অমিত বলেছিলো ” লিলি, কোটি কোটি যুগের পর যদি দৈবাৎ তোমাতে আমাতে মঙ্গলগ্রহের লাল অরণ্যের ছায়ায় তার কোন একটা হাজার ক্রোশী খালের ধারে মুখোমুখি দেখা হয়, আর যদি শকুন্তলার সেই জেলেটা বোয়াল মাছের পেট চিরে আজকের এই অপরূপ সোনার মুহূর্তটিকে আমাদের সামনে এনে ধরে, চমকে উঠে মুখ চাওয়া চাওয়াচাওয়ি করব। ”

মাঝখানে অনেক সময় বয়ে গেছে। আজ অমিত আর লাবণ্য মঙ্গল গ্রহে বসে নীল হয়ে যাওয়া বিপদসংকুল পৃথিবীটাকে দেখছে। কৌতূহলী চোখে আঙ্গুল উঁচিয়ে অমিত বললো, লাবণ্য , পৃথিবী খুব থমথমে। মানুষ আজ বিহ্বল। ফুলের গন্ধে নেই মিষ্টতা , আকুলতা।  কি এক হাহাকার !  শুধু অনুজীব নয়। মানুষও তার অহমিকায় ধূলিসাৎ। ক্ষুধা নিরাশা আর আশায় মানুষ টালমাটাল। একটা আতশবাজি পাঠালে কেমন হয় ?  পুরনো সব স্মৃতি পুড়ে খানখান হোক। নিদানকাল কাটছে না মানুষের। সব এলোমেলো। মানবিকতা ঝরে পরছে টুপটাপ। মনে জোর নেই। ভার বহন করতে করতে মানুষ বিভ্রান্ত, ভীত।

লাবণ্য বলে, আশা ছেড়ে দাও। কী করে মেনে নিতে হয়, তা শিখো। পৃথিবীর সব মানুষ একই সময়ে, একই অভিজ্ঞতা অর্জন করছে, এটাই বড়। মানুষ আবিষ্কার করবে নতুন করে। ঐ যে দেখছো, পতেঙ্গায় যে মানুষটি ফানুস উড়িয়ে চমকে দিতো। সব ফানুসগুলো আজ রঙ্গিন ফুল হয়ে ফুটছে। আর ভয়ের ফুরসত নেই। ভয় পেলেই তো তুমি হেরে যাবে।

অমিত বললো, তোমার কী মনে আছে?  ডেডালাস তাঁর পুত্র ইকারুসকে দুটো পাখা বানিয়ে দিয়ে বলেছিলেন, বাবারে, উড়ে পালিয়ে যা এই কারাগার থেকে। তবে, সাবধানে উড়িস। খুব বেশি উঁচুতে উড়লে সূর্যের তাপে পুড়ে যাবি। আর খুব নীচ দিয়ে উড়লে জোয়ারের জল ভাসিয়ে নিয়ে যাবে তোকে।

লাবণ্য বলে, মধ্যযুগে পৃথিবীকে স্পর্শ  করেছিলো গির্জা, ঊনবিংশ শতাব্দীতে রাজপ্রাসাদ আর এখন বাণিজ্যের টাওয়ার। তাহলে বোঝ অমিত , কে কথা বলবে?

অমিত বলে, মানুষের উপর বিশ্বাস হারানো পাপ।

লাবণ্য বলে, আর বিশ্বাস ! এখন আর আবিষ্কার নাই। সবাই সবাইকে পেয়ে গেছে। আছে আত্ম প্রেম, আত্ম তৃপ্তি। উল্লাসে লাফায় ব্যাঙ। আত্মতৃপ্তিতে ভোগা মানুষগুলো একটু একটু করে সত্য বললেই পারে। কিন্তু করে না। কেউ একজন এসে মিথ্যা আলাপগুলো, মিথ্যা সংস্কারগুলো ভেঙ্গে দিতে তো পারে।

অমিত বলে, এখন ঝড়ে সব স্বপ্ন ভেঙ্গে যাচ্ছে। ঝড় থামলে নিশ্চয় বিশাল আকৃতির চাঁদ উঠবে। সেই আশায় মানুষ থাকে। ভবিষ্যতে মানুষ আরও বিবেচক হবে। সব দুশ্চিন্তা কেটে মুখোমুখি এক কাপ চা নিয়ে বসবে। চেনাবে প্রেম, ভালোবাসা, নতুন নতুন আইডিয়া। কবিতা পড়বে আর বলবে ; পৃথিবীতে রাত বলতে কিছু নেই।  ঘুচবে বেদনা। শান্ত ঝিলে জন্ম নিবে নীল পদ্ম।

লাবণ্য বলে, একদিন বৃষ্টি ভেজা সন্ধ্যায় ; সুশীতল বাতাসে, মহাশূন্যে ভাসবে তারকারাজি। ইস !  মায়াবী মানুষগুলোর আজ বিশ্রাম দরকার।

 

★★ উৎসর্গ আবু আল সাঈদকে।

৪৯৮জন ৪০জন
0 Shares

১৪টি মন্তব্য

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য