কাশফুল কথন

তৌহিদ ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০, রবিবার, ০৯:৪৭:০৯অপরাহ্ন অণুগল্প ৩৯ মন্তব্য

১. জলাঞ্জলি-

চলো কাশবনে যাবো। যেই ভাবা সেই কাজ, চলো চলো এক্ষুনি! কোন পাঞ্জাবি, কোন শাড়ি-চুড়ি এসব বাচবিচার করতেই দিনের অর্ধেক বেলা শেষ। এইবার ভ্রমণ পালা। রিকশায় বসে মনটা খারাপ হয়ে গেলো।

রিকশাচালকের জরাজীর্ণ লুঙ্গি আর গেঞ্জি দেখে কাশের সৌন্দর্য অবলোকন প্রাপ্তির আনন্দকে নিমিষেই জলাঞ্জলি দিলাম আমি।

২. ছবি-

কাশবনের মাঝখানে দাঁড়িয়ে ছবি তুলছি। ক্লিক! ক্লিক!

এই হচ্ছেনা, তুমি একটা গর্দভ। একটা ছবিও ভালো করে তুলতে পারোনা। দেখছো না, এই ছবিতে আমার চিক বোঝা যাচ্ছে! মুখটাও মোটা লাগছে? আবার তুলে দাও।

মনে পড়ে গেলো, নতুন কেনা ক্যানন ডিজিটাল ক্যামেরা দিয়ে যেদিন প্রথম আব্বার ছবি তুলেছিলাম তিনি বলেছিলেন- তোর ছবি তোলার হাত কিন্তু চমৎকার! না শিখিয়ে দিয়েই এত সুন্দর ছবি তুললি!

শুভ্রকাশ এই মুহূর্তে কদাকার হয়ে ধরা দিচ্ছে আমার চোখে।

৩. হাতছানি-

খালিপায়ে একাকী কাশবনে হাঁটার অন্যরকম একটা আনন্দ আছে। চড়ুই, মুনিয়ার কিচিরমিচির শব্দে চারপাশে সবুজ প্রকৃতি। মাথার উপর পেজো তুলোর মত কাশ আর মাঝখানে আমি! স্বর্গীয় অনুভূতি!

একটা কাশের ডগা আমার গাল ছুঁয়ে যেতেই চোখে ভাসে তোমার মায়াবী মুখ! কতদিন আমরা একসাথে কাশফুল দেখিনা! কাশের নরম আলতো স্পর্শে পুলকিত হই, তোমার কাছে যাবার সময় ঘনিয়ে এলো যে!

আকাশের ওপারে তুমি, সেও কি বড্ড দূর!

৩৫৫জন ১২৩জন
0 Shares

৩৯টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য