নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের ১০ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর দুইজন। তাঁরা হলেন, সম্মানিত কাউন্সিলর হাজী মোহাম্মদ ইফতেখার আলম খোকন সাহেব এবং আলহাজ্ব মিনোয়ারা বেগম(মিনা)।

সম্মানিত কাউন্সিলর হাজী মোহাম্মদ ইফতেখার আলম খোকন সাহেব ২০১৬ সালের ২২ ডিসেম্বর নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিপুল ভোটে জয়লাভ করেন। তিনি নারায়ণগঞ্জ করপোরেশনের নির্বাচনের আগে থেকেই নারায়ণগঞ্জ মহানগর আওয়ামিলীগ এর সংগ্রামী সহ-প্রচার সম্পাদক ছিলেন, এখনো ঐ পদে অধিষ্ঠিত আছেন। সম্মানিত কাউন্সিলর হাজী মোহাম্মদ ইফতেখার আলম খোকন সাহেব অমায়িক নম্র-ভদ্র একজন নীতিবান  ব্যক্তিত্বের অধিকারী।

আরেকজন হলেন মহিলা কাউন্সিলর আলহাজ্ব মিনোয়ারা বেগম (মিনা)। তিনি ২০১১ সালের ৫ মে নারায়ণগঞ্জ পৌরসভা, সিদ্ধিরগঞ্জ পৌরসভা ও কদমরসূল পৌরসভাকে বিলুপ্ত করে ২৭ টি ওয়ার্ড সমন্বয়ে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন গঠিত হবার পর যেই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছিল, সেই থেকে অদ্যাবধি মহিলা কাউন্সিলরের স্থানটি উনার দখলেই রয়ে গেছে। সংরক্ষিত মহিলা আসনটি উনার কাছ থেকে আর কেউ কেড়ে নিতে পারেনি। জনপ্রিয়তার কারণে তিনি সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর এখনও আছেন। এই দুইজন কাউন্সিলর (নাসিক) ১০নং ওয়ার্ডের হিন্দু মুসলিম সকলের সুখ-দুখের সাথী এবং ১০নং ওয়ার্ডের গণমানুষের পরম বান্ধব।

আলহাজ্ব মিনোয়ারা বেগম (মিনা) ও কাউন্সিলর হাজী মোহাম্মদ ইফতেখার আলম খোকন সাহেব সিটি করপোরেশন নির্বাচনে নির্বাচিত হবার পর থেকে মাদকের বিরুদ্ধে জেহাদ ঘোষণা-সহ এলাকার উন্নয়নের সাথে এলাকাবাসীর কল্যাণেও দিন-রাত কাজ করে যাচ্ছেন। এলাকায় উন্নয়নমূলক কাজগুলো এই দুইজন কাউন্সিলর মিলেমিশে নিজেরাই দেখাশোনা করছেন। বর্তমানে পুরো নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের সবকটা ওয়ার্ডের মধ্যে ১০ নং ওয়ার্ড হলো উন্নয়নের রোল মডেল। তাঁদের অক্লান্ত পরিশ্রম ও চেষ্টার বিনিময়ে (নাসিক) ১০ নং ওয়ার্ডের রাস্তা-ঘাট, ব্রিজ, পুকুর, হাট-বাজার, খেলার মাঠ, পার্ক, বিশুদ্ধ পানির সুব্যবস্থা-সহ এলাকায় অনেক উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। এছাড়াও তাঁরা এলাকাবাসীর বিচার সালিশে সময় দেওয়া-সহ হিন্দু মুসলিম সকলের ধর্মীয় উৎসবে সাহায্য সহযোগিতাও করে যাচ্ছেন। এসবকিছু (নাসিক) ১০নং ওয়ার্ডের সকালেরই দেখা এবং জানা।

আমি নিজেও আজ থেকে অনেক বছর যাবত সম্মানিত কাউন্সিলর হাজী ইফতেখার আলম খোকন সাহেব এবং সম্মানিত মহিলা কাউন্সিলর মিনোয়ারা বেগম মিনা সাহেবার বাড়ির সাথেই বসবাস করে আসছি। তাই এলাকার আরও অনেকের মতো নিজেও তাঁদের ব্যক্তিগতভাবে চিনি এবং জানি।

সম্মানিত কাউন্সিলর হাজী মোহাম্মদ  ইফতেখার আলম খোকন সাহেব এবং মহিলা কাউন্সিলর মিনোয়ারা বেগম (মিনা)’র বর্তমান সময়ের ঘাতক করোনাভাইরাসের আলামতের দিনে উনাদের অক্লান্ত পরিশ্রম দেখে কিছু লিখতে ইচ্ছে করছে। কারণ, একজন ভালো মানুষের গুনগান গাওয়াও নাকি পুণ্যের কাজ। তাই আজ সম্মানিত কাউন্সিলর হাজী মোহাম্মদ ইফতেখার আলম খোকন সাহেব এবং মহিলা কাউন্সিলর মিনোয়ারা বেগম (মিনা)’র বর্তমান প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস থেকে এলাকাবাসীকে রক্ষা করতে এবং ধৈর্যসহকারে নভেল করোনাভাইরাস প্রতিহত করতে উনাদের নিজ উদ্যোগে গৃহীত কিছু পদক্ষেপের কথা আমার এই লেখায় তুলে ধরছি। কারণ আজ যেখানে দেশের বিভিন্ন জেলাশহরে সরকারের দেওয়া ত্রাণ নিয়ে চুরিচামারি চলছে, সেখানে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ১০নং ওয়ার্ডের সম্মানিত কাউন্সিলর দুইজন দিন-রাত অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন মানুষের কল্যাণে। তাই তাঁদের নিয়ে আমার আজকের এই লেখা। আশা করি সবাই সাথে থাকবেন।

আমরা জানি ২০১৯ সালের শেষদিকে গণচীনের উহান শহরে প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস দেখা দেয়। গণচীনে এই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস দেখা দেওয়ার পর চীনের কয়েক হাজার মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়ে বর্তমানে পৃথিবীর দুই শতাধিক দেশে ছড়িয়ে পড়েছে, এই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস। এরমধ্যে বিশ্বের কয়েকটি উন্নত দেশেরও লক্ষ মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়ে আমাদের দেশে এই ঘাতক করোনাভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। বর্তমানে প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাসের আক্রমণের শিকার হয়েছে প্রায় একহাজারের উপরে।। প্রাণ কেড়ে নিয়েছে অন্তত অর্ধশত।

এ-অবস্থায় দেশের বর্তমান সরকার এই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস প্রতিহত করতে বিভিন্নরকম পদক্ষেপ হাতে নিয়েছে। তারমধ্যে জেলায় জেলায় লকডাউন-সহ সামাজিক দূরত্ব বজায় চলা হলো অন্যতম পদক্ষেপ।

এই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস আমাদের দেশে আক্রমণ শুরু হবার পর থেকেই (নাসিক) ১০ নং ওয়ার্ডের সম্মানিত কাউন্সিলর হাজী মোহাম্মদ ইফতেখার আলম খোকন সাহেব ছিলেন খুবই টেনশনে। তিনি সকাল থেকে শুরু করে রাত অবধি তাঁর গাড়ি নিয়ে এক মহল্লা থেকে আরেক মহল্লায় ছোটা-ছুটি শুরু করেন। প্রতিটি মহল্লায় গিয়ে মুরুব্বিদের সাথে করোনাভাইরাস প্রতিহত করার পরামর্শ ও বিজ্ঞ চিকিৎসকদের দেওয়া দিকনির্দেশনাগুলো বুঝিয়ে দিতেন। আবার অনেক সময় মসজিদে নামাজ আদায় করতে গিয়ে মসজিদের ঈমাম সাহেব-সহ মুসুল্লিদেরও বুঝিয়ে দিতেন। এরমধ্যেই শুরু হলো লকডাউন কার্যকর করার কড়াকড়ি আদেশ জারি।

দেশের বিভিন্ন জেলাশহরের মতো আমাদের নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের প্রায় সবকটা ওয়ার্ডেই লকডাউনের আওতায় আনা হয়েছে। এক এলাকা থেকে অন্য এলাকায়ও বিশেষ প্রয়োজন ছাড়া যাওয়া যায় না। আর হাট-বাজার তো খোলা থাকে দিনের দুপুর পর্যন্ত।

লকডাউন মানে, সবই ডাউন। মানুষের কাজ নেই। ব্যবসায়ীদের ব্যবসা নেই। নিন্মবিত্তের আয় রোজগার নেই। এ অবস্থায় (নাসিক) ১০নং ওয়ার্ডের সম্মানিত কাউন্সিলর হাজী মোহাম্মদ ইফতেখার আলম খোকন সাহেব এবং মহিলা কাউন্সিলর মিনোয়ারা বেগম (মিনা), এলাকার সকল মানুষের পাশে দাঁড়ালেন।

সম্মানিত কাউন্সিলর হাজী মোহাম্মদ ইফতেখার আলম খোকন সাহেব সকাল থেকে রাত পর্যন্ত এলাকার মানুষের ঘরে ঘরে গিয়ে খোঁজখবর নিতে লাগলেন এবং তাঁদের নিজস্ব তহবিল থেকে নভেল করোনাভাইরাস প্রতিহত করার প্রয়োজনীয় সুরক্ষা সামগ্রী বিতরণ শুরু করলেন।

ইতোমধ্যে (নাসিক) ১০নং ওয়ার্ড এলাকার কিছু গণ্যমান্য ব্যক্তিদের সাথে নিয়ে প্রায় প্রত্যেক মহল্লার দুস্থ ও গরীব মানুষের ঘরে চাল, ডাল-সহ তেল, আলু, লবণ, পেঁয়াজ পৌঁছে দিতে শুরু করেছেন। আরও অনেকে বাদ পড়া গরিব মানুষের তালিকা তৈরি করা করছেন এবং কর্মহীন মানুষের নাম তালিকাভুক্ত করা-সহ করোনাভাইরাসের কারণে যতদিন পর্যন্ত এলাকায় লকডাউন চলমান থাকে, ততদিন এলাকার গণমানুষের পাশে থাকবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন।

দেশের এই ক্লান্তিলগ্নে তাঁদের এমন আশ্বাস ও সহযোগিতা সত্যি প্রশংসার দাবি রাখে। তাঁদের এসব সাহায্য সহযোগিতা পেয়ে (নাসিক) ১০ নং ওয়ার্ডের সর্বস্তরের জনগণ মহাসংকট সময়ে পরম শান্তির নিশ্বাস ফেলছে এবং দুইহাত তুলে মহান সৃষ্টিকর্তার কাছে তাঁদের জন্য কেউ দেয়া ও আশীর্বাদ করছে।

প্রার্থনা করছি মহানসৃষ্টিকর্তা যেন এলাকার সম্মানিত দুইজন কাউন্সিলর-সহ অত্র এলাকার সকলকে এই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস থেকে সবসময় মুক্ত রাখে, সুস্থ রাখে। ভালো থাকুক সবাই। ভালো থাকুক বাংলাদেশ।

৫১২জন ১জন
636 Shares

২৩টি মন্তব্য

    • নিতাই বাবু

      হ্যাঁ শ্রদ্ধেয় দাদা, এটা আমাদের এলাকায় মানুষের জন্য সত্যি একরকম সৌভাগ্যের ব্যাপার। অত্র এলাকার জনপ্রতিনিধি হতে পেরে সম্মানিত কাউন্সিলর দুইজনও হয়তো ভাগ্যবান ব্যক্তি। আমরাও অত্র এলাকাবাসী তাঁদের মতন নীতিবান জনপ্রতিনিধি পেয়ে ধন্য।
      এই করোনা সংকটময় সময়ে তাঁদের সর্বাঙ্গীণ মঙ্গল কামনা করি। মহান সৃষ্টিকর্তা যেন এই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস থেকে নিরাপদে রাখে।
      সাথে সুন্দর মন্তব্যের জন্য আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

  • সাবিনা ইয়াসমিন

    জন প্রতিনিধিদের নিয়ে যখন সাধারণ মানুষ এভাবে বলেন/ লেখেন তখন তাদের জনপ্রিয়তা নির্নয় করা যায় খুব সহজেই। সন্দেহ নেই আপনার এলাকায় তারা নিজেদের ভালো গুণ গুলোর কারনে সকলের মনে স্থান করে নিয়েছেন। তাদের সম্পর্কে জানতে পেরে আমাদেরও ভালো লাগছে। চারিদিক থেকে চুরি, হতাশা আর নির্মমতার খবরের মাঝে এমন তথ্য আমাদের আশাবাদী করে তোলে। প্রায় সব মানুষ মানুষের কল্যাণের নিয়োজিত হলে আমাদের দেশটা আরও সমৃদ্ধ হয়ে উঠতো। করোনার এই সময়ে তাদের উদ্যোগ গুলো প্রশংসার দাবী রাখে। তাদের প্রতি সম্মান জানাই।

    আপনিও ভালো থাকবেন দাদা,
    যথা সম্ভব নিরাপদে ঘরে থাকার চেষ্টা করবেন।
    শুভ কামনা 🌹🌹

    • নিতাই বাবু

      হ্যাঁ শ্রদ্ধেয় দিদি, এটা আমাদের এলাকায় মানুষের জন্য সত্যি একরকম সৌভাগ্যের ব্যাপার। কারণ আজ যেখানে দেশের বিভিন্ন জেলাশহরের জনপ্রতিনিধিরা ত্রাণ নিয়ে চুরিচামারি করে ধরা খাচ্ছে, সেখানে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ১০ ওয়ার্ডের দুইজন সম্মানিত কাউন্সিলর করোনাভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচাতে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে। তাহলে বুঝতেই পারছে যে, তাঁরা সম্মানিত কাউন্সিলর দুইজন কতো মানবিক। তাঁদের পেয়ে আমরা এলাকার সাধারণ মানুষ যেমন গর্বিত, তাঁরাও হয়তো অত্র এলাকার জনপ্রতিনিধি হতে পেরে ভাগ্যবান ব্যক্তিই মনে করছেন।
      তো যাহোক দিদি, এই করোনা সংকটময় সময়ে তাঁদের সর্বাঙ্গীণ মঙ্গল কামনা করি। মহান সৃষ্টিকর্তা যেন এই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস থেকে নিরাপদে রাখে।
      সাথে সুন্দর গঠনমূলক মন্তব্যের জন্য আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

  • সঞ্জয় মালাকার

    প্রিয় দাদা, করোনার এই সময়ে তাদের উদ্যোগ গুলো প্রশংসার দাবী রাখে। তাদের প্রতি সম্মান জানাই।

    আপনিও ভালো থাকবেন দাদা,
    যথা সম্ভব নিরাপদে ঘরে থাকার চেষ্টা করবেন।
    শুভ কামনা 🌹🌹

  • সুপর্ণা ফাল্গুনী

    এমন কিছু ত্যাগী, নিঃস্বার্থ জনপ্রতিনিধি আছে বলে এখনো দেশের উন্নয়ন থমকে যায়নি। আপনার মতো সাধারণ মানুষের কাছে এসব শুনলে সত্যিই ভালো লাগে যে এমন জনপ্রতিনিধি প্রতিনিয়ত সাধারণ মানুষের সেবা করে যাচ্ছে। ধন্যবাদ দাদা এমন একটি নির্মল , সুন্দর একটি পোস্ট দেবার জন্য। ভালো থাকুন সুস্থ থাকুন শুভকামনা রইলো

    • নিতাই বাবু

      হ্যাঁ শ্রদ্ধেয় দিদি, এটা আমাদের এলাকায় মানুষের জন্য সত্যি একরকম সৌভাগ্যের ব্যাপার। কারণ আজ যেখানে দেশের বিভিন্ন জেলাশহরের জনপ্রতিনিধিরা ত্রাণ নিয়ে চুরিচামারি করে ধরা খাচ্ছে, সেখানে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ১০ ওয়ার্ডের দুইজন সম্মানিত কাউন্সিলর করোনাভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচাতে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে। তাহলে বুঝতেই পারছে যে, তাঁরা সম্মানিত কাউন্সিলর দুইজন কতো মানবিক। তাঁদের পেয়ে আমরা এলাকার সাধারণ মানুষ যেমন গর্বিত, তাঁরাও হয়তো অত্র এলাকার জনপ্রতিনিধি হতে পেরে ভাগ্যবান ব্যক্তিই মনে করছেন।
      তো যাহোক দিদি, এই করোনা সংকটময় সময়ে তাঁদের সর্বাঙ্গীণ মঙ্গল কামনা করি। মহান সৃষ্টিকর্তা যেন এই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস থেকে নিরাপদে রাখে।
      সাথে সুন্দর গঠনমূলক মন্তব্যের জন্য আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

    • নিতাই বাবু

      হ্যাঁ শ্রদ্ধেয় দাদা, এটা আমাদের এলাকায় মানুষের জন্য সত্যি একরকম সৌভাগ্যের ব্যাপার। কারণ আজ যেখানে দেশের বিভিন্ন জেলাশহরের জনপ্রতিনিধিরা ত্রাণ নিয়ে চুরিচামারি করে ধরা খাচ্ছে, সেখানে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ১০ ওয়ার্ডের দুইজন সম্মানিত কাউন্সিলর করোনাভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচাতে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে। তাহলে বুঝতেই পারছে যে, তাঁরা সম্মানিত কাউন্সিলর দুইজন কেমন মানবিক।
      তাঁদের পেয়ে আমরা এলাকার সাধারণ মানুষ যেমন গর্বিত, তাঁরাও হয়তো অত্র এলাকার জনপ্রতিনিধি হতে পেরে ভাগ্যবান ব্যক্তিই মনে করছেন।
      তো যাহোক দাদা, এই করোনা সংকটময় সময়ে তাঁদের সর্বাঙ্গীণ মঙ্গল কামনা করি। মহান সৃষ্টিকর্তা যেন এই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস থেকে নিরাপদে রাখে।
      সাথে সুন্দর গঠনমূলক মন্তব্যের জন্য আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

  • কামাল উদ্দিন

    সাধ্য অনুসারে আমাদের প্রত্যেকেরই অভাবী মানুষদের পাশে দাঁড়ানো উচিৎ। জনপ্রতিনিধীরা যদি সৎ হয় তাহলে ঐ এলাকার মানুষদের অভাবটা অভিযোগটা কম থাকে…….ভালো মানুষগুলোর জন্য সব সময় শুভ কামনা।

    • নিতাই বাবু

      হ্যাঁ শ্রদ্ধেয় দাদা, এটা আমাদের এলাকায় মানুষের জন্য সত্যি একরকম সৌভাগ্যের ব্যাপার। কারণ আজ যেখানে দেশের বিভিন্ন জেলাশহরের জনপ্রতিনিধিরা ত্রাণ নিয়ে চুরিচামারি করে ধরা খাচ্ছে, সেখানে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ১০ ওয়ার্ডের দুইজন সম্মানিত কাউন্সিলর করোনাভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচাতে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে। তাহলে বুঝতেই পারছে যে, তাঁরা সম্মানিত কাউন্সিলর দুইজন কেমন মানবিক।
      তাঁদের পেয়ে আমরা এলাকার সাধারণ মানুষ যেমন গর্বিত, তাঁরাও হয়তো অত্র এলাকার জনপ্রতিনিধি হতে পেরে ভাগ্যবান ব্যক্তিই মনে করছেন।
      তো যাহোক দাদা, এই করোনা সংকটময় সময়ে তাঁদের সর্বাঙ্গীণ মঙ্গল কামনা করি। মহান সৃষ্টিকর্তা যেন এই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস থেকে নিরাপদে রাখে।
      সাথে সুন্দর গঠনমূলক মন্তব্যের জন্য আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

  • সুপায়ন বড়ুয়া

    খুব ভালো লাগলো জেনে।
    এই রকম ৬৪ হাজার প্রতিনিধি জনসেবায় নিয়োজিত আছেন। ওদের স্যালুট। শুধু ১০/১২ জন চোর নিয়ে মাতামাতি করে জনপ্রতিনিধিদের নিয়ত হেয় করছি।

    আপনিও ভালো থাকবেন দাদা,
    যথা সম্ভব নিরাপদে ঘরে থাকার চেষ্টা করবেন।
    শুভ কামনা 🌹🌹

    • নিতাই বাবু

      হ্যাঁ শ্রদ্ধেয় দাদা, এটা আমাদের এলাকায় মানুষের জন্য সত্যি একরকম সৌভাগ্যের ব্যাপার। কারণ আজ যেখানে দেশের বিভিন্ন জেলাশহরের জনপ্রতিনিধিরা ত্রাণ নিয়ে চুরিচামারি করে ধরা খাচ্ছে, সেখানে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ১০ ওয়ার্ডের দুইজন সম্মানিত কাউন্সিলর করোনাভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচাতে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে। তাহলে বুঝতেই পারছে যে, তাঁরা সম্মানিত কাউন্সিলর দুইজন কেমন মানবিক।
      তাঁদের পেয়ে আমরা এলাকার সাধারণ মানুষ যেমন গর্বিত, তাঁরাও হয়তো অত্র এলাকার জনপ্রতিনিধি হতে পেরে ভাগ্যবান ব্যক্তিই মনে করছেন।
      তো যাহোক দাদা, এই করোনা সংকটময় সময়ে তাঁদের সর্বাঙ্গীণ মঙ্গল কামনা করি। মহান সৃষ্টিকর্তা যেন এই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস থেকে নিরাপদে রাখে।
      সাথে সুন্দর গঠনমূলক মন্তব্যের জন্য আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

  • তৌহিদ

    প্রত্যেক জনপ্রতিনিধি যদি এগিয়ে আসতেন এভাবে তাহলে অসহায় মানুষদের চিন্তার কিছুটা কমতো অবশ্যই। কিছু খারাপ মানুষের জন্য ভালো মানুষদের বদনাম হচ্ছে। অথচ এখন কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে এগিয়ে যাবার সময়।

    সুন্দর পোস্টের জন্য ধন্যবাদ দাদা।

    • নিতাই বাবু

      হ্যাঁ শ্রদ্ধেয় দাদা, এটা আমাদের এলাকায় মানুষের জন্য সত্যি একরকম সৌভাগ্যের ব্যাপার। কারণ আজ যেখানে দেশের বিভিন্ন জেলাশহরের জনপ্রতিনিধিরা ত্রাণ নিয়ে চুরিচামারি করে ধরা খাচ্ছে, সেখানে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ১০ ওয়ার্ডের দুইজন সম্মানিত কাউন্সিলর করোনাভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচাতে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে। তাহলে বুঝতেই পারছে যে, তাঁরা সম্মানিত কাউন্সিলর দুইজন কেমন মানবিক।
      তাঁদের পেয়ে আমরা এলাকার সাধারণ মানুষ যেমন গর্বিত, তাঁরাও হয়তো অত্র এলাকার জনপ্রতিনিধি হতে পেরে ভাগ্যবান ব্যক্তিই মনে করছেন।
      তো যাহোক দাদা, এই করোনা সংকটময় সময়ে তাঁদের সর্বাঙ্গীণ মঙ্গল কামনা করি। মহান সৃষ্টিকর্তা যেন এই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস থেকে নিরাপদে রাখে।
      সাথে সুন্দর গঠনমূলক মন্তব্যের জন্য আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

  • সুরাইয়া পারভীন

    মানবিকতা এখনও সম্পূর্ণ উঠে যায়নি তারই বাস্তব উদাহরণ হাজী মোহাম্মদ ইফতেখার আলম খোকন সাহেব এবং আলহাজ্ব মিনোয়ারা বেগম(মিনা)। প্রত্যেক জনপ্রতিনিধি যদি এমন হতো, অসহায় মানুষের কথা ভাবতো, পাশে থাকতো তবে দুমুঠো ভাত নিশ্চিত হতো। ভাতের জন্য হাহাকার থাকতো না।

    সৃষ্টিকর্তা তাঁদের ভালো কাজের পুরস্কার অবশ্যই দেবেন।

    • নিতাই বাবু

      হ্যাঁ শ্রদ্ধেয় দিদি, এটা আমাদের এলাকায় মানুষের জন্য সত্যি একরকম সৌভাগ্যের ব্যাপার। কারণ আজ যেখানে দেশের বিভিন্ন জেলাশহরের জনপ্রতিনিধিরা ত্রাণ নিয়ে চুরিচামারি করে ধরা খাচ্ছে, সেখানে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ১০ ওয়ার্ডের দুইজন সম্মানিত কাউন্সিলর করোনাভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচাতে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে। তাহলে বুঝতেই পারছে যে, তাঁরা সম্মানিত কাউন্সিলর দুইজন কেমন মানবিক।
      তাঁদের পেয়ে আমরা এলাকার সাধারণ মানুষ যেমন গর্বিত, তাঁরাও হয়তো অত্র এলাকার জনপ্রতিনিধি হতে পেরে ভাগ্যবান ব্যক্তিই মনে করছেন।
      তো যাহোক দিদি, এই করোনা সংকটময় সময়ে তাঁদের সর্বাঙ্গীণ মঙ্গল কামনা করি। মহান সৃষ্টিকর্তা যেন এই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস থেকে নিরাপদে রাখে।
      সাথে সুন্দর গঠনমূলক মন্তব্যের জন্য আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি। এই সময়ে সপরিবারে ভালো থাকার জন্য মহান সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করছি। ভালো থাকুন, ঘরেই থাকুন!

    • নিতাই বাবু

      হ্যাঁ শ্রদ্ধেয় দাদা, এটা আমাদের এলাকায় মানুষের জন্য সত্যি একরকম সৌভাগ্যের ব্যাপার। কারণ আজ যেখানে দেশের বিভিন্ন জেলাশহরের জনপ্রতিনিধিরা ত্রাণ নিয়ে চুরিচামারি করে ধরা খাচ্ছে, সেখানে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ১০ ওয়ার্ডের দুইজন সম্মানিত কাউন্সিলর করোনাভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচাতে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে। তাহলে বুঝতেই পারছে যে, তাঁরা সম্মানিত কাউন্সিলর দুইজন কেমন মানবিক হতে পারে! সত্যি তাঁদের পেয়ে আমরা এলাকাবাসী গর্বিত।
      তাই এই করোনা সংকটময় সময়ে তাঁদের সর্বাঙ্গীণ মঙ্গল কামনা করি। মহান সৃষ্টিকর্তা যেন এই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস থেকে নিরাপদে রাখে।
      সাথে সুন্দর গঠনমূলক মন্তব্যের জন্য আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

    • নিতাই বাবু

      হ্যাঁ শ্রদ্ধেয় দিদি, এটা আমাদের এলাকায় মানুষের জন্য সত্যি একরকম সৌভাগ্যের ব্যাপার। কারণ আজ যেখানে দেশের বিভিন্ন জেলাশহরের জনপ্রতিনিধিরা ত্রাণ নিয়ে চুরিচামারি করে ধরা খাচ্ছে, সেখানে নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশন ১০ ওয়ার্ডের দুইজন সম্মানিত কাউন্সিলর করোনাভাইরাস থেকে মানুষকে বাঁচাতে দিনরাত কাজ করে যাচ্ছে। তাহলে বুঝতেই পারছে যে, তাঁরা সম্মানিত কাউন্সিলর দুইজন কেমন মানবিক হতে পারে! সত্যি তাঁদের পেয়ে আমরা এলাকাবাসী গর্বিত।
      তাই এই করোনা সংকটময় সময়ে তাঁদের সর্বাঙ্গীণ মঙ্গল কামনা করি। মহান সৃষ্টিকর্তা যেন এই প্রাণঘাতী নভেল করোনাভাইরাস থেকে নিরাপদে রাখে। সাথে সুন্দর গঠনমূলক মন্তব্যের জন্য আপনাকেও অসংখ্য ধন্যবাদ জানাচ্ছি।

মন্তব্য করুন

ফেইসবুকে সোনেলা ব্লগ

লেখকের সর্বশেষ মন্তব্য