবে, সেদিনই স্বাধীনতা অর্থবহ হয়ে উঠবে। তার আগে নয়। রওশন বলেছেন, ইসরাইলের সঙ্গে আমাদের যেমন সম্পর্ক নেই ঠিক তেমনি ভাবে পাকিস্তানের সঙ্গেও আমাদের সম্পর্ক ছিন্ন করা উচিত। এ ধরনের তৎপরতার কোন ছাড় নাই। আর দেশের নিরাপত্তার স্বার্থে পাকিদের সঙ্গে কূটনৈতিক সম্পর্ক সীমিত করা দরকার… এবং এদেশে পাকিদের ভ্রমণ নিষিদ্ধ করা উচিত…।

উপরের কথগুলো একটি জাতীয় দৈনিক পত্রিকা থেকে নেয়া………এ সব কথার সত্যতা মিললেও ধরি মাছ না ছুই পানি এর মতো তেমন কোন জোড়ালো প্রতিক্রিয়া সাধারন জনগণ কিংবা সরকারের পক্ষ থেকে দেখিনি বরং প্রশ্ন জাগে বাংলাদেশ সরকার তাকে কেনো এত দ্রুত চলে যেতে দিল তার সাথে কারা জড়িত ছিল তার একটি তথ্য জনগণের মাঝে জানানো উচিত ছিল তাতে স্বাধীনতাকামী জনতা উৎসাহ পেতো দেশ গড়ার।তা ছাড়া এতোটা বছর পর এ সব তথ্য কেনো তথ্য মন্ত্রনালয় কিংবা গোয়েন্দাদের নজরে এলো না…..??????যাদের ইন্দোনে শতের উপরে দগ্ধ হয়ে বার্ণ ইউনিটে মরনের সাথে যুদ্ধ করছে ,যাদের জন্য অসাম্প্রদায়িক বাংলায় সাম্প্রদায়িকতার ত্রাস জড়িয়ে দিয়েছে সারা বাংলাদেশে ,তাদের হাতের কাছে পেয়েও হাত ছাড়া করা আমাদের দুর্ভাগ্য।

৩২৮জন ৩২৮জন
0 Shares

১২টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ